রংপুর সিটি নির্বাচন

আওয়ামী লীগ, জাপা ও বিএনপির মেয়র প্রার্থী মুখোমুখি

দেশ বিদেশ

জাভেদ ইকবাল, রংপুর থেকে | ৭ ডিসেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার
রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি ও বিএনপির তিন হেভিওয়েট মেয়র প্রার্থী মুখোমুখি হয়েছিলেন নাগরিকদের। তারা নাগরিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। আধুনিক সিটি গড়ারও অঙ্গীকার করেন তিন মেয়র প্রার্থী। গতকাল ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের আয়োজনে সংলাপে নাগরিক অধিকার বিষয়ে- রংপুরের স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে এই তিন প্রার্থীকে নাগরিকদের মুখোমুখি করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী সরফুদ্দিন আহম্মেদ ঝন্টু (নৌকা), জাতীয় পার্টির মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা (লাঙ্গল) ও  বিএনপির কাওসার জামান বাবলা (ধানের শীষ)। নাগরিকরা এই তিন মেয়র প্রার্থীর কাছে রাস্তাঘাট ড্রেন কালভার্ট, স্বাস্থ্য, বেকার সমস্যাসহ সিটি এলাকার উন্নয়নে বিভিন্ন প্রশ্ন তুলে ধরেন। নির্বাচিত হলে তারা এসব সমস্যা সমাধানে কী করবেন, এসব প্রশ্নেরই জবাব দেন তিন মেয়র প্রার্থী। নাগরিকদের প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু বলেন, তিনি পাঁচ বছর ভালোভাবে সিটি করপোরেশন চালিয়েছেন। পুরোদমে সেবা দিয়েছেন নগরবাসীকে। পুনরায় সেবা করার সুযোগ পেলে বাকি ওয়ার্ডগুলোয় একটি করে নগর স্বাস্থ্যকেন্দ্র নির্মাণ করবেন।  রাস্তাঘাট ও ড্রেন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তার সময়ে ব্যাপক রাস্তা ও ড্রেনের  কাজ হয়েছে। কিছু কাজ এখনও চলমান রয়েছে। অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্যই তাকে নির্বাচিত করার আহ্বান জানান নাগরিকদের প্রতি।  শ্যামাসুন্দরী  খালের ওপর  ৬ কিলোমিটারে ফ্লাইওভার নির্মাণের পরিকল্পনার কথাও বলেন ঝন্টু। পাশাপাশি খালটির সংস্কারে হাত দেয়ার কথা জানান। সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু বলেন, এবার নির্বাচিত হলে কোনো কাঁচা সড়ক রাখবেন না নগরীতে। বর্ধিত এলাকার ট্যাক্স প্রসঙ্গে ঝন্টু বলেন, পাঁচ বছরে বর্ধিত এলাকার মানুষদের কাছে কোনো ধরনের ট্যাক্স নেয়া হয়নি। অবহেলিত বর্ধিত এলাকায় বিদ্যুৎ না থাকায় ‘বাতির নিচে অন্ধকার’-এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, পুনরায় নির্বাচিত হলে বিদ্যুতের ব্যবস্থা ও পাশাপাশি পানির সুব্যবস্থা করবেন।
জাতীয় পার্টির মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, রংপুর নগরে যানজট এখন নিত্য কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই যানজটের মূল কারণ হলো- অবৈধ অটোরিকশা। তিনি  নির্বাচিত হলে অবৈধ অটো রিকশার লাগাম টেনে ধরবেন। রংপুরে তেমন শিল্প-কলকারখানা গড়ে ওঠেনি। এর কারণ হিসেবে তিনি বলছেন গ্যাস না থাকার কথা। মেয়র নির্বাচিত হলে গ্যাস নিয়ে আসার চেষ্টা করবেন। গ্যাস এলেই গড়ে উঠবে শিল্প কল-কারখানা। দূর হবে বেকাররত্ব। মোস্তফা ড্রেনেজ ও জলাবদ্ধতা বিষয়ে বলেন, ড্রেনের বেহালদশা ও জলাবদ্ধতার কারণে নগরবাসীর কষ্টের শেষ নেই। তিনি নির্বাচিত হলে এ সমস্যার সমাধান করবেন দ্রুত। বর্ধিত এলাকার সঙ্গে মূল নগরীর উন্নয়ন-বৈষম্য দূর করার কথা বলেন তিনি। জাপার মোস্তফাফিজার রহমান  নির্বাচিত হলে শ্যামাসুন্দরী খালের দুই ধার দখলমুক্ত করে খাল সংস্কার করা হবে। আর স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের ব্যাপারে মোস্তফা বলেন, রংপুর সদর হাসপাতাল চালুর চেষ্টা চালিয়ে যাবেন। সদর হাসপাতাল চালু হলে অনেক মানুষ সেবা পাবে। তিনি বলেন, আধুনিক সিটি গড়তে যা যা করা প্রয়োজন আমি তাই করব নির্বাচিত হলে।
বিএনপির কাওসার জামান বাবলা বলেন, নগরীর বর্ধিত এলাকার রাস্তাঘাটের বেহাল দশার কারণে সেখানকার মানুষ কষ্টে আছেন। মেয়র নির্বাচিত হলে বর্ধিত এলাকার রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করবেন। নগরীর বেহাল সড়কের সংস্কার করে যানজট নিরসন করবেন।  বাবলা বলেন, শ্যামাসুন্দরী এখন মৃত প্রায়। খালটির পুরো এলাকাজুড়ে গড়ে উঠেছে মশার কারখানা। তিনি নির্বাচিত হলে সংস্কার করবেন শ্যামাসুন্দরী খালের। বেকার সমস্যা  প্রসঙ্গে  তিনি বলেন, গ্যাস নিয়ে আসার চেষ্টা করে যাবেন। শিল্পকারখানা প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগ নেবেন এবং বেকার সমস্যার সমাধান করবেন। ফুটপাত দখল হওয়া প্রসঙ্গে বলেন, নির্বাচিত হলে ফুটপাত দখলমুক্ত করবেন। পাশাপাশি  পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করবেন হকারদের। বাবলা বলেন, আমি নির্বাচিত হলে মডেল সিটি উপহার দেব। সংলাপটি সঞ্চালনা করেন ডে মোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের উপপরিচালক আমিনুল এহসান। এতে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের চিফ অব পার্টি কেটি ক্রোক ও টম ফোর্ডের পাশাপাশি রংপুরের সচেতন নাগরিকের মধ্যে অধ্যক্ষ ফখরুল আনাম বেঞ্জু, প্রফেসর শাহ আলম, ডা. মফিজুল ইসলাম মান্টু, মুক্তিযোদ্ধা আকবর হোসেনসহ অন্যরা  উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

চারদিকে তখন আতঙ্ক

ফ্যামিলি ভিসা নিরাপত্তার সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ নয়- ট্রাম্প

নিউ ইয়র্কে সন্ত্রাসী হামলাকারী আকায়েদের বাড়ি চট্টগ্রামে

প্যারিসে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

নিউ ইয়র্কে বোমা হামলাকারী বাংলাদেশী আকায়েদ উল্লাহ আইএসের অনুসারী, দায় স্বীকার আইএসের

শাহজালালে বিপুল পরিমান আমদানী নিষিদ্ধ ঔষুধসহ আটক ১

নব্য জেএমবির দুই সদস্য গ্রেপ্তার

‘রাজকোষ চুরি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক’

রোহিঙ্গা নির্যাতন: মিয়ানমারের মহামূল্যবান রত্ন শিল্পে আঘাত

‘এটা আমার জন্য বড় একটি ব্যাপার’

২০ লাখ পাউন্ড ঘুষ কেলেঙ্কারিতে বাংলাদেশি ব্যবসায়ী ও সাবেক ডেপুটি-মেয়রের নাম

পাচার অর্থ ফেরতে নানা জটিলতা

ম্যানহাটন হামলায় আটক ব্যক্তি বাংলাদেশি?

২৯ রোহিঙ্গা নারীর মুখে ধর্ষণযজ্ঞের বর্ণনা

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ত্রাণ বিতরণ এক সপ্তাহ স্থগিত

বাকেরগঞ্জে সাবেক এমপি মাসুদ রেজার ভাই গুলিবিদ্ধ