ভারি তুষারপাতে অচল বৃটেন

দেশ বিদেশ

মানবজমিন ডেস্ক | ১২ ডিসেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার
রাতারাতি তাপমাত্রা মাইনাস ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে এসে বৃটেনে চলতি তুষারপাত তুষারপাত ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে। বৃটেনবাসীর জন্য সোমবার দিন পরিণত হয়েছে ‘কালো সোমবার’। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দেশের বেশিরভাগ অংশই অচল হয়ে পড়েছে। বন্ধ ছিল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বাতিল করে দেয়া হয়েছে অনেক ফ্লাইট, বাতিল করে দেয়া হয়েছে পূর্ব নির্ধারিত বহু অনুষ্ঠান, বহু জায়গায় বন্ধ হয়েছিল গাড়ি চলাচল, এমনকি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ট্রেন চলাচলও। সোমবার দেশজুড়ে বন্ধ ছিল কমপক্ষে ২ হাজার ৩০০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। বিদ্যুৎহীন অবস্থায় দিন পার করেছে কমপক্ষে ৪ হাজার ৫০০ বাড়ি।
বেশ কয়েকটি গাড়ি দুর্ঘটনার পর অনেক জায়গায় বন্ধ হয়ে গেছে গাড়ি চলাচল। ফ্লাইট পিছিয়ে দেয়া বা বাতিল করার কারণে  হিথ্রো, ব্রিমিংহাম, স্ট্যানস্টেড ও লুটন বিমানবন্দরে রাত পার করতে হয়েছে হাজার হাজার যাত্রীকে। যুক্তরাজ্যে ৩০ হাজার  ও ইউরোপে ২০ হাজার মিলে বৃটিশ এয়ারওয়েসের প্রায় ৫০ হাজার যাত্রী নানা জায়গায় আটকা পড়ে আছে। রেল সেবা প্রদানকারী সংস্থা ন্যাশনাল রেল জানিয়েছে, আবহাওয়ার দুরাবস্থার কারণে ভ্রমণ বিঘ্নিত হচ্ছে। এছাড়া, চিল্ট্রেন রেইলওয়েস, ক্রস কান্ট্রি, গ্রেট ওয়েস্টার্ন ও ভার্জিন ট্রেইনস- সবগুলো রেল পরিবহন সেবা প্রদানকারী সংস্থাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সব মিলিয়ে স্থবির অবস্থায় রয়েছে বৃটেন। এ খবর দিয়েছে ডেইলি মেইল। খবরে বলা হয়, আবহাওয়ার দুরাবস্থার কারণে হিথ্রোতে বাতিল করে দেয়া হয়েছে কয়েক ডজন ফ্লাইট। একইভাবে এডিনবার্গে বাতিল করে দেয়া হয়েছে ৭টি, ম্যানচেস্টারে ১৩টি। ওয়েলসের রাজধানী কার্ডিফে অবস্থানরত এক যাত্রী বলেছেন, সেখানে কোনো ব্যাগ নেই, সচল যোগাযোগ ব্যবস্থা নেই, এমনকি ভেন্ডিং মেশিনগুলোও ভাঙা- যার দরুন কোনো খাবারও নেই। সাবেক ইংলিশ ফুটবলার মাইকেল ওয়েন তার বেন্টলি কার একটি গাছের নিচে রেখেছিলেন। তবে তুষারের ভারে সে গাছের ডাল ভেঙে তার গাড়ির ওপর পড়লে ক্ষতিগ্রস্ত হয় তার গাড়ি। সাবেক এই ফুটবলার এক টুইটে সে বিষয়ে বলেন, ভোর ৫:৩০ মিনিটে ট্রেন ধরতে যাওয়া কোনো আদর্শ কাজ নয়। এদিকে, ওয়েলসে বন্ধ হয়ে গেছে প্রায় ৫০০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। একইভাবে গ্লৌচেস্টারশায়ারে ২৫০, অক্সফোর্ডশায়ারে ১৮২, নর্দাম্পটনশায়ারে ২০০, স্ট্যাফোর্ডশায়ারে ৩০০, স্রপশায়ারে ২০০, ব্রিমিংহামে ৪০০, বাকিংহামশায়ারে ২৪৩ ও এসেক্সে ৩০টি স্কুল বন্ধ ছিল। ইংল্যান্ডে এই সপ্তাহের শুরুতেই বন্ধ করে দেয়া হয়েছে আরো কয়েকশ’ স্কুল। আসন্ন দিনগুলোতে অবস্থা আরো বেগতিক হবে বলে সতর্কবার্তা দেয়া হয়েছে।
 আজ (স্থানীয় সময় সোমবার) রাতে তাপমাত্রা কমে মাইনাস ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছাতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এমনটা হলে এটা হবে বৃটেনবাসীরা এই বছরের সবচেয়ে ঠাণ্ডা রাত পার করতে চলেছেন। এর আগে বৃটেনে সবচেয়ে কম তাপমাত্রা বিরাজ করেছে স্কটিশ হাইল্যান্ডসে- শনিবার রাতে সেখানকার তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ১২.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রোববার মধ্য ওয়েলসের সেনিব্রিজে এক ফুটেরও বেশি পরিমাণ তুষারপাত ঘটেছে। ইংল্যান্ডের চেশায়ার কাউন্টির পুলিশরা রোববার রাতে দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া একটি বিএমডব্লিউ ৩ সিরিজের একটি গাড়ির ছবি দিয়ে পোস্টার বানিয়ে সাবধানে গাড়ি চালানোর আহ্বান জানিয়েছে।
        

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন