অযোধ্যা মামলার রায়

পরস্পরবিরোধীতার অভিযোগ, রিভিউ চাইবে সুন্নী ওয়াকফ বোর্ড

কলকাতা প্রতিনিধি

ভারত ৯ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:০০

অযোধ্যার ভূমি বিবাদ নিয়ে দেওয়া সুপ্রিম কোর্টের রায়ে মোটেই খুশি নয় মামলার অন্যতম আবেদনকারী সুন্নী ওয়াকফ বোর্ড। বোর্ডের আইনজীবী জাফারিয়াব জিলানি বলেছেন, আমরা সুপ্রিম কোর্টের রায়কে সম্মান করছি, কিন্তু আমরা মোটেই খুশি নই। এইা রায়ে অসংখ্য পরস্পরবিরোধীতা রয়েছে। আমরা এই রায়ের রিভিউ আবেদন জানাব। তবে জিলানি জাতির কাছে শান্ত এবং শান্তি বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছেন। এই মামলায় সুন্নী ওয়াকফ বোর্ড ছাড়াও মুসলিমদের তরফে ছিলেন জনৈক মহম্মদ ইকবাল আনসারি, এম সিদ্দিকি (বর্তমানে মৃত) এবং কেন্দ্রীয় শিয়া ওয়াকফ বোর্ড।
মামলায় সুন্নী ওয়াকফ বোর্ডের যুক্তি ছিল, বিতর্কিত স্থানে কোনও মন্দির বা কাঠামো ভেঙ্গে মসজিদ করা হয়েছিল কিনা সে ব্যাপারে আর্কিলজিক্যাল ইন্সটিটিউট অব ইন্ডিয়ার (এআইসি) রিপোর্ট অসম্পূর্ণ। রিপোর্টে কারও স্বাক্ষর ছিল না। ফলে কে সব তথ্য বিশ্লেষণ করে চূড়ান্ত রিপোর্ট তৈরি করেছিলেন তা অজানা।
তবে ১৯৪৯ সালে প্রথম মসজিদের কেন্দ্রীয় গম্বুজের নীচে রামলালার মূর্তি রাখা হয়েছিল।
বোর্ডের আরও যুক্তি ছিল, বিতর্কিত জায়গাটি রামের জন্মস্থান নয়। আর সেখানে মসজিদ নির্মাণ হয়েছিল মুঘল সম্রাট বাবরের আমলে। বোর্ড জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় গম্বুজে রাখা রামলালার মুর্তিতে পূজার কোনও প্রমাণ নেই। বরং পূজা হত মসজিদের বাইরে রাম চবুতরায়। হিন্দুদের পক্ষ থেকে ভ্রমণকারীদের সুত্র এবং গেজেটিয়ারের যে সব তথ্য তুলে ধরা হয়েছে তা অসম্পূর্ণ এবং কারোর সঙ্গে কারোর মিল নেই। তবে সব গেজেটিয়ারেই বিতর্কিত স্থানে মসজিদের কথাই বলা হয়েছে। কোথাও রামের জন্মস্থানের কথা বলা হয়নি।

ভারত অন্যান্য খবর

সৃজিত-মিথিলা আল্পসের দেশে

১০ ডিসেম্বর ২০১৯





আপনার মতামত দিন

ভারত সর্বাধিক পঠিত