ইবির আবাসিক হলে সিট নৈরাজ্য

শিক্ষাঙ্গন

ইবি প্রতিনিধি | ১০ আগস্ট ২০১৭, বৃহস্পতিবার
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে আবাসিক হলের সিট নিয়ে চলছে চরম নৈরাজ্য। দীর্ঘ দিন ধরে সিট বরাদ্দ দিচ্ছে না হল প্রশাসন। সে সুযোগে নিজ কর্মী-সমর্থকদের অবৈধভাবে হলে তুলছে ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের নেতারা। নিয়মিত সিট বরাদ্দ না দেয়ায় অনাবাসিকে থেকেই শিক্ষাজীবন শেষ করছে অধিকাংশ শিক্ষার্থী।
হল সুত্রে জানা যায়, সর্বশেষ ২০১৫ সালের শুরুর দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে সিট বরাদ্দ দেয় হল প্রশাসন। সে সময় ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষ পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের নিয়ম অনুযায়ী আবাসিকতা দেয়া হয়। এরপর থেকে আর কোন শিক্ষার্থী এখন পর্যন্ত আবাসিকতার সুযোগ পায়নি।
গত ছয় মাস আগে আবেদন জমা নিলেও এখনো ফল প্রকাশ করেনি কর্তৃপক্ষ। একই ভাবে সাদ্দাম হোসেন হল, শহীদ জিয়াউর রহমান হল, লালন শাহ্ হলসহ অন্যান্য হলগুলোতে দীর্ঘ দিন ধরে সিট বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে না। সর্বশেষ অ্যালোটে হাতে গোনা কয়েকজন শিক্ষার্থী আবসিকতা পেলেও বঞ্চিত আছে অধিকাংশরাই। অনুসন্ধানে দেখা গেছে, বর্তমানে হলগুলোতে অবস্থানরত ২০ শতাংশেরও কম শিক্ষার্থীর অবাসিকতা নেই। ইতোমধ্যে হলগুলোতে বেশ কয়েকবার অ্যালোটের নেটিশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। তবে বার বার টাকা জমা দিয়ে আবেদন করার পরও সিট বরাদ্দ দেয়া হয়নি বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের নেতারা নিজ গ্রুপের দল ভারি করতে রিপ্লেসে থাকা শিক্ষার্থীদের জোরপূর্বক হল থেকে নামিয়ে দিচ্ছে। কোন ধরনের নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই তারা সেখানে নিজ কর্মীদের তুলে দিচ্ছে।
নাম প্রকাশ না করা শর্তে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, সিট বরাদ্দের সময় রেজাল্ট ও বাড়ির দূরত্বকে উপেক্ষা করে প্রভাবশালী নেতার কর্মীদের আবাসিকতা দেয়া হচ্ছে। প্রশাসন যদি এর সঠিক প্রতিকার না করে তবে মেধাবী ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা আজীবন বঞ্চিতই থেকে যাবে। নেতাদের হাতে প্রথম বর্ষের ছাত্ররা সিট পেলেও মাস্টার্স শেষেও আবসিকতা পাচ্ছেনা অনেকেই।
প্রভোস্ট কাউন্সিলের সভাপতি প্রফেসর ড. মিজানুর রহমান বলেন, আমারা মিটিং করে সকল প্রভোস্টকে সিট বরাদ্দের নির্দেশ দিয়েছি। আগস্ট মাসের মধ্যেই আশা করছি নতুন বরাদ্দ দেয়া যাবে। রিপ্লেসের শিক্ষার্থীদের যদি নামিয়ে দেয়া হয়, তবে সংশ্লিষ্ট হল প্রভোস্টের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

মসজিদে গুলি ছোড়ার পর পাল্টে গেল এক মার্কিনীর জীবন

দৃশ্যপট একই

আয় বৈষম্য বাড়ায় চাপে মধ্যবিত্ত

নকলা উপজেলা চেয়ারম্যানের লাশ উদ্ধার

রিভিউর প্রস্তুতি

বাংলাদেশির বীরত্বে ধর্ষকদের হাত থেকে রক্ষা পেলো ইতালীয় তরুণী

ঢাবিতে ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্ন ফাঁস?

সিলেট টার্মিনালে গুলিবর্ষণ নিয়ে পাল্টাপাল্টি

রোহিঙ্গা স্রোত থামছে না

বড় দুই দলেই প্রার্থীর ছড়াছড়ি

সামান্য বৃষ্টিতেই ডুবেছে চট্টগ্রাম

টানা বৃষ্টিতে নগরজুড়ে দুর্ভোগ

নিম্নমানের কাগজে ছাপা হচ্ছে বিনা মূল্যের পাঠ্যবই

দিনে গড়ে দেড় হাজার মামলা

‘বিএনপিকে নির্বাচনের বাইরে রাখার ষড়যন্ত্র চলছে’

পাকিস্তানের ষড়যন্ত্রে রোহিঙ্গাদের উপর আক্রমণ: মতিয়া চৌধুরী