ঢাকা-রংপুর ফাইনাল আজ

শেষের পাতা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১২ ডিসেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৫২
টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি হাঁকালেন জনসন চার্লস, ক্যারিয়ারে আরো একবার বিস্ফোরক ব্যাটিং দেখালেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। আর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের বিপক্ষে ৩৬ রানের জয় নিয়ে ফাইনালে পৌঁছে রংপুর রাইডার্স। আজ শিরোপার লড়াইয়ে ঢাকা ডায়নামাইটসের মুখোমুখি হবে তারা। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে গতকাল কুমিল্লাকে ১৯৩ রানের টার্গেট দেয় রংপুর রাইডার্স। জবাবে ১৫৬ রানে গুঁড়িয়ে যায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের ইনিংস। ইংলিশ ব্যাটসম্যান জস বাটলার ২৬ ও ক্যারিবীয় তারকা মারলন স্যামুয়েলস করেন ২৭ রান।
আজ মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে ফাইনাল শুরু সন্ধ্যা ৬টায়।
বড় টার্গেটে ব্যাট হাতে দলকে উড়ন্ত সূচনাই এনে দেন তামিম ইকবাল ও লিটন কুমার দাস। দলীয় ৫৪ রানে প্রথম উইকেট খোয়ায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। ৪.৫তম ওভারে রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার ডেলিভারিতে ব্যক্তিগত ৩৬ রানে সোহাগ গাজীর হাতে ক্যাচ দেন তামিম। ১৯ বলের ইনিংসে ৬টি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের এ ওপেনার। পরের ওভারেই বল হাতে আঘাত হানেন সোহাগ গাজী। ব্যক্তিগত শূন্য রানে সোহাগ গাজীর ডেলিভারিতে স্টাম্পিং হয়ে যান ইমরুল কায়েস। এতে ৫.৪তম ওভার শেষে কুমিল্লার সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫৬/২-এ। বড় ইনিংস খেলতে পারেননি শোয়েব মালিকও। ৯.২তম ওভারে রংপুরের স্বদেশি স্পিনার নাজমুল হোসেন অপুর ডেলিভারিতে রুবেল হোসেনের হাতে ক্যাচ দেন এ পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান। ব্যাট হাতে প্রতিশ্রুতি দেখাচ্ছিলেন লিটন দাস। কিন্তু ব্যক্তিগত ৩৯ রানে লঙ্কান পেসার ইসুরু উদানার ডেলিভারিতে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের এ ওপেনার। এতে ১২.১তম ওভার শেষে কুমিল্লার সংগ্রহ দাঁড়ায় ৯৬/৪-এ। ২৮  বলের ইনিংসে লিটন হাঁকান তিনটি চার ও দুটি ছক্কা।   
ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসে ৬৩ বলে ১০৫ রান করেন রংপুর রাইডার্সের  ক্যারিবীয় ওপেনার জনসন চার্লস। এতে চার্লস হাঁকান ৯টি বাউন্ডারি ও ৭টি ছক্কা। চলতি আসরে এটি দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। আগেরটি আসে রংপুর রাইডার্সের অপর ক্যারিবীয় ওপেনার ক্রিস গেইলের ব্যাট থেকে। চলতি আসরে জুটিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়লেন চার্লস-ম্যাককালাম। দ্বিতীয় উইকেটে ১৫১ রানের জুটি গড়েন তারা। চলতি আসরে জুুটিতে ১৫০ রানের প্রথম ঘটনা এটি। আর পাঁচবারের বিপিএল ইতিহাসে এটি জুটিতে তৃতীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। আগের রেকর্ডে
২০১৩’র আসরে রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে অবিচ্ছিন্ন ১৯৭ রানের জুটি গড়েন খুলনা রয়েল বেঙ্গলসের কিউই তারকা লো ভিনসেন্ট ও স্বদেশি ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফীস। আসরে ১৫০ রানের ঘটনা রয়েছে আর একটি মাত্র। ২০১২তে সিলেট রয়্যালসের বিপক্ষে বরিশাল বুলসের ব্যাট হাতে অবিচ্ছিন্ন ১৬৭ রানের জুটি গড়েন আহমেদ শেহজাদ ও ক্রিস গেইল। এবারের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে আগের দিন ৪৬ রানে অপরাজিত ছিলেন জনসন চার্লস। ১১৪ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে চার্লসের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংসটি ছিল ৯৪* রানের। কোয়ালিফায়ার ম্যাচে আগের দিন ৬ বল মোকাবিলায় ৪ রানে অপরাজিত ছিলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। আর গতকাল ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন রংপুর রাইডার্সের এ কিউই তারকা। ৩৩ বলে অর্ধশতক পূর্ণ করেন ম্যাককালাম। আর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের পাকিস্তানি পেসার  হাসান আলীর বলে বোল্ড হওয়ার আগে ৪৬ বলে ৭৮ রান করেন তিনি। এতে ম্যাককালাম  হাঁকান একটি চার ও ৯টি ছক্কা।  চলতি আসরে ম্যাককালামের এটি প্রথম অর্ধশতক। আসরে তার সর্বোচ্চ ইনিংসটি ছিল ৪৩ রানের। আগের দিন দলীয় ২৭ রানে প্রথম উইকেট খোয়ায় রংপুর রাইডার্স। ১০ বল মোকাবিলায় ব্যক্তিগত ৩ রানে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার ক্রিস গেইল। তবে দ্বিতীয় উইকেটে শতরানের জুটি গড়েন চার্লস-ম্যাককালাম।
আসরের এলিমিনেটর ম্যাচে খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে ১৪৬* রানের জুটি গড়েন গেইল-মোহাম্মদ মিথুন। এতে ৫১ বলে হার না মানা ১২৬ রানের ম্যাচজয়ী ইনিংস খেলেন ক্রিস গেইল। যা বিপিএল ইতিহাসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডও। ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচটি আগের দিন ৭ ওভার শেষে বৃষ্টির কারণে বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় রংপুর রাইডার্সের সংগ্রহ ছিল ৫৫/১।
প্রতিপক্ষ নিয়ে ভাবনা নেই ঢাকার
স্পোর্টস রিপোর্টার: প্রথম কোয়ালিফায়ারে জিতে আসরের ফাইনাল নিশ্চিত করে শিরোপাধারী ঢাকা ডায়নামাইটস। তবে গতকাল যখন প্রস্তুতি নিতে মাঠে আসে তখনো তারা জানে না  ফাইনালে কে হবে তাদের প্রতিপক্ষ। রংপুর রাইডার্স নাকি কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স? তবে ঢাকা ডায়নামাইটসের প্রধান কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন, ‘হ্যাঁ, প্রতিপক্ষ দুইটাই পরিচিত। যে আসুক দুইটাই শক্ত দল, এই মুহূর্তে দুই দলই ভালো খেলছে।  যে ভালো খেলবে সেই আশা করি জিতবে। আমরা যে কাউকেই আসলে আশা করি। ব্যাপারটা এমন না যে দুই দলের সঙ্গে দুই রকম ক্রিকেট খেলতে হয়। আমরা  যে কারও সঙ্গে  খেলতে  পেরে খুশি।’
সুজন বলেন, ‘ঢাকা যখন দল বানায় কাগজে কলমে  সেরা ছিল। মাঠে আমরা এই মুহূর্তে  সেরা,  যেহেতু আগে ফাইনালে উঠেছি।  তো দলটা বানানো হয়েছিল চ্যাম্পিয়নশিপ ধরে রাখার জন্য। আমাদের দলের মধ্যে সেই বারুদও আছে। টি-টোয়েন্টিতে স্পেশালিস্টদের কথা যদি বলি  পোলার্ড, নারাইন, লুইস, আফ্রিদি, সাকিব অনেকে আছে ম্যাচ উইনার। সবাই তাদের প্রমাণ  রেখেছে। আমাদের খারাপ দিনে সাকিব দারুণ করেছে, রংপুরের সঙ্গে ব্যাট-বল দুই জায়গাতেই দারুণ ছিল। আমি বিশ্বাস করি, আমরা ক্যাপাবল ফাইনাল  জেতার, আমরা এটা ডিজার্ভও করি।’

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন