জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদের নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১২ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:২১
সরকারের উন্নয়ন কাজের ধারাবাহিকতা রক্ষা করে সততা, নিষ্ঠা ও একাগ্রতার সঙ্গে নবনির্বাচিত জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানদের দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমি চাই সততা, নিষ্ঠা, একাগ্রতার সঙ্গে আপনারা স্ব-স্ব দায়িত্ব পালন করবেন। আপনাদের মূল লক্ষ্যটা হবে মানুষের সেবা করা। প্রধানমন্ত্রী গতকাল তার কার্যালয়ে জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের শপথবাক্য পাঠ করানো শেষে দেয়া ভাষণে একথা বলেন। সংশ্লিষ্ট জেলা পরিষদ আইনটি ২০০০ সালে পাস হওয়ার ১৬ বছর পর ২৮শে ডিসেম্বর ৫৯টি জেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এটিই ছিল জেলা পরিষদের ১৩১ বছরের ইতিহাসে প্রথম সরাসরি নির্বাচন। নির্বাচিত ৫৯ জন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানকে শপথবাক্য পাঠ করান প্রধানমন্ত্রী।
অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মো. আবদুল মালেক শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন। মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টারা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকগণসহ উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনাদের মনে রাখতে হবে- এ দেশের মানুষ দীর্ঘদিন শোষিত-বঞ্চিত-নিপীড়িত ছিল। ১৯৭৫ সালে জাতির পিতাকে হত্যার পর থেকে এদেশের মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলা হয়েছিল। কেবল আওয়ামী লীগ সরকারে আসার পরই বাংলাদেশের জনগণ প্রথম জানতে পারে যে, সরকার জনগণের সেবা করে এবং জনগণ তার সুফল পায়। শেখ হাসিনা বলেন, কাজেই আপনাদের ওপর এটাই দায়িত্ব থাকবে যে, প্রতিটি উন্নয়নের কাজ যেন যথাযথভাবে বাস্তবায়ন হয় এবং স্ব-স্ব জেলার সার্বিক উন্নয়ন এবং সমস্যাবলী খুঁজে বের করা। কি করলে পরে সেই জেলার আরো উন্নতি হতে পারে সেদিকে দৃষ্টি দেয়া এবং দেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যয় নিয়েই আপনাদের কাজ করে যেতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার শুধু নিজেদের ক্ষমতা ভোগ করতে আসে না এবং সেটা আমরা প্রমাণ করেছি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ক্ষমতাকে বিকেন্দ্রিকরণ করে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। তাই মানুষের সেবা নিশ্চিত করার জন্য সেই লক্ষ্য সামনে রেখে আমরা ’৯৬ সালে ক্ষমতায় এসে উদ্যোগ নেই এবং স্থানীয় সরকার আইন পাশ করি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, জেলা পরিষদে নির্বাচন এবারই প্রথম হলো। আমরা ইলেকট্রোরাল কলেজের মাধ্যমে এই নির্বাচন অনুষ্ঠানের আইন পাস করি এবং সেভাবেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের লক্ষ্য দেশের মানুষকে সেবা দেয়া। আমরা যখন স্বাধীনতা অর্জন করি তখন দেশে সাড়ে ৭ কোটি মানুষ ছিল। আজকে ১৬ কোটি মানুষ। আমাদের ভূখণ্ড সীমিত, তার মাঝে এত মানুষের কাছে সেবা পৌঁছানো সত্যিই খুব কষ্টসাধ্য।
সে কারণেই আমরা সব সময় মনে করি ক্ষমতাটাকে যতটা সম্ভব কিকেন্দ্রিকরণ করতে পারবো জনসেবাও তত নিশ্চিত হবে। আর সেই লক্ষ্য নিয়েই স্থানীয় সরকারকে শক্তিশালী করার পদক্ষেপ আমরা নিয়েছি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা আমাদের স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। এই স্বাধীনতাকে আমরা অর্থবহ করে তুলতে চাই। এই স্বাধীনতার সুফল প্রতিটি মানুষের ঘরে ঘরে আমরা পৌঁছে দিতে চাই। রাষ্ট্র পরিচালনার সুযোগ পেলেই জনগণের সেবা নিশ্চিত করার পাশাপাশি উন্নয়নের পথে আওয়ামী লীগ দেশকে এগিয়ে নিয়ে গেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৮ এর নির্বাচনের পরে আমরা যখন সরকারে আসি তখন যেভাবে যে অবস্থায় বাংলাদেশকে পেয়েছিলাম-সে অবস্থা থেকে সর্বক্ষেত্রে একটা শৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনে একটা উন্নয়নের অগ্রযাত্রা আমরা শুরু করেছি। কারণ সবার উন্নয়ন নিশ্চিত করাটাই আমাদের লক্ষ্য।
শেখ হাসিনা বলেন, আজকে আমরা জোর গলায় বলতে পারি- বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। চিকিৎসাসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে গিয়েছে। শিক্ষার যেন অগ্রগতি হয় তার জন্য বিশেষ পদক্ষেপ আমরা নিয়েছি। আমরা প্রিপ্রাইমারী থেকে মাধ্যমিক স্তর পর্যন্ত বিনামূল্যে পাঠ্যবই দিচ্ছি। বৃত্তি-উপবৃত্তি দিচ্ছি, স্কুল-কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়সহ নানা অবকাঠামো গড়ে তুলছি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

‘অভিযোগ কাল্পনিক ও বানোয়াট’

মইনকে আশ্বস্ত করেছিলেন প্রণব

ব্লু হোয়েল গেম জায়েজ নয়

শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন চায় জেপি

রোহিঙ্গাদের দেখতে আসছেন জর্ডানের রানী

পেপ্যাল ‘জুম’ সার্ভিস বাংলাদেশে

হাওরে সরকারি প্রকল্পে লুটপাট হয়েছে

প্রার্থী নিয়ে নির্ভার আওয়ামী লীগ-বিএনপি

গণমাধ্যম-সশস্ত্র বাহিনীর সম্পর্ক নিয়ে সেমিনার

সিলেটে ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত, সেক্রেটারিসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

খালেদা জিয়ার পুরো জবানবন্দি

বরিশালে বিচারকের ভূমিকায় বেঞ্চ সহকারী, তোলপাড়

গাজীপুরে প্রাক্তন তিন সেনা সদস্যসহ ৪জন গ্রেপ্তার

খান আতা ইস্যুতে এফডিসিতে চলচ্চিত্র পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

আদালত অঙ্গনে খালেদার আইনজীবীদের হাতাহাতি

বন্যায় ৩০ শতাংশ ধান উৎপাদন কম হতে পারে