কলকাতা কথকতা

করোনা বদলে দিল জেলের ম্যানুয়ালও, কয়েদিদের বাড়তি সুবিধা

জয়ন্ত চক্রবর্তী, কলকাতা

কলকাতা কথকতা ৬ জুলাই ২০২০, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:০৫

প্রবল করোনাকালে বদলে গেল জেল এর নিয়মকানুন। পশ্চিমবঙ্গে এখন জেলকে ঘটা করে সংশোধনাগার বলে ডাকা হচ্ছে। কিন্তু সাধারণের কাছে জেল সেই জেলই রয়ে গেছে। রাজ্যে এখন রয়েছে আটটি কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার সহ ষাটটি জেল। এই সবকটি জেলের ম্যানুয়াল বদলে গেছে করোনার কারণে। পরিবর্তন এসেছে দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায়। লাভবান হচ্ছে কয়েদিরা। জেলের ম্যানুয়াল কিভাবে পাল্টেছে? আগে কয়েদিরা তিনশো গ্রাম চাল কিংবা গমের ভাত রুটি পেতেন।
এখন পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে। একশো গ্রাম ডাল ও তিনশো গ্রাম সবজির পরিমাণও বেড়েছে। মাছ, মাংস, ডিমও দেয়া হচ্ছে পরিমানে বেশি। মুরগির মাংস রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। তাই, অন্তত সপ্তাহে তিনদিন মুরগির মাংস পাচ্ছেন ইনমেটরা। পাতিলেবুতে ভিটামিন সি থাকে তাই প্রচুর পরিমাণ পাতিলেবু পাচ্ছেন কয়েদিরা। রাজ্যের কারামন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাসের নির্দেশে বন্দিদের তুলসি চা এবং হলুদ মেশানো দুধ পান করানো হচ্ছে। হলদি দুধের সুপারিশ এসেছে কেন্দ্রীয় আয়ুষ মন্ত্রকের কাছ থেকে। বন্দিদের সানিটাইজেশন করার জন্যে মোট ছ’হাজার লিটার স্যানিটাইজার কেনা হয়েছে কুড়ি লক্ষ টাকা ব্যায় করে। মাস্ক অবশ্য তৈরি হচ্ছে আটটি কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে। এ পর্যন্ত রাজ্যের ষাটটি জেলে কুড়িজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে বারুইপুর জেলে দুজন এবং জলপাইগুড়ি জেলে দু’জন। মোট চারজন বন্দি করোনা সংক্রমিত হয়। বাকি ষোলজনই কারাকর্মী।

আপনার মতামত দিন



কলকাতা কথকতা সর্বাধিক পঠিত