আইসিসের পক্ষে বোমা হামলার স্বীকারোক্তি, আকায়েদের বিরুদ্ধে ৮ মামলা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:২২
নিউ ইয়র্কে সন্ত্রাসী হামলা পরিকল্পনার সঙ্গে আকায়েদ উল্লাহর (২৭) বিদেশ সফরের কোনো উল্লেখযোগ্য সম্পর্ক নেই। এমনটা মনে করছে যুক্তরাষ্ট্রের আইন প্রয়োগকারী ফেডারেল একটি সূত্র। উল্লেখ্য, এই হামলা চালানোর আগে সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশ সফর করেছে সে। ওদিকে জিজ্ঞাসাবাদে আইসিসের (আইএস) পক্ষে নিউ ইয়র্কে বোমা হামলার কথা স্বীকার করেছে আকায়েদ উল্লাহ (২৭)। এ ছাড়া নিজেই বোমা তৈরির কথা স্বীকার করেছে সে। বলেছে, আইসিসের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে সে এ কাজ করেছে।
যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল বা কেন্দ্রীয় পর্যায়ের অভিযোগে এসব বলা হয়েছে। সেই অভিযোগে বলা হয়েছে আকায়েদ জিজ্ঞাসাবাদকারীদের বলেছে ‘আই ডিড ইট ফর দ্য ইসলামিক স্টেট’। সোমবার সকালের কর্মব্যস্ত সময়ে নিউ ইয়র্কে একটি পাতালপথে বোমা হামলা চালায় সে। তার বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় সরকার ও রাজ্য সরকার সন্ত্রাসের অভিযোগে বেশ কয়েকটি মামলা করেছে। কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে সন্ত্রাস বিষয়ক ৫টি ও রাজ্য সরকার সন্ত্রাস বিষয়ক তিনটি মামলা করেছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন। এতে কেন্দ্রীয় বা ফেডারেল সরকারের মামলার উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, আকায়েদ উল্লাহ উগ্রপন্থি হয়ে ওঠা শুরু করে ২০১৪ সালে। কিভাবে বিস্ফোরক ডিভাইস তৈরি করা যায় তার অনুসন্ধান শুরু করে এক বছর আগে। হামলা চালানোর দু’সপ্তাহ আগে সে এ জন্য প্রয়োজনীয় সব উপাদান সংগ্রহ করা শুরু করে। তারপর এক সপ্তাহ আগে সে বাসায় বসে বানিয়ে ফেলে বোমা। এসব কথা বলা হয়েছে মামলায়। ওদিকে তদন্তকারীরা তার একটি পাসপোর্ট উদ্ধার করেছে। এই পাসপোর্টে হাতে লেখা রয়েছে ‘ও আমেরিকা তোমাদের ক্ষোভের আগুনে তোমরাই মরো’। ওদিকে তদন্তকারীদের সে বলেছে, এক মাস আগে অনলাইনে আইসিসপন্থিরা বড়দিনের হামলা চালানো বিষয়ে একটি প্রপাগান্ডা প্রচার করে। এতে টাইমস স্কয়ার ঢেকে দেয়া হয় সান্তা ক্লজের ছবি দিয়ে। সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে সিএনএন লিখেছে, আকায়েদ উল্লাহ মসজিদে গিয়ে নামাজ আদায় করতো না। তবে নামাজ আদায় করতো নিউ ইয়র্কের ব্রুকলিনে নিজের বাড়িতে। ওই সূত্রগুলো আরো বলেছে, আকায়েদ উল্লাহর পরিবারের বেশ কিছু সদস্য এ বিষয়ে তদন্তে কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করছে না। ওদিকে বাংলাদেশ পুলিশের একজন মুখপাত্র সাহেলি ফেরদৌস বলেছেন, বাংলাদেশে আকায়েদের নামে কোনো ক্রিমিনাল রেকর্ড নেই। তার জন্ম ঢাকায় এবং বড়ও হয়েছে এখানে। সর্বশেষ সে ঢাকা সফরে আসে সেপ্টেম্বরে। সিএনএন লিখেছে, তবে কেন সে বাংলাদেশে এসেছিল সে বিষয়ে পুলিশের কাছে কোনো তথ্য নেই। ওদিকে যুক্তরাষ্ট্রের আইন প্রয়োগকারী ফেডারেল সূত্র বলেছে, সোমবার নিউ ইয়র্কে সন্ত্রাসী হামলা পরিকল্পনার সঙ্গে আকায়েদ উল্লাহর বিদেশ সফর উল্লেখযোগ্য কিছু নয় বা সম্পর্কিত নয়। উল্লেখ্য, বোমা হামলা চালানোর আগে আকায়েদ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে তিরস্কার করে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেয় । তাতে সে লিখেছে, ‘ট্রাম্প আপনি আপনার জাতিকে রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছেন’।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন