‘তোমাদের দেশে বার বার আসতে মন চায়’

দেশ বিদেশ

বিশেষ প্রতিনিধি | ৮ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার
বিশ্বে ক্যাথলিক খ্রিস্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস বললেন, তোমরা খুব অতিথিপরায়ণ। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছো। তোমাদের দেশে বার বার আসতে মন চায়। খুব মনে থাকবে তোমাদের কথা। গত ২রা ডিসেম্বর তিনদিনের বাংলাদেশ সফর শেষে রোম ফিরে যাওয়ার সময় বিমানের দুই শীর্ষ কর্মকর্তার কাছে এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানান পোপ ফ্রান্সিস। বিমানের খাবার, আতিথেয়তার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন পোপ ফ্রান্সিস।
এ কথা জানিয়ে বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ মানবজমিনকে বলেন, পোপের চার্টার্ড বিমানে দায়িত্ব পালনকারী কেবিন ক্রুদের দোয়া করে দেন পোপ। বিমানের সার্ভিসে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী সংস্থাটির সফলতা কামনা করেছেন। বিমান সূত্রে জানা গেছে, পোপের সঙ্গে তার সফরসঙ্গী হিসেবে ৬৮ জন সাংবাদিক রোম যান। বিমানের ওই ফ্লাইটেই সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। এজন্য বিশেষভাবে সাউন্ড সিস্টেম স্থাপন করা হয়। রয়টার্স ও আল জাজিরাসহ নামি সংবাদ মাধ্যমগুলো ঘুরিয়ে ফিরিয়ে মিয়ানমারে ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি না বলার কারণ জানতে চান। এ সময় পোপ রোহিঙ্গা শব্দটি না বলার ব্যাখ্যা দেন। পোপ বলেন, আলোচনার পথ বন্ধ না করেই মিয়ানমারের সামরিক ও বেসামরিক উভয় নেতৃত্বের কাছেই নিজের বার্তাটি তুলে ধরতে পেরেছি। তিনি বলেন, আমি যদি বক্তৃতায় ওই শব্দটি ব্যবহার করতাম, তারা হয়তো আমাদের মুখের ওপরই আলোচনার পথ বন্ধ করে দিতো। কিন্তুআমি পরিস্থিতিটা ও অধিকারের বিষয়গুলো তুলে ধরেছি। বলেছি, কাউকেই নাগরিকত্বের অধিকার থেকে বাদ দেয়া উচিত হবে না। বিমান সূত্রে জানা গেছে, শনিবারের চার্টার্ড বিমানে পোপের সঙ্গে রোম যান বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এ এম মোসাদ্দিক আহমেদ এবং মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ।
বিমানের এ দুই শীর্ষ কর্মকর্তা একান্তে পোপের সঙ্গে কিছু সময় কথা বলেন। তাদের আলাপেই বিভিন্ন তথ্য উঠে আসে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন