অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের দল ঘোষণা

বাংলাদেশের লক্ষ্য সেমিফাইনাল!

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ৭ ডিসেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার
ঘরের মাঠে সর্বশেষ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে দারুণ লড়াই করে বাংলাদেশের  যুবারা। ২০১৬’র আসরে মেহেদী হাসান মিরাজের নেতৃত্বে সেমিফাইনালে খেলে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। এ সাফল্যের জন্য অনেকেই ঘরের মাঠের সুবিধাটাকেও বড় করে দেখেন। তবে এবার অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের চ্যালেঞ্জটা একেবারেই অন্যরকম। দেশের মাঠে তো নয়ই এমনকি উপমহাদেশেও নয়, এবারের আসর বসবে নিউজিল্যান্ডে। আর এবার অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ ও নির্বাচকদের আশাটা ছোট।
গতকাল অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দল ঘোষণার সময় উপস্থিত ছিলেন বয়সভিত্তিক দলের নির্বাচক এহসানুল হক সেজান, সাজ্জাদ আহমেদ শিপন, হাসিবুল হোসেন শান্ত, হান্নান সরকার ও প্রধান কোচ  ডেমিয়েন রাইট। প্রধান কোচ বলেন, ‘এশিয়া কাপে দল হিসেবে হয়তো আমরা ভালো করিনি। কিন্তু আমাদের ব্যাটসম্যানরা দারুণ কিছু ইনিংস খেলেছে। যা অন্য দলের কেউ খেলতে পারেনি। আশা করি, বিশ্বকাপে আমরা অনেক দূর যেতে পারবো।’ তবে এখনো ঘোষণা করা হয়নি অধিনায়কের নাম। তবে সর্বশেষ যুব এশিয়া কাপে নেতৃত্ব দেয়া সাইফ হাসানকেই অধিনায়ক করার ইঙ্গিত দিয়েছেন নির্বাচক এহসানুল হক।
নির্বাচক এহসানুল হক অন্তত সেমিফাইনাল পর্যন্ত খেলার আশা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, আশা করছি, এবারো তারা সেমিফাইনাল খেলতে পারবে। নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে পারফর্ম করার জন্য যে ধরনের খেলোয়াড় দরকার, আমাদের দলে সে রকম খেলোয়াড় আছে।’ গত মাসে এশিয়া কাপের দল থেকে বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত দলে কেবল একটি পরিবর্তন। বাজে পারফরম্যান্সের কারণে দল থেকে বাদ পড়েছেন বাঁ-হাতি স্পিনার সাখাওয়াত হোসেন। তার জায়গায় এসেছেন অপর বাঁ-হাতি স্পিনার টিপু সুলতান। ১৫ সদস্যের মূল দল ছাড়াও স্ট্যান্ডবাই হিসেবে রাখা হয়েছে সাত ক্রিকেটারকে। নতুন মুখ টিপু সুলতানকে দলে নেয়া হয়েছে ঘরের মাঠে পারফরম্যান্স দেখে। প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে এ স্পিনার ছিলেন সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। তাকে নিয়ে সেজান বলেন, ‘ও আমাদের ক্যাম্পে ছিল। আমরা বেশি ম্যাচ খেলিনি বলে হয়তো ও যুব দলের সঙ্গে কোনো ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়নি। তবে প্রথম বিভাগ ক্রিকেটে ছিল সেরা উইকেট শিকারি। এবারের জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে (ওয়ানডে টুর্নামেন্ট) নিয়েছে ১২ উইকেট। শেষ ম্যাচেও পেয়েছে ৫ উইকেট।’
নিউজিল্যান্ডের পেস বান্ধব কন্ডিশনের কারণে দলে চার পেসারকে নেয়া হয়েছে। তবে দ্রুতগতির পেসার মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধকে পায়নি দল ইনজুরির কারণে। আর ব্যাটিং নিয়ে দুশ্চিন্তা রয়েই যাচ্ছে। বিশেষ করে টানা দুই বছর ফর্মে না থাকা পিনাক ঘোষকে দলে রাখা হয়েছে। তবে সর্বশেষ এশিয়াকাপে তার ব্যাট হেসেছে। তার ব্যাট থেকেই আসে দলের পক্ষে সর্বাধিক রান। পিনাক ও দলের ব্যাটিং নিয়ে আরেক নির্বাচক সাজ্জাদ আহমেদ বলেন, ‘পিনাককে দলে বিবেচনা করা হয়েছে কারণ ও বাউন্সি কন্ডিশনে দারুণ খেলে। এছাড়াও এশিয়াকাপে ওই ভালো করেছে ব্যাট হাতে। আমি দলের ব্যাটিংকে একেবারেই খারাপ বলবো না।’
১৩ই জানুয়ারি শুরু হবে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ আসর। তার আগে ডানেডিনে ১০ দিনের ক্যাম্প করার সুযোগ পাবে সাইফরা। স্থানীয় দলের সঙ্গে থাকবে ৫০ ওভারের তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচও। সেজন্য টাইগার যুবারা কিউই দেশে পৌঁছাবে ২৬শে ডিসেম্বর। মূল লড়াইয়ে নামার আগে পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে সাইফরা। এবারের বিশ্বকাপে টেস্ট খেলুড়ে ১২টি দেশ ও ৪টি সহযোগী দেশের যুব দল অংশ নেবে। তুলনামূলক সহজ গ্রুপে পড়েছে বাংলাদেশ। ‘সি ’গ্রুপে টাইগারদের অন্য তিন সঙ্গী নামিবিয়া, কানাডা এবং ইংল্যান্ড।
বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল
পিনাক ঘোষ, নাঈম শেখ, সাইফ হাসান, আফিফ হোসেন, তৌহিদ হৃদয়, আমিনুল ইসলাম, মোহাম্মদ রাকিব, মাহিদুল ইসলাম ভূঁইয়া, শাকিল হোসেন, রবিউল হক, নাঈম হাসান, কাজী অনিক ইসলাম, রনি হোসেন, হাসান মাহমুদ, টিপু সুলতান।
স্ট্যান্ডবাই: সজীব হোসেন, রায়ান রাফসান রহমান, সাখাওয়াত হোসেন, শহীদুল ইসলাম প্রামানিক, ইয়াসিন আরাফাত, আব্দুল হালিম, মনিরুল ইসলাম।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন