শীতবস্ত্রে ভরপুর মার্কেট জমেনি বেচাকেনা

এক্সক্লুসিভ

হাফিজ মুহাম্মদ | ৮ ডিসেম্বর ২০১৭, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:০৫
চলছে হেমন্তের শেষ লগ্ন। ইতিমধ্যে শীত পড়তে শুরু করেছে গ্রামাঞ্চলে। তবে রাজধানী ঢাকায় শীত আসি করেও এখনো আসেনি। পড়ন্ত বিকেলে শীতের আমেজ কিছুটা অনুভব করা গেলেও তার তীব্রতা নেই। অন্যদিকে কুয়াশাচ্ছন্ন সকাল বলে দেয় এখন শীতকাল। তবে দুপুরে রোদের তাপ ঘার্মাক্ত করে এখনো।
বাস্তবে রাজধানীতে ততটা শীত নামেনি। প্রতিবছর ডিসেম্বরে শীত এলেও এবছর এখনো তার দেখা মেলেনি। শীতকালকে সামনে রেখে রাজধানীর বাজারগুলো সেজেছে রঙ-বেরঙের পোশাকে। বিক্রেতারা নানা কারুকার্যের পোশাকের পসরা বসিয়েছেন দোকানে দোকানে। এসব পোশাক শুধু শীতের প্রকোপ থেকে বাঁচার জন্য নয়, নানা ফ্যাশনের অনুসঙ্গও থাকে। পিছিয়ে নেই ফুটপাথের দোকানগুলোও। শীত উপলক্ষে তারাও প্রতিদিন নিয়ে এসেছে নতুন নতুন পোশাক। তারা মূলত নিম্ন এবং নিম্ন মধ্যবিত্তদের লক্ষ্য রেখেই এসব পোশাক আনেন। বাজারে হরেক রকম শীতের পোশাকে ভরপুর থাকলেও ক্রেতা সমাগাম কম। বিক্রেতারা বলেছেন রাজধানীতে শীতের প্রকোপের উপর নির্ভর করে শীতের পোশাক বেচাকেনা। অন্যদিকে ক্রেতারা বলছেন তারা শীতের উপর নির্ভর করেই পোশাক কেনেন। রাজধানীতে শীতের সময়কাল খুব দীর্ঘ হয় না। শীত আসে, চলে যায় দ্রুত। তাই আগে থেকে পোশাক কিনে রাখতে চান না নগরবাসী। গতকাল রাজধানীর বসুন্ধরা শপিংমল, নিউমার্কেট, মিরপুর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তবাংলা, ভিটিসিভি ও শাহ্‌ আলী মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে নকশা সমৃদ্ধ শীতবস্ত্রে সাঁজানো বিপণী বিতানগুলো। এসব দোকানে ক্রেতা এলেও বেশির ভাগই না কিনে চলে যায়। অনেকেই শীতের কালেকশন দেখতে আসেন। কেউ কেউ শীতবস্ত্র কিনলেও তাদের সংখ্যা কম। রাজধানীর মিরপুরের গ্রামীণ ইউনিক্লো শো-রুমের ম্যানেজার মো. আবু সুফিয়ান বলেন, এবছর শীতকে কেন্দ্র করে আমরা দুইটি প্যাটার্নে শীতবস্ত্রের কালেকশন করেছি। ছেলে-মেয়েদের জন্য ভিন্ন এবং বৈচিত্র্যে এসব পোশক গুলো অন্যদের থেকে একটু ব্যতিক্রম। ছেলেদের জন্য আমাদের যেসব পোশাক রয়েছে তা হল, রিভার্সেবল হুডি, জিপ প্যাক হুডি, বোম্বার জ্যাকেট, ক্যাজুয়াল ব্লেজার, ফিনাল প্রিন্টেড শার্ট এবং শীত বেইজড জিন্স। অন্যদিকে আর মেয়েদের জন্য রয়েছে ভি-নে কার্ডিগেন, স্টোল কার্ডিগেন, উইমেন্স কার্ডিগেন, এম্ব্রয়ডারি ব্লাউজ। এ ম্যানেজার আরও জানান, তাদের পোশাকের বৈচিত্র্যের তুলনায় দাম খুব বেশি নয়। সব শ্রেণির ক্রেতার টার্গেট রেখেই মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। কোনো পোশাকই ক্রেতাদের সাধ্যের বাইরে নয়। ইজি শো-রুমের ম্যানেজার মো. ইমরান হোসেন বলেন, ইজি বরাবরই নতুন নতুন কালেকশন এনে ক্রেতাদের সারপ্রাইজ দিয়ে থাকে। এ বছরও তার ব্যতিক্রম নয়। আমাদের শীতবস্ত্রের মধ্যে রয়েছে দেশি এবং বিদেশি ক্যাজুয়াল ব্লেজার, একাধিক ডিজাইনের হুডি, ফরেইন জ্যাকেট। শীত না পড়লেও আমাদের বিক্রি মোটামুটি ভালো। তবে শীত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিক্রি বাড়বে বলে আমরা আশাবাদী। বড় বড় শপিংমলগুলো না জমলেও ফুটপাথের দোকানগুলোয় বিক্রি জমজমাট। মিরপুরের মাজার রোডে ‘সাকিবস-৭৫’ রেস্টুরেন্টের সামনে ফুটপাথ ধরেই শতাধিক শীতবস্ত্রের দোকান বসে প্রতিদিন। চলে বিকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত। এখানের বিক্রেতা যোবায়ের হোসেন বলেন, আমাদের বিক্রি ভালো। তবে শীত পড়লে বেচাকেনা দ্বিগুণ হয়ে যায়। দাম বেড়ে যায় পোশাকেরও। যেখান থেকে পোশাক কিনতে হয় সেখানেও দাম থাকে চড়া। বাবুল নামে অন্য এক বিক্রেতা বলেন, আমি একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করি। বিকালে ফ্রি সময়ে এখানে শীতবস্ত্র বিক্রি করে যা আয় হয় তা দিয়ে চলতে হয়। শীতের আমেজ শুরু হলেও ক্রেতা কম। মহিববুল্লাহ নামে এক ক্রেতা বলেন, রাতে দিকে শীত পড়ে তাই তিনি একটি সোয়েটার এবং গেঞ্জি কিনেছেন। ফুটপাথ থেকে কেনার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ব্র্যান্ডের দোকানগুলোয় পোশাকের দাম তার সাধ্যের বাইরে। এজন্য ফুটপাথের দোকানই তার ভরসা। আগে আগে শীতের পোশাক কিনে রাখছেন যাতে করে পরে বেশি দামে না কিনতে হয়। শাহনাজ নামে এক ক্রেতা বলেন, তিনি বিভিন্ন শো-রুমে শীতের কালেকশন দেখছেন। পছন্দ হলে দুই থেকে তিনটি শীতবস্ত্র কেনার ইচ্ছা আছে তার। তবে ক্রেতা-বিক্রেতা সবারই একই কথা শীত বাড়লেই বাড়বে শীতবস্ত্রের বিক্রি। জমে উঠবে রাজধানীর মার্কেটগুলো। শীতবস্ত্রের বিক্রি নির্ভর করে সম্পূর্ণভাবেই শীতের প্রকোপের উপর।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে জাতিসংঘ মহাসচিবের ৫ প্রস্তাব

বাংলাদেশ থেকে ইরাকে মানবপাচার বাড়ছে

নতুন ১৮ ওয়ার্ড নিয়েই ঢাকা উত্তরে ভোট

মোবাইল কোর্ট আইনের অপব্যবহার হচ্ছে

মন্ত্রীপুত্র জেলে

আমরা আগামী নির্বাচনে জয়লাভ করবো

প্রশ্নফাঁস বন্ধে দুদকের ৮ সুপারিশ

কাউন্সিলর প্রার্থীদের বিরামহীন প্রচারণা

সিলেটে মুক্তাদিরের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা

অস্বস্তিতে আওয়ামী লীগ বিএনপিতে শঙ্কা

ক্ষতিগ্রস্তকে ৯ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের নির্দেশ

জেরুজালেম প্রশ্নে ওআইসি চুপ থাকতে পারে না

‘বিচার বিভাগ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে’

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে মিয়ানমার, বাংলাদেশ সফরের আহ্বান

৪ সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় ভূমিমন্ত্রীপুত্র কারাগারে