প্রতিমন্ত্রীর বাসা-ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানেও ভূতুড়ে বিল!

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন ৫ জুলাই ২০২০, রোববার, ৭:৫৪

বিদ্যুতের ভূতুড়ে বিলের থাবা পড়েছে খোঁদ বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদসহ এ বিভাগের বড় বড় কর্মকর্তার বাসা ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানেও। অতিরিক্ত বিল এসেছে বন্ধ থাকা প্রতিষ্ঠানেও। তবে সারাদেশে কত সংখ্যক গ্রাহক ভূতুড়ে বিলের খপ্পরে পড়েছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এদিকে সারা দেশে অতিরিক্ত বিলের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিদ্যুৎ বিভাগ গঠিত টাস্কফোর্স প্রায় তিনশ’ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করে। কমিটির সুপারিশের প্রেক্ষিতে ৪ কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্তও করা হয়।      

শুধু প্রতিমন্ত্রীর বাসাবাড়িতেই নয়, বিদ্যুৎ বিভাগের প্রতিষ্ঠান পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন, পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) মইন উদ্দিন, বিদ্যুৎ বিভাগের যুগ্ম সচিব পর্যায়ের চারজন কর্মকর্তাসহ সরকারের শীর্ষ কর্মকর্তাদের বাসাবাড়িতে ভুতুড়ে বিল এসেছে।

এ ব্যাপারে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে মার্চ থেকে। বন্ধ থাকা অফিসে ভূতুড়ে বিল এসেছে। আমার বাসায়ও এসেছে।

গতকাল শনিবার প্রতিমন্ত্রী আরো বলেছিলেন, শনিবার পর্যন্ত চার লাখের বেশি গ্রাহকের বাড়তি বিলের সমস্যার সমাধান করা হয়েছে। বাড়তি বিল সমন্বয় করতে যারা ব্যর্থ হয়েছেন এবং বাড়তি বিলের জন্য যারা দায়ী, তাদের শনাক্ত করতে বিদ্যুৎ বিভাগ একটি টাস্কফোর্স গঠন করেছিল।
সেই কমিটির প্রতিবেদনে তিনশ’ ব্যক্তিকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এরই মধ্যে ডিপিডিসির বেশ কিছু কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বিলের অতিরিক্ত বোঝা প্রসঙ্গে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব সুলতান আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, কোনো ব্যক্তিকে বাড়তি বিল দিতে হবে না। কোনো গ্রাহক যদি মনে করেন, তার বাড়তি বিল এসেছে, অভিযোগ করলেই সমস্যার সমাধান করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে প্রায় সবারই সমাধান করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০২০-০৭-০৫ ২০:১১:০৫

I hope now he will realize the robbers and robberies. The distribution companies from top to bottom from billing clerks to top level officers are involved. Who instruct to reap the people to provide them bribes.

Mojur

২০২০-০৭-০৫ ২০:১৯:০০

যারা বিদ্যুৎ বিল করে, সবাই জড়িত এইসব ভূয়া বিল এর সাথে। কত টাকা এইভাবে ভুতুড়ে বিল দিয়ে নিয়েছে তার হিসাব কে দিবে?

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণ পুনর্গঠনের সময় বাড়ল

৯ আগস্ট ২০২০

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকদের ঋণ পুনর্গঠনের সময় বৃদ্ধি করলো বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন থেকে ঋণ পুনর্গঠনে আগের ...

লাখো শ্রমিককে কুয়েত ছাড়তে হচ্ছে

২০ হাজার শ্রমিক থেকে পাপুলের আয় ১৪০০ কোটি

৯ আগস্ট ২০২০

কবিতা

আবার ফিরে আসবো

৯ আগস্ট ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত