ইলিয়াস কাঞ্চনের পাশে শিল্পীরা

স্টাফ রিপোর্টার

বিনোদন ২২ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার

১৯৯৩ সালে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় এলোমেলো হয়ে যায় নব্বই দশকের তুমুল জনপ্রিয় নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের জীবন। কারণ ওই বছরের ২২শে অক্টোবর তার একটি ছবির শুটিং দেখতে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান স্ত্রী জাহানারা কাঞ্চন। শোকার্ত ইলিয়াস কাঞ্চন এরপর রিলের নায়ক থেকে রিয়েল লাইফের প্রতিবাদী নায়ক হয়ে নেমে পড়েন রাস্তায়। গড়ে তোলেন ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ নামের সংগঠন। সেই থেকে ইলিয়াস কাঞ্চনের নেতৃত্বে  নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) আন্দোলন চলছে। তার সংগঠনের নাম এখন জাতীয় স্লোগানে পরিণত হয়েছে। আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে দেশে এখন প্রতিবছর পালিত হয় নিরাপদ সড়ক দিবস।
সংগঠনর কর্মকা- জাতিসংঘেও প্রশংসিত হয়েছে।
স্বীকৃতি হিসেবে তিনি একুশে পদক পেয়েছেন। তবে এ আন্দোলন নিয়ে ইলিয়াস কাঞ্চনকে বিভিন্ন সময় পরিবহন শ্রমিকদের রোষানলে পড়তে হয়েছে। এ আন্দোলন করে বারবার বিভিন্ন মহলের হুমকির শিকার হয়েছেন ইলিয়াস কাঞ্চন। সর্বশেষ নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে গত সপ্তাহে বেশ কয়েকদিন বাংলাদেশের বাস-ট্রাকের শ্রমিকেরা যে ‘কর্মবিরতি’ পালন করেছেন, সেখানে ইলিয়াস কাঞ্চনের ছবিকে হেয় প্রতিপন্ন করার অভিযোগ উঠেছে।
অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া বিভিন্ন ছবিতে দেখা যাচ্ছে, ইলিয়াস কাঞ্চনের ছবিসংবলিত ব্যানার টাঙিয়ে কিংবা কুশপুত্তলিকা তৈরি করে সেখানে জুতার মালা দেওয়া হয়েছে। তাকে হেনস্থা করার চেষ্টা করা করা হয়েছে। নায়কের এই অপমানে প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনেকে। দেশের লাখ লাখ মানুষ দাঁড়িয়েছেন ইলিয়াস কাঞ্চনের পাশে। সামাজিক  যোগাযোগমাধ্যমে তার সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছেন অগণিত ভক্তসহ চলচ্চিত্র অঙ্গনের শিল্পীরা। বিস্ময় নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, ইলিয়াস কাঞ্চনের সঙ্গে এ কেমন আচরণ! তিনি তো সবার ভালোর জন্যই আন্দোলনটা শুরু করেছেন, বছরের পর বছর চালিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।
চিত্রনায়ক রুবেল বলেন, ‘নিরাপদ সড়কের দাবি নিয়ে দীর্ঘদিন কাজ করে যাচ্ছেন ইলিয়াস কাঞ্চন। তার সঙ্গে দেশের মানুষ রয়েছেন। তাকে নিয়ে যেসব মানুষ বাজে পোস্টার ছাপিয়েছে তারা নোংরা মনের পরিচয় দিয়েছেন। আমি এই ঘটনার প্রতিবাদের পাশাপাশি তাদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাই।’ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, ‘কাঞ্চন ভাইয়ের পাশে শিল্পী সমিতি থাকবে। যারা নিরাপদ সড়ক চায় না তারা দেশের ও সমাজের শত্রু। যারা ইলিয়াস কাঞ্চন ভাইকে অপমান করেছে তাদেরকে শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাই। কাঞ্চন ভাই দীর্ঘদিন ধরে মানুষকে সচেতন করে আসছেন, এটা আমাদের গর্বের বিষয়।’
অভিনেতা ইমন বলেন, ‘কাঞ্চন ভাইকে নিয়ে যারা কটূক্তি করছে, আমি তাদের ধিক্কার জানাই। কারণ, কাঞ্চন ভাই আমাদের পথপ্রদর্শক, সিনিয়র অভিনেতা। নিরাপদ সড়ক প্রত্যেক মানুষের অধিকার। কাঞ্চন ভাইয়ের স্ত্রী সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। এরপর থেকে তিনি সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ভূমিকা রেখে আসছেন। আমি ফেসবুকে দেখেছি, কাঞ্চন ভাইকে নিয়ে বাজে ছবি পোস্ট করা হচ্ছে। আমি মনে করি, কাঞ্চন ভাইয়ের সঙ্গে আমাদেরও একাত্মতা প্রকাশ করা উচিত।’
চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক বলেন, ‘সারাদেশের মানুষ সবাই নিরাপদ সড়ক চায়। এটার বিরোধিতা করার কোনো কারণ নেই।’ নায়ক শাহরিয়াজ বলেন, ‘আমাদের একজন ইলিয়াস কাঞ্চন আছেন। একজন শিল্পী কোনো পদ, গদি কিংবা ক্ষমতার আশায় নয়, সুস্থ নিরাপদ জীবনের জন্য সকলের জন্য কাজ করে যাওয়ার নিদারুণ দৃষ্টান্ত। সারাদেশের মানুষ সবাই নিরাপদ সড়ক চায়। এটার বিরোধিতা করার কোনো কারণ নেই।’ নির্মাতা রাশিদ পলাশ বলেন, ‘একদিন ঝড় থেমে যাবে পৃথিবী আবার শান্ত হবে। আমি রাশিদ পলাশ এই বাঁশিওলার সঙ্গে আছি।’

বিনোদন অন্যান্য খবর

আলাপন

‘আসলে আমি প্রেমই করছি না’

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

বিজয় দিবসে বন্যা

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

শিপনের দুই

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

লিজার নতুন

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

ভিন্নধর্মী গল্পে

১৫ ডিসেম্বর ২০১৯





আপনার মতামত দিন

বিনোদন সর্বাধিক পঠিত