ফাতাহ ও হামাসের মধ্যে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ অক্টোবর ২০১৭, শুক্রবার
ফিলিস্তিনে দশ বছর ধরে চলা হামাস-ফাতাহ দ্বন্দ্বের অবসান ঘটতে চলেছে। অবশেষে সমঝোতায় পৌঁছেছে বিবদমান দল দুটি। মিশরের রাজধানী কায়রোতে বৃহস্পতিবার তাদের মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। চুক্তি সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, চুক্তিতে গাজা উপত্যকার নিরাপত্তা, প্রশাসনিক ব্যবস্থা ও সীমান্ত পারাপারের ব্যবস্থা প্রাধান্য  পেয়েছে। এতে মধ্যস্থতা করেছে মিসর।
এ খবর দিয়েছে বিবিসি। ২০০৭ সালে হামাস ও ফাতাহর মধ্যে প্রাণঘাতী সংঘর্ষ হওয়ার পর থেকে গাজা ও পশ্চিম তীর পৃথকভাবে দুই দল শাসন করে আসছে। গত বছরের অধিকৃত অঞ্চলের সংসদ নির্বাচনে হামাস জয়লাভ করে। এর পর দলটি গাজা থেকে ফাতাহকে বিতাড়িত করে সেখানে নিজেদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করে। চুক্তির ক্ষেত্রে দুই পক্ষের মধ্যস্থতাকারীরা বলেছে, চুক্তি অনুযায়ী মিশর ও গাজার মধ্যকার রাফা সীমান্ত এলাকার কর্তৃত্ব ফিলিস্তিনের জোট সরকারকে হস্তান্তর করা হবে। এক বিবৃতিতে মিসর জানিয়েছে, ফাতাহ-নিয়ন্ত্রিত সরকারের কাছে ডিসেম্বরের মধ্যে গাজা উপত্যকার প্রশাসনিক দায়িত্ব হস্তান্তরে রাজি হয়েছে হামাস। দুই পক্ষই এই চুক্তিকে যুগান্তকারী বলে অভিহিত করেছেন। ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস বলেছেন, আলোচনায় দ্বন্দ্বের অবসান ঘটাতে ‘চুড়ান্ত চুক্তি’ হয়েছে। আমি এই চুক্তিকে স্বাগত জানাই। ফাতাহ প্রতিনিধি দলের থেকে আমি চুক্তির ব্যাপারে বিস্তারিত জেনেছি। আমি এই চুক্তিকে বিভক্তির অবসান ঘটাতে চুড়ান্ত চুক্তি হিসেবে মনে করছি। ধারণা করা হচ্ছে আগামী সপ্তাহে আব্বাস গাজা উপত্যকা সফর করতে পারেন। সফর অনুষ্ঠিত হলে তা হবে এক দশকে গাজায় তার প্রথম সফর।
যে কারণে হামাস-ফাতাহ দ্বন্দ্ব: একসময় ফাতাহ ফিলিস্তিনের মূল ভিত্তি ছিল। কিন্তু ২০০৬ সালে দলটি ক্ষমতা হারায়। তখন ফিলিস্তিনের আইন পরিষদের (পিএলসি) নির্বাচনে হামাস বিজয়ী হয়েছিল। এ সময় দুই দলের মধ্যে উত্তেজনা বাড়তে থাকে। পরে গাজা উপত্যকায় দুই দলের মধ্যে সহিংস সংঘর্ষ শুরু হয়।  বিবাদ মেটাতে ২০০৭ সালে দুই দল একটি জোট সরকার গঠনের চুক্তি করে। কিন্তু ওই বছরের জুনে হামাস জোরপূর্বকভাবে গাজা দখল করে সেখানে নিজেদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করে। পরে প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস জানান, হামাস গাজা উপত্যকা ত্যাগ করে অঞ্চলটির কর্তৃত্ব হস্তান্তর না করা পর্যন্ত তিনি কোনো সমঝোতায় যাবেন না। ২০১৪ সালের এপ্রিলে ফাতাহর সঙ্গে সমঝোতা করতে রাজি হয় হামাস। সে অনুযায়ী দেশটিতে জাতীয় ঐক্যের সরকার গঠন করা হয়।
২০০৬ সালে ক্ষমতা গ্রহণ করার পর থেকে হামাস গাজা উপত্যকা নিয়ন্ত্রণ করে। আর পশ্চিমতীর শাসন করে ফাতাহ। গাজার শাসনক্ষমতা হামাসের হাতে থাকার কারণে ওই অঞ্চলে অবরোধ আরোপ করে ইসরাইল। এই উপত্যকার বিপুলসংখ্যক জনগণ বাইরে থেকে আমদানিকৃত খাদ্যের ওপর নির্ভরশীল। গাজা-ভিত্তিক জঙ্গিদের হামলা বন্ধ করতে ২০০৬ সাল থেকে ইসরাইল ও মিসর গাজার ওপর স্থল ও নৌ অবরোধ আরোপ করে। এতে ওই অঞ্চলে তীব্র বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংকট দেখা দেয়। গাজার সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে কোনো চুক্তির ঘোষণা ওই অঞ্চলে বসবাসকারী ২০ লাখ মানুষের মনে আশার সঞ্চার করেছে। এতে তাদের মানবিক অবস্থার উন্নতি হতে পারে।
চলতি মাসের শুরুতে হামাস-ফাতাহ সমঝোতার অংশ হিসেবে ফিলিস্তিনের জোট সরকার গাজার বিভিন্ন পাবলিক প্রতিষ্ঠান নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে, যা ছিল সমঝোতার ক্ষেত্রে মাহমুদ আব্বাসের অন্যতম প্রধান দাবি। তখন এক ঐতিহাসিক প্রধানমন্ত্রী রামি আল হামদাল্লাহ গাজা সফরে যান। তিনি বলেন, ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ গাজার প্রশাসনিক ও নিরাপত্তার দায়িত্ব নেবে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ছাত্রদের সঙ্গে একই হলে থাকার দাবিতে আন্দোলনে ছাত্রীরা

সুপ্রিম কোর্টের কর্মকর্তাদের নতুন কর্মস্থলে যোগদানের নির্দেশ

বঙ্গবন্ধুর ব্যক্তিগত সচিব অনু আর নেই

আইন ও জবাবদিহিতার উর্ধ্বে নই আমরা: মেয়র নাছির

ডাকাতি হওয়া ১১৮ বস্তা চাল মুন্সীগঞ্জে উদ্ধার

‘ক’ ইউনিটে ২৩.৩৭ ও ‘চ’ ইউনিটে ২.৭৫ শতাংশ উত্তীর্ণ

আফগানিস্তানে সিরিজ হামলায় নিহত ৭৪

কায়রো মেয়েদের জন্য সবচেয়ে ‘বিপজ্জনক শহর’

মুসলমানের মতো দেখা যায় তাই...

‘চীন ও রাশিয়ার অবস্থান আগের চেয়ে পরিবর্তন হয়েছে’

ভোলায় যাত্রীবাহি বাস খাদে, নিহত ১

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মানবতাবিরোধী অপরাধ সহ্য করা হবে না

চট্টগ্রামে মহাসড়কের পাশে নারীর লাশ

চট্টগ্রামে হোটেলে জুয়ার আসর, ব্যবস্থাপকসহ আটক ৬২

‘আওয়ামী লীগ ইসিকে স্বাধীনতা প্রদান করেছে’

বাংলাদেশেও সেখানকার মতো বিচার ব্যবস্থা দেখতে চান