দুর্নীতি থাকলে দরিদ্রতা দূর করা যায় না: গওহর রিজভী

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ৮ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার
প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. গওহর রিজভী বলেছেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর প্রধান লক্ষ্যই হচ্ছে দারিদ্র্য দূরীকরণ। যে দেশে দুর্নীতি থাকে সে দেশ থেকে দরিদ্রতা দূর করা যায় না। একটার সঙ্গে অন্যটি ওতপ্রোতভাবে জড়িত। একটা সরকারের একাধিক বিভাগ থাকে। আমরা সরকারকে এককভাবে দোষারোপ করতে পারি না। সরকারের অথরিটি কোনো দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে নেই। গতকাল রাজধানীর ধানমন্ডিতে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআইবি) বাংলাদেশ ‘দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বিষয়ক সংলাপ ও অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার ২০১৭ বিতরণ’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুসন্ধানী সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে গহওর রিজভী বলেন, সরকারের নির্দিষ্ট যে বিভাগে সমস্যা হয় তা আলাদাভাবে তুলে ধরতে হবে। আমাদের সাংবাদিকরা অসম্ভব সাহসের কাজ করে যাচ্ছে। তাদের ভূমিকা যদি সরকারের কিছু লোক না বুঝে তা তাদের দুর্বলতা। এটা সমাজ এবং সরকার উভয়কে বুঝতে হবে। অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা একটি কৌশল ও প্রশিক্ষণ। প্রতিবন্ধকতা থাকার পরেও সাংবাদিকরা সাহসী প্রতিবেদন তৈরি করেন। এর আগে দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা বিষয়ে বাংলাদেশে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনার ওপর সংলাপ ও মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতির বক্তব্যে সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং টিআইবি’র ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ড. এটিএম শামসুল হুদা বলেন, রাজনীতির একটি সমস্যা হচ্ছে নেতাদের স্বল্প মেয়াদে উন্নয়ন করতে হয়। সমাজে স্বল্প মেয়াদে কোনো উন্নয়ন হয় না। আমাদের চিন্তা করতে হবে দীর্ঘমেয়াদি উন্নয়নের। অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা দ্বারা সরকার, দেশ ও সমাজ উপকৃত হয়। তারা প্রতিবন্ধকতা নয় বরং সহযোগী। মুক্ত আলোচনার পর টিআইবি’র অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কার-২০১৭ এর বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান করা হয়। প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার পাঁচজন সাংবাদিক ও চার জন ভিডিও চিত্রগ্রাহকসহ মোট নয় জন সাংবাদিক এ বছর টিআইবি’র অনুসন্ধানীমূলক সাংবাদিকতা পুরস্কার লাভ করেন। প্রিন্ট মিডিয়া (জাতীয়) বিভাগে পুরস্কার অর্জন করেছেন দৈনিক প্রথম আলো’র স্টাফ রিপোর্টার অরূপ রায়। প্রিন্ট মিডিয়া (আঞ্চলিক) বিভাগে বিজয়ী হয়েছেন খুলনার দৈনিক পূর্বাঞ্চল পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার এইচ এম আলাউদ্দিন। ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া (প্রতিবেদন) বিভাগে পুরস্কার বিজয়ী মাছরাঙা টেলিভিশনের বিশেষ প্রতিনিধি বদরুদ্দোজা বাবু। প্রতিবেদনের ভিডিওচিত্র ধারণে বিশেষ ভূমিকার জন্য মাছরাঙা টেলিভিশনের সিনিয়র ভিডিও চিত্রগ্রাহক মেহেদী হাসান সোহাগকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। অন্যদিকে ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া (প্রামাণ্য অনুষ্ঠান) বিভাগে যৌথভাবে বিজয়ী হয়েছেন ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের স্টাফ করেসপনডেন্ট সবুজ মাহমুদ এবং চ্যানেল টোয়েন্টিফোর-এর স্টাফ রিপোর্টার মো. জাহিদ মামর ইসলাম সাদ। পুরস্কারজয়ী প্রামাণ্য অনুষ্ঠান দু’টি তৈরিতে ভিডিওচিত্র ধারণে বিশেষ ভূমিকার জন্য ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের রাকিবুল হাসান ও গোলাম কিবরিয়া এবং যমুনা টেলিভিশনের তানভীর মিজানকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। পুরস্কার বিজয়ী প্রত্যেক সাংবাদিককে এক লাখ টাকার চেক, ক্রেস্ট ও সনদ এবং প্রত্যেক ভিডিও চিত্রগ্রাহককে পঞ্চাশ হাজার টাকার চেক, ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রফেসর ড. গওহর রিজভী বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন টিআইবির ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য এম হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, টিআইবির উপদেষ্টা অধ্যাপক সুমাইয়া খায়ের, সাংবাদিক গোলাম মর্তুজা।


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাবিধির গেজেট প্রকাশ

রাজধানীতে গলাকাটা লাশ উদ্ধার

অতিরিক্ত সচিব হলেন ১২৮ জন

ভুয়া ডাক্তারকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ

মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে ৫০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা

হবিগঞ্জে ৫ জেএমবি সদস্য গ্রেপ্তার

ইসরাইল একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র- এরদোগান

বুধবার সারাদেশে বিএনপির প্রতিবাদ কর্মসূচি

বিদ্যুৎ গ্রিডের ট্রান্সফরমারে আগুন, তিন ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে

জেরুজালেম ইসরাইলেরই রাজধানী- নেতানিয়াহু

নির্বাচনে নিষিদ্ধ ভেনিজুয়েলার বিরোধী দল

ভারী তুষারপাতে বিপর্যয়ের আশঙ্কা বৃটেনে

সুদের ৮ হাজার টাকার জন্য যুবককে পিটিয়ে হত্যা, মামলা দায়ের

রাজকীয় দুই পুরস্কার ফেরত দিলেন মাহাথির মোহাম্মদ

এবি ব্যাংক চেয়ারম্যানসহ ৪ জনকে দুদকে তলব

আড়াইহাজারের এমপির সঙ্গে মাওলানা হাবিবুরের বাগবিতণ্ডার ভিডিও ভাইরাল