৩ দিনের সফরে ফ্রান্স গেলেন প্রধানমন্ত্রী

শেষের পাতা

দীন ইসলাম, প্যারিস (ফ্রান্স) থেকে | ১২ ডিসেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:০৩
ফ্রান্সে ওয়ান প্লানেট সামিট-এ অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন দিনের সরকারি সফরে প্যারিস পৌঁছেছেন। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় প্রধানমন্ত্রীর চার্লস দ্যা গ্যালে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছালে ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত কাজী ইমতিয়াজ হোসেন প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানান। বিমানবন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রীকে মোটর শোভাযাত্রা সহকারে ইন্টারন্যাশনাল প্যারিস লি গ্রাভ (অপেরা)-এ নিয়ে যাওয়া হয়। সফরকালে তিনি এ হোটেলে অবস্থান করবেন।
আজ মঙ্গলবার ফরাসি রাজধানীর পশ্চিম উপকণ্ঠের লা সেনগুইন দ্বীপে অবস্থিত মিউজিক অ্যান্ড পারফর্মিং আর্ট সেন্টার ‘লা সেইন মিউজিক্যাল’-এ এই শীর্ষ সম্মেলন শুরু হবে। জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার অভিন্ন লক্ষ্য ত্বরান্বিত করার জন্য বিভিন্ন এনজিও, ফাউন্ডেশন, সরকারি ও বেসরকারি সেক্টরের দুই হাজার প্রতিনিধিসহ একশ’রও বেশি দেশের নেতারা এই সম্মেলনে অংশ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।
বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী মঙ্গলবার সন্ধ্যায় লা সেইন মিউজিক্যালে ওয়ান প্লানেট সামিটের উচ্চপর্যায়ের এক বৈঠকে অংশ নেবেন। শীর্ষ সম্মেলন থেকে ফিরে প্রধানমন্ত্রী তার আবাসস্থলে এক কমিউনিটি অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী  ফরাসী প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এলিসি প্যালেসে এক দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে মিলিত হবেন। রাষ্ট্রপ্রধান ও সরকার প্রধানদের জন্য ফরাসী প্রেসিডেন্টের আমন্ত্রণে তিনি এলিসি প্যালেসে মধ্যাহ্নভোজেও অংশ নেবেন। প্যারিস যাওয়ার পথে প্রধানমন্ত্রী দেড় ঘণ্টারও বেশি ইউএইর রাজধানীতে যাত্রাবিরতি করেন। প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী আমিরাতের ফ্লাইটটি স্থানীয় সময় ২টা ৫৫ মিনিটে দুবাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে।
ইউএইতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান।
এর আগে গতকাল সকাল ১০টা ২০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীরা প্যারিসের উদ্দেশে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। জাতীয় সংসদের উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, তিন বাহিনীর প্রধানগণ, কূটনৈতিক কোরের ডিন এবং ঊর্ধ্বতন বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তাগণ প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানাতে বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর ফ্রান্স সফরকে কেন্দ্র করে দেশটিতে বসবাসরত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। তারা প্রধানমন্ত্রীকে বড় আকারে সংবর্ধনা দেয়ার প্রস্তুতি নিয়েছেন। এতে বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতারা উপস্থিত থাকবেন। এদিকে ফ্রান্স আওয়ামী লীগ বর্তমানে কয়েকটি ধারায় বিভক্ত। তাই ফ্রান্স দূতাবাসে কর্মরত রাষ্ট্রদূতের মধ্যস্থতায় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন গ্রুপ থেকে একজন করে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করে দিয়েছে। এ কমিটি নাগরিক সংবর্ধনা বাস্তবায়নে কাজ করছে। নাগরিক সংবর্ধনায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপ থেকে ১৫০ জন করে উপস্থিত থাকবেন। এদিকে বিএনপির পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে প্রতিবাদ কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হয়েছে। বিএনপির সব ধরনের কর্মসূচির সমন্বয় করছেন দলটির কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাহিদুর রহমান।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন