মতিঝিল আইডিয়ালের প্রশ্নপত্রে আবরার ফাহাদ

অনলাইন ডেস্ক

শিক্ষাঙ্গন ২৫ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৫৯

এবার রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার ইংরেজি প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করা হয়েছে আবরার ফাহাদকে নিয়ে। আবারারের ওপর একটি প্যাসেজ দিয়ে সে আলোকে প্রশ্নের উত্তর দিতে বলা হয়েছে।

ঐ প্যাসেজে লেখা হয়েছে, আবরার ফাহাদ ১৯৯৯ সালে কুষ্টিয়ার রায়ডাঙ্গা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম বরকতুল্লাহ এবং মাতা রোকেয়া খাতুন। তার ছোট ভাই আবরার ফাইয়াজ। তিনি বাবার-মায়ের প্রতি কর্তব্যপরায়ণ ছিলেন। ছাত্র হিসেবেও ছিলেন খুব মেধাবী এবং বুদ্ধিমান। তিনি এসএসি ও এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছেন। আবরার তার স্বপ্ন পূরণের জন্য বুয়েটে ভর্তি হন।
তিনি বিশ্ববিদ্যালয়টির শেরেবাংলা হলে থাকতেন। ২০১৯ সালের ৭ই অক্টোবর তিনি  অপ্রত্যাশিতভাবে  হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। শৈশব থেকেই আবরার ফাহাদ নম্র-ভদ্র ও ধর্মীয় জীবন যাপন করতেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য,  গত ৬ই অক্টোবর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের এই শিক্ষার্থী ছাত্রলীগের নির্মম নির্যাতনে নিহত হয়েছেন।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

British Bangla Vlogs

২০১৯-১১-২৫ ০৩:৩২:৩৯

Please correct the use of 'admit'. It should be 'enroll'. It is a serious mistake often found in our education materials.

mamun

২০১৯-১১-২৫ ১৫:৫৬:২৩

He loved his country. He died for his country. He was against the Indian aggression. He is the first Shaheed of our time.

এমরান

২০১৯-১১-২৫ ১০:৫৩:২১

স্বাধীনতার পক্ষে কথা বলাই ছিল আবরারের অপরাধ। হে আল্লাহ ,তাঁকে শহীদ হিসেবে কবুল করুন।আমীন।

শওকত আলী

২০১৯-১১-২৫ ১০:১২:৫৩

শুধু প্রশ্নপত্রে আবরার ফাহাদকে নিয়ে প্রশ্ন করা হলে হবে না। তার জীবনী প্রতিটি ক্লাসের পাঠ্যবই-এ সংযোজন করার অনুরোধ জানাচ্ছি।

Md. Soadrul Amin

২০১৯-১১-২৫ ০৯:৩৬:৪৯

ছাত্রদেরকে আবরার ফাহাদকে চেনানোর এটি একটি ভাল উদ্যোগ।

আপনার মতামত দিন



শিক্ষাঙ্গন অন্যান্য খবর

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা

অষ্টম দিনে অনুপস্থিত ১১৯১৩, বহিষ্কার ২৫

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

সড়কে কুবি শিক্ষার্থীর নিথর দেহ

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

রাবিতে প্রতিবাদী র‌্যালি

প্রেম বঞ্চিত তারা

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০



শিক্ষাঙ্গন সর্বাধিক পঠিত