এরশাদের রাডার ক্রয় দুর্নীতি মামলা ফের সাক্ষ্যগ্রহণে দুদকের রিভিউ খারিজ

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ মার্চ ২০১৭, মঙ্গলবার
সাবেক সামরিক শাসক ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদের রাডার ক্রয় দুর্নীতির মামলায় নতুন করে সাক্ষ্য গ্রহণে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদন খারিজ করে আপিল বিভাগের দেয়া আদেশ পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন সর্বোচ্চ আদালত। গতকাল প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে গঠিত আপিল বিভাগ রিভিউ খারিজের এ আদেশ দেন। আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী খুরশিদ আলম খান। এরশাদের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম। পরে খুরশিদ আলম খান সাংবাদিকদের জানান, আপিল বিভাগের এ আদেশের ফলে এ মামলায় নতুন করে সাক্ষ্য নেয়ার আর কোনো সুযোগ নেই।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ফ্রান্সের থমসন সিএসএফ কোম্পানির অত্যাধুনিক রাডার না কিনে বেশি দামে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েস্টিন হাউজ কোম্পানির রাডার কিনে রাষ্ট্রের ৬৪ কোটি ৪ লাখ ৪২ হাজার ৯১৮ টাকার আর্থিক ক্ষতির অভিযোগে ১৯৯২ সালের ৪ঠা মে তৎকালীন দুর্নীতি দমন ব্যুরো এরশাদসহ চারজনের বিরুদ্ধে এ মামলা করে। তদন্ত শেষে ১৯৯৪ সালের ২৭শে অক্টোবর আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করা হয়।
পরে ১৯৯৫ সালের ১২ই আগস্ট এরশাদসহ চার আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। তবে, উচ্চ আদালতের এক আদেশে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত এ মামলার কার্যক্রম স্থগিত থাকে। স্থগিতাদেশ ওঠে যাওয়ার পর ২০১০ সালের ১৯শে আগস্ট এ মামলায় বাদীর সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। নিম্ন আদালতে এই মামলায় অভিযোগ গঠনের পর রাষ্ট্রপক্ষের ৩৮ জন সাক্ষীর মধ্যে ১২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে মামলাটি যুক্তিতর্ক পর্যায়ে আসে। ২০১৪ সালের ১৫ই মে এ মামলায় আত্মপক্ষ সমর্থন করে এরশাদ নিজেকে নির্দোষ দাবি করে লিখিত বক্তব্য আদালতে জমা দেন। একই সঙ্গে অন্য দুই আসামি বিমানবাহিনীর সাবেক দুই শীর্ষ কর্মকর্তা মমতাজ উদ্দিন আহমেদ ও সুলতান মাহমুদও নিজেদের নির্দোষ দাবি করে বক্তব্য দেন। অন্য আসামি ইউনাইটেড ট্রেডার্সের পরিচালক একে মুসা মামলার শুরু থেকেই পলাতক। বাকি সাক্ষীদের সাক্ষ্য নেয়ার জন্য গত বছরের নভেম্বরে দুদক হাইকোর্টে আবেদন করে। শুনানি শেষে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ ২৪শে নভেম্বর দুদকের পক্ষে আদেশ দেন। একই সঙ্গে যে সাক্ষীর সাক্ষ্য শোনা হয়নি তাদের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ  করে ৩১শে মার্চের মধ্যে এ মামলার বিচার শেষ করতে নির্দেশ দেন আদালত। পরে হাইকোর্টের ওই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন এ মামলার আসামি বিমান বাহিনীর সাবেক প্রধান সুলতান মাহমুদ। আবেদনের শুনানি শেষে চলতি বছরের ৮ই জানুয়ারি হাইকোর্টের দেয়া রায় বাতিল করে দেয় আপিল বিভাগ। পরে আপিল বিভাগের এ আদেশের বিরুদ্ধে দুদক পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন করে। শুনানি শেষে গতকাল তা খারিজ করে দেন আপিল বিভাগ।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন