সিলেটের ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৫ নভেম্বর ২০১৭, বুধবার
টানা তিন জয়ে উড়তে থাকা সিলেট সিক্সার্সকে মাটিতে নামিয়ে আনে খুলনা টাইটান্স। সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে বিপিএল পর্বে সেটিই ছিল খুলনার প্রথম জয়। এরপর ঢাকায় ফিরে চিটাগাং ভাইকিংসকে হারিয়ে আসরের দ্বিতীয় জয়ও তুলে নেয় মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের টাইটান্স। কিন্তু সিক্সার্স নিজ মাঠে চতুর্থ ম্যাচে হারের পর ঢাকাতেও জিততে পারেনি। যে কারণ আজ তাদের একদিকে ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই অন্যদিকে প্রতিশোধের ম্যাচ। অবশ্য খুলনা ঢাকাতে তাদের চতুর্থ ম্যাচে ফের হেরেছে ঢাকার বিপক্ষে।
তাদের সামনেও আজ জয়ে ফেরার চ্যালেঞ্জ। দুই দলেরই চেষ্টা জয়ের ধারা অব্যাহত রেখে সামনে এগিয়ে যাওয়া। সিলেট নিজেদের প্রথম ম্যাচে হারিয়েছিল শক্তিশালী ঢাকাকে। এরপর নাসির হোসেনের দল হারায় রাজশাহী কিংস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকেও। তবে প্রথম ফিরতি লড়াইয়ে ঢাকার সঙ্গে হেরে যায় সিলেট। আজ দুপুর ১ টায় মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে মুখোমুখি হবে দুই দল। আজ জিতলে সিলেট আবারও ৮ পয়েন্ট নিয়ে উঠে যাবে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে। হারলে খুলনা ৬ পয়েন্ট নিয়ে ছুঁয়ে ফেলবে সিলেটকে।
সিলেট প্রথম ম্যাচে জয় পেয়েছে দারুণ ব্যাটিং সাফল্যে। দুই ওপেনার উপুল থারাঙ্গা ও আন্দ্রে ফ্লেচারের দারুণ ব্যাটিংটাই  দলের ভরসা। বিশেষ করে থারাঙ্গা টানা ৩ ফিফটি হাঁকিয়ে দলের জয়ে দারুণ ভূমিকা রেখেছেন। ৫ ম্যাচে তার সংগ্রহ ১৯৭ রান। এ ম্যাচে অবশ্য ফ্লেচার খেলতে পারবে কিনা তা নিয়ে রয়েছে যথেষ্ট সন্দেহ। কিছুটা ইনজুরির কারণে তার আজকের ম্যাচে খেলা অনেকটাই কঠিন। তাকে ছাড়াও নাসির হোসেন, নূরুল হাসান সোহান, আবুল হাসান রাজুরাও দলের জন্য দারুণ ভূমিকা রাখছেন। শুধু মাত্র জাতীয় দলের তারকা সাব্বির রহমানই এখন পর্যন্ত ব্যর্থ। ৫ ম্যাচে তার ব্যাট থেকে এসেছে মাত্র ২২ রান। তবে শেষ আসরে রাজশাহীর হয়ে সেঞ্চুরি হাঁকানো সাব্বির যে কোনো মুহূর্তে জ্বলে উঠতে পারেন সবার আশা। সিলেটও তার জ্বলে উঠার অপেক্ষায়। কারণ ফ্লেচার খেলতে না পারলে দল তাকিয়ে থাকবে সাব্বিরের দিকেই।
বল হাতেও সিলেটের পারফরমেন্স বেশ ভালো। বোলিংয়ে তাদের মূল ভরসা লিয়াম প্লাঙ্কেট ও দেশি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ৬ উইকেট নিয়ে প্লাঙ্কেট বিপিএল-এ বোলারদের মধ্যে শীর্ষে আছেন। তাইজুলের শিকারও ৫ উইকেট। এছাড়াও সিলেটের দু’টি ম্যাচে জয়ের নায়ক অলরাউন্ডার আবুল হাসান রাজু। এ পেসার ব্যাটে-বলে দারুণ পারফরম্যান্স অব্যহত রেখেছেন। এছাড়াও অধিনায়ক নাসির হোসেনও নিজের অলরাউন্ডার ভূমিকা দিয়ে দলকে জিতাতে প্রস্তুত। সিলেটের ডিরেক্টর ও জাতীয় দলের সাবেক প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদও হাল ছাড়ছেন না। তিনি বিশ্বাস করেন টি-টোয়েন্টি ম্যাচে যে কোনো দলকেই হারানো সম্ভব। তার মতে সিলেট দলে বড় কোনো তারকা না থাকলেও মাঠে পারফরম করার মতো দারুণ সব ক্রিকেটার আছেন। তারা যে কোনো দলের বিপক্ষে জয়ের জন্যই লড়াই করেন।
অন্যদিকে মাহেলা জয়াবর্ধনের খুলনার দেশি-বিদেশি তারকা মিলিয়ে বেশ ব্যালেন্সড দল। অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, আরিফুল হক ছাড়াও অলরাউন্ডার ব্রাথওয়েটও দলের ব্যাটিং ভরসা। বোলিংয়ে তরুণ পেসার আবু জায়েদ রাহীর সঙ্গে আছেন লঙ্কান স্পিনার ধনঞ্জয়া। গতকাল ঢাকার বিপক্ষে দারুণ লড়াই করেই হেরেছে খুলনা। তবে এতে ভেঙে পড়েননি দলের কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনে। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে দলের হার নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা আজকের (গতকাল) ম্যাচটি হেরেছি পোলার্ডের দারুণ ব্যাটিংয়ের কাছে। এটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ এখানে এমন হতেই পারে। আমরা সামনের দিকে তাকিয়ে আছি।’

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

বিএনপিকে ভোট দিয়ে অশান্তি ফিরিয়ে আনবে না জনগণ: প্রধানমন্ত্রী

অভিযোগ মিথ্যা এতিমখানার টাকা আত্মসাৎ করিনি

আরো ব্লগার হত্যার হিটলিস্ট

আসিফ নজরুলের বিরুদ্ধে মামলা, অতঃপর...

ফের বেড়েছে বিদ্যুতের দাম

চাহিদা নেই, তবুও রাজউকের নতুন ফ্ল্যাট প্রকল্প

‘আনিসুল হককে নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা ভিত্তিহীন’

মৌলভীবাজারে গ্রাহকের কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা ভিডিএন চেয়ারম্যান ও এমডি

সিলেটে জামায়াতের ‘স্বতন্ত্র প্রার্থী’, জল্পনা

সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ

রোহিঙ্গা জাতি নিধনের তুমুল সমালোচনা যুক্তরাষ্ট্রের

‘আমি হতবাক’

ডাক্তাররা বেশ প্রভাবশালী ও তদবিরে পাকা: স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী

যশোর জেলা স্পেশাল জজের বিরুদ্ধে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ

রোহিঙ্গা শব্দ ব্যবহার না করতে বলা হলো পোপকে

অসুস্থ রাজনীতি বাংলাদেশকে গ্রাস করছে: ড. কামাল হোসেন