চসিক প্রশাসকের দায়িত্ব গ্রহণ সুজনের

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে

অনলাইন ৬ আগস্ট ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১২:০৭ | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৩২

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) প্রশাসকের দায়িত্বভার গ্রহণ করলেন খোরশেদ আলম সুজন। তিনি চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টায় তিনি নগরীর বাটালী হিলস্থ চসিক ভবনে যান।

চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা এ সময় তাকে স্বাগত জানান। এরপর চসিক সম্মেলন কক্ষে প্রবেশ করেন বিদায়ী মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। তার কাছ থেকে মেয়রের দায়িত্ব বুঝে নেন খোরশেদ আলম সুজন।

এরপর দোয়া মাহফিলে মোনাজাত পরিচালনা করেন সদ্য নিযুক্ত প্রশাসক। পরে চসিক সম্মেলন কক্ষে গিয়ে কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন। এসময় মেয়র নাছির উদ্দিন খোরশেদ আলম সুজনের হাতে হাত রেখে এক সঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার করেন।

এর আগে বুধবার বিকেলে শেষ কর্মদিবসে আনুষ্ঠানিক বিদায় নেন আ জ ম নাছির উদ্দিন।
নগরীর থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রাম (টিআইসি) মিলনায়তনে সিটি করপোরেশন কর্মকর্তা কর্মচারীরা বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

বিদায়ী বক্তব্যে আ জ ম নাছির উদ্দিন ভুলত্রুটির জন্য সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে বলেন, আপনারা অনেক সময় আমার রুমে এসে মর্যাদা অনুযায়ী বসতে পারেননি। আবার অনেককে সামনে না হয়, বাইরে গিয়ে তিরস্কার করেছি। অনেকেই এসে দাঁড়িয়ে থেকেছে, পরে চেয়ার দিতে বলতে হয়েছে। এটার জন্য আজকের আমার শেষ কর্ম দিবসে আপনাদের কাছে আন্তরিকতাভাবে দুঃখ ও ক্ষমা প্রার্থনা করছি।'

মেয়র নাছির বলেন, দল-মত নয়, জনপ্রতিনিধি হিসাবে যতটুকু করা প্রয়োজন আমি ততটুকু করেছি। মানুষের জন্য কাজ করতে পারা অনেক বড় সৌভাগ্যের। মানুষের ভালোবাসা আমি পেয়েছি, চসিকের কর্মকর্তা কর্মচারীদের যে ভালোবাসা আন্তরিকতা পেয়েছি, এতে মনে করি একজন রাজনীতিবিদ যে উদ্দেশ্য নিয়ে রাজনীতি করে তা করতে পেরেছি। আগেও ছিলাম, এখনো আছি, আমৃত্যু বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যাব।

মেয়র বলেন, চসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ৩১ বছরের সমস্যার সমাধান করে দিয়েছি। অনেকেই অবসরে গিয়ে টাকা পাননি। আমার আগের মেয়র এক লক্ষ টাকা করে অনুদান দিয়েছেন। আমি এসে সেটা দুই লক্ষ টাকা করেছি। চসিকের অনেক শিক্ষক আছেন, যাদের বেতন মাত্র ৬ হাজার টাকা। তারা স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানে পদে পদে অপমানের শিকার হয়েছে। এগুলো আমি মরিয়া হয়ে প্রবিধান মালা অনুমোদন করেছি। এখন বোর্ড পদোন্নতি দিবে। নয় হাজার জনবলের একটি অর্গোনাবেল তৈরি করে পাঠিয়েছি। এটা অনুমোদন হয়ে গেলে এ সমস্যার সমাধান হবে।

আ জ ম নাছির বলেন, আমরা প্রকল্প গ্রহণ করেছি। ৩৯৫ কোটি টাকা সরকারের প্রকল্পে চসিকের ম্যাচিং ফান্ড। আগের মেয়রের আমলের ৩০০ কোটি দেনার মধ্যে ২৫০ কোটি টাকা পরিশোধ করেছি। আমরা কিছু হাইড করছি না। বিরোধিতার কারণে বিরোধিতা সমাজকে ক্ষতি করছে। বিভক্তি-বিভাজন এগিয়ে যাওয়ার পথে অন্তরায় সৃষ্টি করছে।

অনুষ্ঠানে মেয়র আজম নাছির উদ্দীনকে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা। এছাড়াও সম্মাননা জানানো হয় ৪১টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের। প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামসুদ্দোহার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মফিদুল আলম, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল সোহেল আহমদ, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের মহামারীর মধ্যে নির্ধারিত সময়ে ভোট করতে না পারায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে প্রশাসক নিয়োগ দিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজনকে এই সিটির প্রশাসকের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

হাটহাজারীর ঢেউ!

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

কবিতা

ভালোবাসা

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

আল্লামা শফী আর নেই

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাসে আটকে রেখে গণধর্ষণ

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত