এনআরবি’র সেমিনার

প্রবাসীদের ভোটার হওয়ার সুস্পষ্ট নীতিমালা প্রয়োজন

স্টাফ রিপোর্টার

শেষের পাতা ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:১০

প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পাওয়ার সুস্পষ্ট নীতিমালা প্রয়োজন। একই সঙ্গে পাসপোর্ট নবায়নের ঝামেলা দূর করতে হবে। ভোটার রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় সহজ উপায়ে প্রবাসীদের অর্ন্তভূক্তি নিশ্চিত করা প্রয়োজন। গতকাল দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে সেন্টার ফর এনআরবি আয়োজিত ‘প্রবাসে ভোটার নিবন্ধন ও জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান: মুজিব বর্ষে প্রত্যাশা’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। এনআরবি’র চেয়ারপার্সন এম এস সেকিল চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিছবাহ এমপি, প্রবাসী মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. সাইদুল হক এনডিসি, নির্বাচন কমিশনের এনআইডি বিভাগের প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাইদুল ইসলাম, পুলিশের সাবেক আইজি একেএম শহিদুল হক, সাবেক সচিব ড. এ কে আব্দুল মুবিন, সিপিডি’র গবেষণা পরিচালক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম, ব্যাংকার ইশতিয়াক চৌধুরী, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের এপিপি-এর সেক্রেটারি জেনারেল শিশির শীল প্রমুখ। আলোচনায় অংশ নেন ঢাকা চেম্বারের সাবেক সহ সভাপতি সুয়েব চৌধুরী, সাবেক সরকারি কর্মকর্তা সৈয়দ আব্দুল মোক্তাদির, কৃষিবিদ শফিক আহমদ, ইতালী প্রবাসী নুরুল আমিন, দুবাই প্রবাসী ইঞ্জিনিয়ার তবারক হোসেন, সমাজসেবী মো. জহিরুল ইসলাম, গবেষণাকর্মী নুর খান, এডভোকেট মাহবুবুল হক ও হিফজুল আমীন।

পীর ফজলুর রহমান বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক মেরুদণ্ড এখনো ধরে রেখেছেন আমাদের প্রবাসীরা। তাদরেকে আমাদের সম্মান করা উচিত। তাদের যে সমস্যাগুলো আছে আসলে সভা সমাবেশ করেই শেষ করা যাবে না।
প্রবাসীদের সকল সুযোগ সুবিধার জন্য আমরা কাজ করছি। এনআইডি ও পাসপোর্ট সংক্রান্ত কোন প্রবাসীদের সমস্যাগুলো নিয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে আমরা বসে একটা সমাধান করতে চেষ্টা করবো।

সভাপতির বক্তব্যে সেকিল চৌধুরী বলেন, চার ধরনের বাংলাদেশি প্রবাসী বিদেশে রয়েছেন। দ্বৈত নাগরিকত্ব গ্রহণকারী বাংলাদেশি যারা অন্যদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণকালে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পরিত্যাগ করতে হয়নি। দ্বৈত নাগরিকত্ব গ্রহণকারী বাংলাদেশি নাগরিক যারা অন্যদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণকালে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পরিত্যাগ করতে হয়েছে। বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী প্রবাসী, যারা অন্যদেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেন নাই বা কাজের উদ্দেশ্যে অথবা পড়াশুনার কাজে প্রবাসে অবস্থান করছেন। বৈধভাবে গিয়ে অথবা অবৈধভাবে গিয়ে প্রবাসে বৈধ কাগজপত্র ছাড়া বসবাস করছেন। এসকল প্রবাসীরা যেভাবে খুব সহজেই জাতীয় পরিচয়পত্র পেতে পারে তার জন্য একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা করতে হবে। তাদের ভোগান্তি কমিয়ে আনতে হবে।

বক্তারা বলেন, প্রবাসীরা আমাদের দেশে বিপুল পরিমানে রেমিটেন্স পাঠাচ্ছে। প্রতিবছর প্রায় ১৮ মিলিয়নের বেশি টাকা দেশে আসছে। প্রতিবছর এই রেমিটেন্সের পরিমান বাড়বে। প্রবাসীরা অনেক সময় বিদেশে গিয়ে নানা অসুবিধায় পড়ে। ফলে তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র ও পার্সপোর্ট নিয়ে অনেক অসুবিধায় পড়তে হয়। প্রবাসীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে এসব ভোগান্তি থেকে মুক্ত করতে সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে।

আপনার মতামত দিন



শেষের পাতা অন্যান্য খবর

বড় সংকটে শ্রমবাজার

২৭ মার্চ ২০২০

করোনা ভাইরাস নিয়ে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল

দক্ষিণ এশিয়ায় বাড়ছে সংক্রমণ

২৭ মার্চ ২০২০

আতঙ্কের জনপদ নিউ ইয়র্ক

আরো চার বাংলাদেশির মৃত্যু

২৬ মার্চ ২০২০



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত