স্বপ্ন পূরণের উল্লাসে খুলনা

বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১২

রাশিদুল ইসলাম, খুলনা থেকে: টেস্ট অভিষেক ঘিরে শিল্প ও বন্দরনগরী খুলনায় সাজসাজ রব। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোতে তোরণ নির্মাণ করা হয়েছে। নগরীর কয়েকটি স্থানে আলোকসজ্জা করা হয়েছে। রয়েল চত্বরে শোভা পাচ্ছে বাঘ, বানর ও কুমিরের প্রতিকৃতি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে অভিনন্দন জানিয়ে নগরীতে শোভাযাত্রা বের হয়েছে। স্বপ্ন পূরণের উল্লাসে মেতেছে খুলনাবাসী। ক্রিকেট প্রেমিকরা সারিবদ্ধ হয়ে সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক থেকে টিকিট সংগ্রহ করেছেন।
বর্ণাঢ্য র‌্যালি: বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের স্বাগত জানিয়ে গতকাল দুপুরে বাইকার্স ক্লাবের উদ্যোগে নগরীতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আবদুল খালেকের নেতৃত্বে বিশাল এ র‌্যালি খুলনাবাসীর মিলন মেলায় পরিণত হয়েছিল। দলমত নির্বিশেষে জনপ্রতিনিধি, ক্রীড়াবিদ, সংস্কৃতিকর্মী, স্কুল কলেজের ছাত্র-শিক্ষক, ব্যবসায়ী, শিল্পপতি সবাই আনন্দ উৎসাবে মেতে উঠেছিল। নানা রঙের ফেস্টুন পোস্টার, আবহমান গ্রামবাংলার চিত্র লাঙল জোয়াল, ধানের শীর্ষ, নৌকা এসব শোভা পেয়েছিল র‌্যালিতে। র‌্যালিটি নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করার সময় রাস্তার দুপাশে দাঁড়িয়ে হাজার হাজার নারী পুরুষকে করতালির মাধ্যমে উল্লাস প্রকাশ করতে দেখা যায়।
আয়োজকদের সূত্র জানিয়েছে, দেশের সপ্তম আন্তর্জাতিক টেস্ট ভেন্যু বিভাগীয় (শেখ আবু নাসের) স্টেডিয়াম সম্পূর্ণ প্রস্তুত। এ স্টেডিয়ামে প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক স্কোর বোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল নাইন, নিও ক্রিকেট, বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতার সরাসরি এ খেলাটি সমপ্রচার করবে। ওজোপাডিকো নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে বিরামহীন কাজ করছে। সন্ধ্যার পর থেকে শেষরাত পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন স্থানে নিয়নবাতি জ্বলছে। খেলোয়াড়দের নিরাপত্তার জন্য হোটেল সিটি ইনে সার্বক্ষণিক সশস্ত্র পাহারা বসানো হয়েছে। স্টেডিয়ামে ও আশপাশে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকবে। আজ থেকে ২৫শে নভেম্বর পর্যন্ত টেস্ট এবং ৩০শে নভেম্বর ও ২রা ডিসেম্বর ওয়ানডে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। টেস্টের টিকিটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে সাধারণ গ্যালারি ২০ টাকা, ক্লাব হাউজ ৭৫ টাকা এবং ভিআইপি ৫০০ টাকা।
খুলনা বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক সৈয়দ জাহিদ হোসেন বলেন, ‘এই স্টেডিয়ামটি ওয়ানডে ভেন্যুর মর্যাদা পায় ২০০৬ সালে। দীর্ঘ ছয় বছর পর টেস্ট ভেন্যুর স্বীকৃতি পেয়েছে। দীর্ঘদিন পর হলেও খুলনা অঞ্চলের ক্রীড়ামোদীদের প্রত্যাশা পূরণ হওয়ায় আমি আনন্দিত। ক্রীড়া সংগঠক আজমল আহমেদ তপন বলেন, ‘আগেই ওয়ানডে ভেন্যুর মর্যাদা পেয়েছিল। এখন টেস্ট ভেন্যুর মর্যাদা পেয়েছে বিভাগীয় (শেখ আবু নাসের) বিভাগীয় স্টেডিয়াম। এর চেয়ে আনন্দের আর কিছু হতে পারে না। এই স্টেডিয়ামকে নতুনভাবে চিনবে বিশ্ববাসী।’ বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোর্তজা রশিদী দারা বলেন, খুলনার মাঠে আইসিসি’র টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হচ্ছে, এটা খুলনাবাসী এবং এ অঞ্চলের অগণিত ক্রীড়ামোদীর জন্য গর্বের বিষয়।