জাতিসংঘর মহাসচিবের রিপোর্ট

ভারতে মাওবাদীরা শিশুদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ৮ অক্টোবর ২০১৭, রবিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩৪
ভারতে মাওবাদীরা শিশুদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে। জাতিসংঘ মহাসচিবের রিপোর্টে এ কথা বলা হয়েছে।  জাতিসংঘের  মহাসচিব অ্যান্টনিও গুতেরাঁ জানিয়েছেন, জম্মু কাশ্মীরের জঙ্গিদের মতোই এখন ঝাড়খন্ড ও ছত্তিশগড়ের মাওবাদীরা সেখানকার শিশুদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে।  এই দুই জেলায় মাওবাদী হিংসার কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সে রাজ্যের শিশুরা। তাদের শৈশব হারিয়ে যাচ্ছে। দিনের পর দিন স্কুল বন্ধ থাকায় পড়াশোনা করতে পারছে না তারা। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়েই শিশুদের মাওবাদী সংগঠনে যুক্ত করা হচ্ছে বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে। অন্যদিকে জম্মু-কাশ্মীরে প্রায় ৩০টি স্কুল জ্বালিয়ে দিয়েছে জঙ্গিরা।
চারটি স্কুলে মিলিটারি ক্যাম্প রয়েছে। ফলে পড়াশোনা হচ্ছে না। এতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সেখানকার শিশুরা। ২০১৫ সালে জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান কি মুন এই একই রিপোর্ট দিয়েছিলেন। ২০১৬ সালের রিপোর্টেও তার কোনও পরিবর্তন হয়নি বলে জানিয়েছেন অ্যান্টনিও গুতেরাঁ। তবে আগের মহাসচিবের রিপোর্টে ঝাড়খন্ড, ছত্তিশগড়ের পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, ওড়িশার নামও উল্লেখ ছিল। এবারে সেই রিপোর্ট থেকে পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র এবং ওড়িশার নাম বাদ গিয়েছে । মহাসচিব জানিয়েছেন এই নিয়ে ভারত সরকারকে সচেতন করা হয়েছে। এইসব রাজ্যের শিশুদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দিতে বলেছেন তিনি। 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ছাত্রদের সঙ্গে একই হলে থাকার দাবিতে আন্দোলনে ছাত্রীরা

সুপ্রিম কোর্টের ৯ কর্মকর্তাকে বদলিকৃত কর্মস্থলে যোগদানের নির্দেশ

বঙ্গবন্ধুর ব্যক্তিগত সচিব অনু আর নেই

আইন ও জবাবদিহিতার উর্ধ্বে নই আমরা: মেয়র নাছির

ডাকাতি হওয়া ১১৮ বস্তা চাল মুন্সীগঞ্জে উদ্ধার

‘ক’ ইউনিটে ২৩.৩৭ ও ‘চ’ ইউনিটে ২.৭৫ শতাংশ উত্তীর্ণ

আফগানিস্তানে সিরিজ হামলায় নিহত ৭৪

কায়রো মেয়েদের জন্য সবচেয়ে ‘বিপজ্জনক শহর’

মুসলমানের মতো দেখা যায় তাই...

‘চীন ও রাশিয়ার অবস্থান আগের চেয়ে পরিবর্তন হয়েছে’

ভোলায় যাত্রীবাহি বাস খাদে, নিহত ১

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মানবতাবিরোধী অপরাধ সহ্য করা হবে না

চট্টগ্রামে মহাসড়কের পাশে নারীর লাশ

চট্টগ্রামে হোটেলে জুয়ার আসর, ব্যবস্থাপকসহ আটক ৬২

‘আওয়ামী লীগ ইসিকে স্বাধীনতা প্রদান করেছে’

বাংলাদেশেও সেখানকার মতো বিচার ব্যবস্থা দেখতে চান