আরো ২ দিন বৃষ্টি থাকতে পারে

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২০ জুন ২০১৭, মঙ্গলবার
মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে সারা দেশে থেমে থেমে বৃষ্টিপাত চলছে। কোথাও হালকা আবার কোথাও মাঝারি থেকে ভারীবর্ষণ হচ্ছে। সোমবার ঢাকায় ৪৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হলেও দেশের কোথাও কোথাও ৫০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তারা বলছেন সারা দেশে বৃষ্টিপাতের এই অবস্থা অব্যাহত থাকতে পারে আরও কয়েকদিন। আবহাওয়াবিদ ড. আবদুুল মান্নান মানবজমিনকে বলেন, সারাদিন থেমে থেমে বৃষ্টির এই পরিস্থিতিই থাকবে আগামী ২দিন। তবে এর পর উন্নতি হলেও বৃষ্টি একেবারে চলে যাবে না।
কারণ এখন বর্ষাকাল। এই সময় আকাশ মেঘলা থাকে। দক্ষিণা বাতাস বয়ে যায়। থেমে থেমে বৃষ্টি হয়। এমন কিছু কমন প্রেসার পুরো বর্ষাকাল জুড়েই থাকবে। সোমবারের মতো মঙ্গলবার ও বুধবারও দেশের কোন কোন জায়গায় অল্প আবার কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হবে।  সোমবারও দেশের কোথাও কোথাও ৫০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে। তিনি বলেন, আগামী ২৬ বা ২৭ তারিখ ঈদ হবে। ঈদের দিন বৃষ্টি হবে কিনা সেটা এই মুহূর্তে বলা যাবে না। আরও দুই-তিনদিন পর্যবেক্ষণে রেখে বলা যেতে পারে।
আবহাওয়া অফিসের তথ্যমতে বাংলাদেশের উপর  মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় দেশব্যাপী কোথাও ভারী, কোথাও হালকা বৃষ্টি হচ্ছে। আবার কোথাও ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। সোমবার রংপুর, রাজশাহী, সিলেট, ময়মনসিংহ, বরিশাল, খুলনা, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগে মৌসুমী বায়ুর জোরালো প্রভাব পড়ছে। তবে এটি ধীরে ধীরে কমে আসবে। এক্ষেত্রে খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী থেকে খুব ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামী বুধাবার পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের এ ধরা অব্যহত থাকবে। এব সময় দেশের কোথাও কোথাও বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এদিকে বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকলেও সাগরে আপাতত কোনো ঝড়ের সম্ভাবনা নেই। তাই চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে লোয়ার সিগন্যাল দেখাতে বলা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে সিলেট, সন্দ্বীপ, সীতাকুণ্ড ও বদলগাছীতে। এদিকে ভারী বৃষ্টিপাতে রাজধানীতে জলাবদ্ধতায় জনজীবন ব্যাপক ভোগান্তির মধ্যে পড়েছে। বেশির ভাগ সড়কে পানি জমে যাওয়ায় সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট। জলাবদ্ধতার কারণে সবচেয়ে বেশি যানজট তৈরি হয়েছে মিরপুর-১০ নম্বরে। এছাড়া গুলশান, বাড্ডা, রামপুরা, মালিবাগ, মতিঝিল, উত্তরা, মোহাম্মদপুরসহ পুরান ঢাকার এলাকাগুলোতে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে মানুষকে।  


 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন