রেকর্ডগড়া ফাইনাল

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ২০ জুন ২০১৭, মঙ্গলবার
১৮০ রানে ফাইনালে জয় দেখলো পাকিস্তান। আইসিসি’র কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনালে রানের ব্যবধানে এটি সবচেয়ে বড় হারজিতের ঘটনা। এমন আগের রেকর্ডেও ভোগান্তিটা ভারতের। জোহানেসবার্গে ২০০৩ বিশ্বকাপের ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ১২৫ রাানে হার দেখে তারা। ওয়ানডে ক্রিকেটের সব আসর মিলিয়ে বড় রানের ব্যবধানে হারজিতের ঘটনাতেও মলিন পক্ষটা ভারত। ২০০০-এ কোকা কোলা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে ২৪৫ রানে জয় কুড়ায় শ্রীলঙ্কা।
৭৩.৭১ সেমিফাইনাল ও ফাইনালের দুই ম্যাচে পাকিস্তানের ব্যাটিং ও বোালিং গড়ের ব্যবধান ।
এ দুই ম্যাচে ব্যাট হাতে উইকেট প্রতি তাদের সংগ্রহ ৯২.১৬ রান। আর বল হাতে তারা প্রতি উইকেট শিকারে ব্যয় করেছে মাত্র ১৮.৪৫ রান। সেমিফাইনাল ও ফাইনালের দুই ম্যাচে ব্যাট হাতে ওভার প্রতি তাদের রানের গড় ৬.৩৪। আর বল হাতে তাদের ইকোনমি ৪.৫৯। আসরের হট ফেভারিট দল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালে পাকিস্তান ৮ উইকেটে জয় কুড়ায় ৭৭ বল বাকি রেখে। আর উড়ন্ত ফর্মের ভারতকে ফাইনালে হারায় তারা ১৮০ রানে।
৩৩৮ যে কোনো টুর্নামেন্টে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ সংগ্রহ। আর ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডেতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। ভারতের বিপক্ষে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ সংগ্রহটা ৩৪৪। তবে ২০০৪-এ করাচিতে  ৩৪৯ রান তাড়া করে ওই ম্যাচ হার দেখে পাকিস্তান।
১২৮ রানের জুটি গড়েন ওপেনিংয়ে আজহার আলী ও ফখর জামান। আইসিসি’র ওয়ানডে টুর্নামেন্টে ভারতের বিপক্ষে পাকিস্তানের ওপেনিং জুটিতে শতরানের প্রথম ঘটনা এটি। আগের রেকর্ডটি ছিল ১৯৯৬ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে সাঈদ আনোয়ার-আমির সোহেল জুটির ৮৪। আইসিসি’র ওয়ানডে আসরে ভারতের বিপক্ষে যে কোনো উইকেট জুটিতে পাকিস্তানের শতরানের মাত্র দ্বিতীয় ঘটনা এটি ।
১১৪ ফখর জামানের সংগ্রহটি বিশ্বকাপ বা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে পাকিস্তানি কোনো ব্যাটসম্যানের চতুর্থ সর্বোচ্চ। এমন আসরের ফাইনালে পাকিস্তানি কোনো ব্যাটসম্যানের এটি প্রথম সেঞ্চুরি।
১৩ উইকেট পেলেন হাসান আলী, যা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির এক আসরে সর্বাধিক শিকার। ভারতে আয়োজিত ২০০৬’র আসরে ১৩ উইকেট পান ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেসার জেরোম টেইলর।
৪৫ রান করেন ফখর জামান ভারতীয় অফিস্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বিপক্ষে। ওয়ানডেতে অশ্বিনের বিপক্ষে এক ম্যাচে কোনো ব্যাটসমানের সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড এটি। ২০১৫ বিশ্বকাপে অকল্যান্ডে ভারতীয় স্পিনার অশ্বিনের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ২৭ বলে ৪২ রান করেন জিম্বাবুয়ের ব্রেন্ডন টেইলর।
সর্বাধিক রান
খেলোয়াড়    ম্যাচ    রান    সর্বোচ্চ    গড়
শিখর ধাওয়ান (ভারত)    ৫    ৩৩৮    ১২৫    ৬৭.৬০
রোহিত শর্মা (ভারত)    ৫    ৩০৪    ১২৩*    ৭৬.০০
তামিম ইকবাল (বাংলাদেশ)    ৪    ২৯৩    ১২৮    ৭৩.২৫
জো রুট (ইংল্যান্ড)    ৪    ২৫৮    ১৩৩*    ৮৬.০০
বিরাট কোহলি (ভারত)    ৫    ২৫৮    ৯৬*    ১২৯.০
সর্বাধিক উইকেট
খেলোয়াড়    ম্যাচ    উই.    সেরা    ইকো
হাসান আলী (পাকিস্তান)    ৫    ১৩    ৩/১৯    ৪.২৯
জশ হ্যাজেলউড (অস্ট্রেলিয়া)    ৩    ৯    ৬/৫২    ৫.০৭
জুনাইদ খান (পাকিস্তান)    ৪    ৮    ৩/৪০    ৪.৫৮
লায়াম প্লাঙ্কেট (ইংল্যান্ড)    ৪    ৮    ৪/৫৫    ৫.৮৫
আদিল রশিদ (ইংল্যান্ড)    ৩    ৭    ৪/৪১    ৪.৭৩
ভুবনেশ্বর কুমার (ভারত)    ৫    ৭    ২/২৩    ৪.৬৩
সর্বোচ্চ রানের জুটি
জুটি    রান    উই    প্রতিপক্ষ    ভেন্যু
সাকিব আল হাসান-মাহমুদুল্লাহ (বাংলাদেশ)    ২২৪    পঞ্চম    নিউজিল্যান্ড    কার্ডিফ
রোহিত শর্মা-বিরাট কোহলি (ভারত)    ১৭৮*    দ্বিতীয়    বাংলাদেশ    বার্মিংহাম
তামিম ইকবাল-মুশফিকুর রহীম (বাংলাদেশ)    ১৬৬    তৃতীয়    ইংল্যান্ড    ওভাল
অ্যালেক্স হেলস-জো রুট (ইংল্যান্ড)    ১৫৯    দ্বিতীয়    বাংলাদেশ    ওভাল
গুনাতিলাকা-কুশল মেন্ডিস (শ্রীলঙ্কা)    ১৫৯    দ্বিতীয়    ভারত    ওভাল
এউইন মরগান-বেন স্টোকস (ইংল্যান্ড)    ১৫৯    চতুর্থ    অস্ট্রেলিয়া    বার্মিংহাম



 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন