প্রেস নোট-

বেক্সিমকোই দেশে প্রথম রেমদেসিভির উৎপাদন করেছে

স্টাফ রিপোর্টার

অনলাইন ৯ মে ২০২০, শনিবার, ৯:০৩ | সর্বশেষ আপডেট: ১১:০০

করোনা চিকিৎসায় কার্যকর রেমদেসিভির জেনেরিক ওষুধ দেশে প্রথম উৎপাদন করেছে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটির এক প্রেসনোটে বলা হয়, অনেক আগেই বেক্সিমকো এই ওষুধ উৎপাদন করলেও জনমনে বিভ্রান্তি এড়াতে ঘোষণা দেয়া থেকে বিরত থাকে।
প্রেস নোটে বলা হয়, ৮ই মে  ডেইলি স্টার ও প্রথম আলো পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ ও পরদিন ছাপা সংস্করণে প্রকাশিত করোনা চিকিৎসায় দেশে প্রথম রেমডেসিভির উৎপাদন করল এসকেএফ’ শীর্ষক সংবাদ বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড-এর দৃষ্টিগোচরে এসেছে। সংবাদে উল্লেখ করা হয় যে, শুক্রবার থেকেই রেমদেসিভির ওষুধ সরবরাহ করার প্রস্তুতি শুরু করেছে এসকেএফ। একই সংবাদ অন্যান্য গণমাধ্যমও পুনঃপ্রকাশ করেছে। আমরা মনে করি এই সংবাদ প্রতিবেদন বিভ্রান্তিকর ও তথ্যগতভাবে ভুল।
বেক্সিমকোর প্রেস নোটে বলা হয়, আমরা স্পষ্টভাবে বলতে চাই যে, বাংলাদেশে বেক্সিমকো ফার্মাই প্রথম এই জেনেরিক ওষুধ উৎপাদন করেছে। শুধু তা-ই নয়, বেক্সিমকো ফার্মাই প্রথম ও এখন পর্যন্ত একমাত্র কোম্পানি যারা ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরে (ডিজিডিএ) পরীক্ষা ও অনুমোদনের জন্য এই জেনেরিক ওষুধের চূড়ান্ত নমুনা জমা দিয়েছে।

এই ওষুধ উৎপাদনের পর সকল প্রয়োজনীয় অভ্যন্তরীণ পরীক্ষা সফলভাবে সম্পন্ন করার পর ৭ই মে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরে পরীক্ষা ও অনুমোদনের জন্য চূড়ান্ত নমুনা জমা দেয় বেক্সিমকো ফার্মা। কোনো কোম্পানি বাংলাদেশ বা বিশ্বজুড়ে কোনো ওষুধ সরবরাহ করার আগে এই অনুমোদন গ্রহণের বিষয়টি আইনগতভাবে বাধ্যতামূলক।
অনেক আগে রেমদেসিভির উৎপাদন করলেও এর ঘোষণা দেওয়া থেকে বিরত থাকে বেক্সিমকো ফার্মা, কেননা আমরা মনে করেছি যে, নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ কর্তৃক যাচাইবাছাই ও কার্যকারিতার পরীক্ষা সম্পন্ন হওয়ার আগে এ ধরণের ঘোষণা দায়িত্বজ্ঞানহীন ও অনৈতিক হতো; পাশাপাশি জনগণকেও বিভ্রান্ত করতো।
সামগ্রিক বিষয়টি স্পষ্ট করতে ও উপরেল্লেখিত সংবাদের কারণে সৃষ্ট সম্ভাব্য বিভ্রান্তি দূর করতে, বৃহত্তর জনস্বার্থে আমরা এই প্রেস নোট প্রকাশ করছি।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

FAISAL REZA ABDULLAH

২০২০-০৫-১০ ০৮:৫৮:৫২

SALUTE TO BEXIMCO AND SKF

shahin alam

২০২০-০৫-০৯ ১৯:৪৯:৫৭

কে আগে পড়ে তৈরি করল বিষয়টা নিয়ে নাড়া চারার করার কি আছে, বাজারজাত করুন,৷ কাজর প্রমান হবে কোনটা ভালো কোন খারাপ।

Abdullah Maksud

২০২০-০৫-০৯ ১৮:২৬:৪৭

দুটোই ভাল প্রতিষ্ঠান । প্রতিযোগিতা থাকবেই কিন্ত ঔষধ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক যাচাইবাছাই ও কার্যকারিতার পরীক্ষা সম্পন্ন হওয়ার বিষয়টা সহজেই অনুমেয় ...কোন প্রতিষ্ঠান কেন , কিসের জন্য আগে সব approval পাবে । সকলের সকল অনিয়ম পরিহার করে টিকে থাকার মাঝে যে সন্মান , আত্মতৃপ্তি এবং বরকত লাভ করবেন মহান আল্লাহর পক্ষহতে তাহায় যে অধিক কল্যানকর , তাহা বুঝার মনন ও অনুভুতি আর নাই এই পার্থিব ভোগ , লোভ এবং মেকী ক্ষমতার জন্য ।

মজিবুল হক

২০২০-০৫-০৯ ১৫:১৯:২৫

কে আগে কে পরে এসব বাদ দিন। দাম সহজ লভ্য করুন। যাতে সবাই সুবিধা পায়।

Mohammed Ali

২০২০-০৫-০৯ ১১:৪৫:১৬

মহামারিতে ও মানুষের জীবন নিয়ে ব্যবসা! আল্লাহর ওয়াস্তে তাড়াতাড়ি এই ঔষধ মার্কেট এ আনেন, মানুষের জীবন বাঁচান।

মো. মাহমুদুল আলম

২০২০-০৫-০৯ ১০:৫১:০৯

কে আগে করল, কে পরে করল, সেটা বিষয় না। দাম কম হলে ভালো হয়।

শোভন

২০২০-০৫-০৯ ২৩:৩৩:৪৮

যাক ভালই হল, এসকেএফ ১০ টি এম্পুলের দাম ৬০০০০ টাকা নির্ধারণ করেছে। বেক্সিমকো দেরিতে ঘোষণা দেওয়ায় এখন আর ইচ্ছেমতো দাম হাকাতে পারবেনা।

Habib

২০২০-০৫-০৯ ১০:০১:৩২

Why need competititon of skf and Beximco.Mainwords is which medicine is more effective and price is within the range of general public.

Mominul Haque

২০২০-০৫-০৯ ০৯:৪০:৫০

BEXIMCO is earnestly requested to keep the price within purchasing power of mass people of this poor country.

রফিকুল

২০২০-০৫-০৯ ০৮:৫৮:১২

ঔষধ নিয়ে কত রকম এর কারসাঝি দেখলাম এই করোনায়। এই হচ্ছে মানবতা

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

কবিতা

ভালোবাসা

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

আল্লামা শফী আর নেই

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাসে আটকে রেখে গণধর্ষণ

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত