কর্নাটকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি

বাংলাদেশী জঙ্গিদের অনুপ্রবেশ ঘটেছে, উচ্চ সতর্ক অবস্থায় পুলিশ

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন ১৯ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:২৮

কর্নাটকের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই দাবি করেছেন, বাংলাদেশের ইসলামপন্থি একটি জঙ্গি সংগঠনের নেতাকর্মীদের অনুপ্রবেশ ঘটেছে কর্নাটকে। তারা ব্যাঙ্গালোর, মহিসুর এবং উপকূলীয় এলাকায় আশ্রয় নিয়েছে। এ জন্য পুলিশকে উচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। তিনি বলেছেন, রাজ্যজুড়ে সতর্কতা দেয়া হয়েছে। পুলিশকে পুরো রাজ্যে সন্দেহজনক যেকোনো গতিবিধির ওপর সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। কোনো কোনো এলাকায় পুলিশ লোকজনকে সতর্ক করছে এবং প্রয়োজনীয় নিরাপত্তামুলক ব্যবস্থা নিচ্ছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া।

শুক্রবার কর্নাটক পুলিশ একাডেমির মাঠে ৪২তম সাব ইন্সপেক্টরদের এক পাসিং আউট প্যারেডে বক্তব্য রাখছিলেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই।
তিনি এ সময় বলেছেন, জাতীয় গোয়েন্দা এজেন্সি এনআইএ’র দেয়া তথ্য অনুসারে তারা ব্যবস্থা নিচ্ছেন। তার ভাষায়, সম্প্রতি এনআইএর এক বৈঠকে কর্তৃপক্ষ জম্মু ও কাশ্মীর ইস্যুতে আলোচনা করেছে। উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে বাংলাদেশ থেকে সন্ত্রাসী গ্রুপগুলোর ভারতে প্রবেশ নিয়ে। এনআইএ আমাদেরকে তথ্য দিয়েছে যে, বাংলাদেশী মুজাহিদরা সীমান্ত গলিয়ে কর্নাটকে প্রবেশ করছে বাংলাদেশী অভিবাসীদের সঙ্গে। তাদের গতিবিধি চিহ্নিত করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেছেন, তিনটি এলাকায় পুলিশি উপস্থিতি বাড়ানো হয়েছে। বলেছেন, বঙ্গোপসাগর ও আরব সাগর উপকূলে সন্ত্রাসী গ্রুপটির সদস্যদের তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। তাদের উপস্থিতি ব্যাঙ্গালোর ও মহিসুরে বেশি। এসব স্থানে তারা স্লিপার সেল গঠন করে অবস্থান করছে। আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আছে। তবে এখন তা শেয়ার করা যাবে না।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি এনআইএ’র বৈঠকে এর প্রধান দাবি করেন, বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষিত জামায়াতুল মুজাহিদিনের (জেএমবি) সদস্যরা ভারতে অনুপ্রবেশ করেছে। তারা সেখানে বিভিন্ন স্থানে তৎপরতা চালাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, এমন ১২৪ জন জঙ্গির বিষয়ে তাদের হাতে তথ্য রয়েছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলোকে এবং কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তথ্য শেয়ার করা হয়েছে।

আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর

টাইমস অব ইন্ডিয়ার রিপোর্ট

৪০ দিনের যুদ্ধের জন্য সামরিক সরঞ্জামের মজুদ গড়ছে ভারত

২৭ জানুয়ারি ২০২০





বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত



জেগে উঠেছে পুরনো প্রেম

পালিয়েছেন বরের পিতা ও কনের মা