কে হবেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ৮ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার
দেখতে দেখতে শেষ হতে চলেছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) পঞ্চম আসর। প্রথম রাউন্ডের খেলা শেষ করে আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্লে অফ রাউন্ড। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ চার দল অংশ নেবে এ রাউন্ডে। এরপরই ফাইনাল। এ টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত ব্যাট হাতে সবচেয়ে সফল বিদেশি খেলোয়াড়রা। সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকার শীর্ষ ৫ জনের চারজনই বিদেশি।
এ তালিকায় সবার ওপরে আছেন রংপুর রাইডার্সের ব্যাটসম্যান রবি বোপারা। ১২ ম্যাচে রান করেছেন ৩৬৫। তার সামনে আরো তিনটি ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা আছে। খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে এলিমিনেটর ম্যাচে যদি তারা জয় পায় তবে কোয়ালিফায়ার-১ ম্যাচের পরাজিত দলের সঙ্গে তাদের খেলা পড়বে। সে ম্যাচ জিতে গেলে তারা ফাইনাল খেলবে। সে হিসাবে বোপারার সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হবার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। বোপারা থেকে ৩১ রানে পিছিয়ে দুইয়ে আছেন ঢাকা ডায়নামাইটসের ওপেনার এভিন লুইস। ১০ ম্যাচ খেলে রান করেছেন ৩৩৪। বোপারার থেকে দু’ম্যাচ কম খেলেও তার পিছু পিছু হাঁটছেন। তারও ৩ ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা আছে। বোপারা যদি দু’এক ম্যাচ বাজে খেলে আর লুইস যদি বিধ্বংসী ইনিংস খেলতে পারে তবে বোপারাকে ছাড়িয়ে তার শীর্ষে যাওয়া সম্ভব। ইতিমধ্যে তিনি ৩টি ফিফটি করে ফেলেছেন। বোপারাকে ছাড়িয়ে যেতে লুইসের একটি বিস্ফোরক ইনিংসই যথেষ্ট।
লুইসের পরেই আছেন চিটাগং ভাইকিংসের ব্যাটসম্যান লুক রনকি। ১১ ম্যাচে রান করেছেন ৩২১টি। তার দল বাদ পড়ায় রনকির কোনো সুযোগ নেই। এরপরেই আছেন সিলেট সিক্সার্সের অলরাউন্ডার অ্যান্ড্রে ফ্লেচার। ১০ ম্যাচে করেছেন ৩১৭ রান। তার দল বাদ পড়ায় তার সামনেও কোনো সুযোগ নেই। এ তালিকার পাঁচ নম্বরে আছেন রংপুরের উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ মিঠুন। বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে তিনিই সবার উপরে। এখন পর্যন্ত ১২ ম্যাচে করেছেন ২৯৯ রান। তার সামনেও সর্বোচ্চ তিনটি ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা আছে। তার পক্ষেও সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়া সম্ভব। কেননা বোপারা বা লুইস যদি দু’এক ম্যাচে বাজে খেলে ফেলে আর মিঠুন যদি ৫০, ৬০ বা তার বেশি রান করে ফেলেন তবে তিনি শীর্ষে উঠে যাবেন।
মিঠুনের পর ২য় বাংলাদেশি হিসেবে এ তালিকায় আছেন খুলনা টাইটান্সের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ১১ ম্যাচে তিনি করেছেন ২৯২ রান। এরমধ্যে ২টি ফিফটিও আছে। তিনি দুর্দান্ত ফর্মেও আছেন। তার পক্ষেও সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়া সম্ভব। তিনটি ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা আছে তারও। যদি তিনি ৩ ম্যাচ খেলার সুযোগ পান আর সেটা কাজে লাগান তবে তারপক্ষেও সেরা হওয়া সম্ভব।
এরপরই আছেন কুমিল্লার ব্যাটসম্যান ইমরুল কায়েস। এখন পর্যন্ত ১২ ম্যাচে করেছেন ২৯০ রান। তিনি অবশ্য কোন ফিফটি পাননি। তারপক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হওয়া কষ্টকর। এরপরই আছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ব্যাটসম্যান মারলন স্যামুয়েলস। সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের দৌড়ে তিনি কেনই বা পিছিয়ে থাকবেন। এখন পর্যন্ত তিনি করেছেন ২৮৮ রান। অর্থাৎ বোপারার থেকে ৭৭ রানে পিছিয়ে আছেন। তবুও বলা তো যায় না কখন কে কেমন ইনিংস খেলে ফেলবে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন