করোনা টেস্ট দিয়ে শুরু হচ্ছে নতুন অনূর্ধ্ব-১৯ দল গঠনের কার্যক্রম

স্পোর্টস রিপোর্টার

খেলা ৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার

ফাইল ছবি
অধিনায়ক আকবর আলীর অনূর্ধ্ব-১৯ দল বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে জায়গা করে নিয়েছে। ভারতকে হারিয়ে প্রথম যুব বিশ্বকাপের শিরোপা ছিনিয়ে এনেছে তারা। আইসিসির কোনো আসরে এটিই দেশের একমাত্র শিরোপা। তবে আকবররা এখন পা বাড়াচ্ছেন জাতীয় দলের দিকে। ২০২২ যুব বিশ্বকাপের জন্য প্রয়োজন নতুন একটি দল। করোনার কঠিন সময়ে সেই দল গঠনের কাজটি শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) গেম ডেভোলপমেন্ট বিভাগ। আগামী ২২শে আগস্ট শুরু হচ্ছে নয়া অনূর্ধ্ব-১৯ দল তৈরির কার্যক্রম। বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) ৪৫ জন ক্রিকেটার নিয়ে হবে এই ক্যাম্প।
তবে তার আগে সব ক্রিকেটারকে দিতে হবে করোনা পরীক্ষা। এই পরীক্ষায় পাশ হলেই ক্যাম্পে জায়গা হবে তাদের। শুধু ক্রিকেটারই নয়, এই ক্যাম্পের সঙ্গে যারা কাজ করবেন সেই কোচিং স্টাফ থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্ট সবাইকে কোভিড-১৯  টেস্ট করাতে হবে। বিষয়গুলো নিশ্চিত করেছেন গেম ডেভলপমেন্টের ম্যানেজার আবু এনাম মোহাম্মদ কায়সার। দৈনিক মানবজমিনকে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, আমাদের ক্যাম্প শুরুর সব প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছি। ২২শে আগষ্ট থেকে ধাপে ধাপে ৪৫ জন ক্রিকেটার নিয়ে এই ক্যাম্প চলবে বিকেএসপিতে। এখন থেকেই আমরা নতুন যুবদল গঠনে একটি প্রথমিক স্কোয়াড বেছে নিবো। তবে তার আগে সব ক্রিকেটার  ও সাপোর্ট স্টাফদের কভিড-১৯ টেস্ট করা বাধ্যতামূলক। এই পরীক্ষা শুরু হবে ১৬ই আগস্ট থেকে।’ কিন্তু এই ক্যাম্পে থাকতে পারছেন না যুব ক্রিকেট দলের  প্রধান কোচ নাভিদ নেওয়াজ। তাই ভরসা করতে হবে দেশি কোচদের ওপর। তবে  ট্রেনার রিচার্ড স্টনিয়ার থাকবেন। কিন্তু কবে তিনি ক্যাম্পে যোগ দিবেন সেই দিনক্ষণ এখনো চূড়ান্ত হয়নি।
মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে দেশের সব ধরনের ক্রিকেট স্থগিত রয়েছে করোনা মহামারির কারণে। যে কারণে নয়া অনূর্ধ্ব-১৯ দল গঠনের কার্যক্রমও স্থবির হয়ে পড়ে। তবে বিকেএসপির বন্ধপরিবেশে অবশেষে ক্যাম্প করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গেম ডেভালপমেন্ট বিভাগ। ক্যাম্পে ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার বিষয় নিয়ে কায়সার বলেন, ‘আমরা প্রথমেই গুরুত্ব দিয়েছি ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার বিষয়টি।  যে কারণে শুরুতেই প্রতিটি ক্রিকেটারের কোভিড-১৯ পরীক্ষা বাধ্যতামূলক। বিসিবি এটি নিজ দায়িত্বে করবে। যদি কেউ আক্রান্ত থাকে সে ক্যাম্পে জায়গা পাবে না। শুধু ক্রিকেটার নয়, ক্যাম্প পরিচালনায় বাইরে থেকে যারা বিকেএসপিতে যাবে তাদেরও এই টেস্টে পাশ করতে হবে। এক কথায়  কোচ থেকে শুরু করে ক্রিকেটারদের রান্নার দায়িত্বে থাকা বাবুর্চি পর্যন্ত সবাইকে এই টেস্ট করতে হবে। সব  স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। তবে বিকেএসপির ভিতরে যারা এতদিন নিরাপদে আছেন তাদের এই টেস্টের প্রয়োজন হবে না।’
এক মাসের ক্যাম্পের প্রক্রিয়া নিয়ে গেম ডেভালপমেন্টের ম্যানেজার বলেন, ‘আমরা ১৫ জন করে ধাপে ধাপে ক্রিকেটারদের বিকেএসপিতে নিয়ে যাবো। শুরুতেই থাকবে ফিটনেস ট্রেনিং। এরপর স্কিল ও শেষ বা তৃতীয় ধাপে হবে ম্যাচ অনুশীলন। এই ম্যাচ থেকেই বেছে নেয়া হবে নতুন অনূর্ধ্ব-১৯ দল।’ এই প্রক্রিয়া শুরুর লক্ষ্য ২০২২ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের জন্য শক্তিশালী একটি দল গঠন করাও বলে জানা গেছে। বিশ্বকাপ লক্ষ্য কিনা তা নিয়ে কায়সার বলেন, ‘বিশ্বকাপ এখনো অনেক দূরে ২০২২-এ। তবে বলতে পারেন এখান থেকেই বিশ্বকাপের জন্য একটি দল বেড়ে উঠবে। তবে তার আগে তাদের দল হয়ে উঠতে অনেক সিরিজ ও ম্যাচ খেলতে হবে। তার জন্য আমরা দেশ-বিদেশে  খেলার ব্যবস্থা করবো। তবে এখনই বিশ্বকাপ ভাবনা রাখছি না। এখন যে প্রাথমিক দলটি হবে সেখান থেকে অনেকেই ঝরে পড়তে পারে আবার টিকেও যেতে পারে। তাই বলতে পারেন এটি প্রথমিকভাবে অনূর্ধ্ব-১৯ দল গঠনের প্রক্রিয়া। আর আকবরদের যে দলটি ছিল সেখান থেকে মাত্র ২ জন ক্রিকেটারই জায়গা পাচ্ছে এই ক্যাম্পে কারণ তাদের পরের বিশ্বকাপ খেলার বয়স আছে।’
১৬, ১৮ ও ২০শে আগস্ট করোনা পরীক্ষা হবে মিরপুরে। ক্রিকেটাররা এই সময়ে থাকবেন একাডেমির ভবনে। যদি কোনো ক্রিকেটারের করোনা পজেটিভ আসে তাহলে তাকে বাদ দেয়া হবে। তবে এই ক্রিকেটাররা পরীক্ষার আগেই যুক্ত হবেন বিসিবি  করোনা ম্যানেজমেন্ট অ্যাপসে।

এক মাসের ক্যাম্প
  • ভেন্যু হবে বিকেএসপি
  •  কোভিড-১৯ পরীক্ষা ১৬ই আগস্ট
  • ক্যাম্প শুরু ২২শে আগস্ট
  • ক্রিকেটারের সংখ্যা ৪৫ জন

আপনার মতামত দিন

খেলা অন্যান্য খবর

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি হকি

‘চেষ্টা থাকবে বড় দলকে হারানোর’

২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

লন্ডনে লাল নীলের যুদ্ধ আজ

২০ সেপ্টেম্বর ২০২০



খেলা সর্বাধিক পঠিত