জামালগঞ্জে কৃষকদের মধ্যে শাড়ি ও চাল বিতরণ

দেশ বিদেশ

জামালগঞ্জ (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি | ২০ মে ২০১৭, শনিবার
সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে জয়তুননেছা আফিন্দী ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ফসলহারা হতদরিদ্র ৫০টি কৃষক পরিবারের প্রত্যেককে ২০ কেজি চাল ও একটি করে শাড়ি বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে জয়তুননেছা আফিন্দী ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে উপজেলার ভীমখালী ইউনিয়নের বিছনা গ্রামে ফসরহারা কৃষক পরিবারে এই ত্রাণ বিতরণ করা হয়। ত্রাণবিতরণ পূর্বে ফাউন্ডেশনের সহ-সভাপতি মো. শের উদ্দিনের সভাপতিত্বে শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ফারাহ তাহসিন নূর আফিন্দীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ থেকে প্রকাশিত দৈনিক হিজল করছ পত্রিকার সম্পাদক ও ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক মো. সাহাব উদ্দিন আফিন্দী, সুনামগঞ্জ সরকারি উচ্চবালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাছিমা রহমান আফিন্দী, সিলেট আলমপুর সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামছুন্নাহার আফিন্দী, জামালগঞ্জ প্রেস ক্লাব সভাপতি অঞ্জন পুরকায়স্থ ও সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, হাওরাঞ্চল তথা সিলেট বিভাগের বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও আলোকিত ব্যক্তিত্ব মরহুম ছিদ্দিক আলী পন্ডিতের সহধর্মিণী জয়তুন নেছা আফিন্দী স্মরণে এই ফাউন্ডেশন বেশ কয়েক বছর ধরে এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ করছে। বিছনা গ্রামের মরহুম সিদ্দিক আলী পণ্ডিতের পাণ্ডিত্য সর্বসাধারণের কাছে ছিল অত্যন্ত সমাদৃত। তিনি জামালগঞ্জ উপজেলার বিছনা গ্রামে ১৯০৪ সালে জন্মগ্রহণ, ১৯৮৭ সালের ১০ অক্টোবর মৃত্যুবরণ করেন।
পণ্ডিত ছিদ্দিক আলী আফিন্দী ব্রিটিশ আমলে ভারতের আসাম প্রদেশের শিলচর কলেজ থেকে ১৯৩২ সালে বাংলা বিষয়ে পণ্ডিত ডিগ্রি লাভ করে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে বিমানবাহিনীর পক্ষে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। তার অসামান্য শরীরচর্চা ও দৈহিক শক্তি প্রদর্শনের জন্য মহাত্মা গান্ধী কর্তৃক লৌহ মানব খেতাবে ভূষিত হন। দেশে ফিরে প্রথমে হাই স্কুলে শিক্ষকতা শুরু করেন। পরে ভীমখালী ইউনিয়নে প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি শ্রীহট্ট জেলার জুরি বোর্ডের (অতিরিক্ত বিচারক) সদস্য ছিলেন। ৫০ এর দশকে ভীমখালী হাইস্কুল প্রতিষ্ঠা করে বিনা বেতনে শিক্ষকতা করেন। বৃহত্তর সিলেটের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ইন্সট্রাক্টরের দায়িত্ব পালন করেন। বিছনা প্রাইমারি স্কুল প্রতিষ্ঠা সহ অনেক জনহিতকর কাজের জন্য সকলের নিকট স্মরণীয় হয়ে আছেন। তার সহকর্মী জয়তুন্নেছা আফিন্দী ব্রিটিশ আমলে মাদরাসা থেকে এমি পাস করে বিছনা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রতিষ্ঠাকালীন একমাত্র শিক্ষক ছিলেন। তাকে ও তার সহধর্মিণীকে বাঁচিয়ে রাখতেই এই জনকল্যাণমূলক কাজ করছে জয়তুনন্নেছা আফিন্দী ফাউন্ডেশন। পরে অসহায় দরিদ্র কৃষকদের মাঝে শাড়ি ও ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়।


 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষণের দাবি

এখনও আসছে রোহিঙ্গারা, সমঝোতা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

৯০ টাকা ছাড়ালো পিয়াজের কেজি

বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি মামুলি ব্যাপার

‘মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা’

চিরঘুমে লোকসংগীতের মহীরুহ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বন্যার ক্ষতি পোষাতে দরকার ১০০ কোটি টাকা

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ

দুই দলেই হেভিওয়েট প্রার্থী

দরিদ্রদের জন্য বিচারের বাণী নীরবে কাঁদে

৭ই মার্চ ভাষণের স্বীকৃতিতে দেশব্যাপী শোভাযাত্রা আজ

সম্মতিপত্র প্রকাশের দাবি বিএনপির

ঘরে ঘুরে দাঁড়ালো চিটাগং

মিশরে মসজিদে জঙ্গি হামলা, নিহত কমপক্ষে ২৩০

‘শেষ মুহূর্তে হলে সরকার সমঝোতায় আসবে’

রবি-সোমবার সব সরকারি কলেজে কর্মবিরতি