করোনা চিকিৎসা

বেশিরভাগ বেসরকারি হাসপাতালে প্রস্তুতি নেই

শুভ্র দেব

প্রথম পাতা ৩০ মে ২০২০, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৪৭

করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য প্রস্তুত নয় দেশের বেশিরভাগ বেসরকারি হাসপাতাল। কবে নাগাদ এসব হাসপাতাল সেবার জন্য প্রস্তুত হবে সে বিষয়ে সঠিক কোনো তথ্য দিতে পারেনি সংশ্লিষ্টরা। আর যে কয়টি হাসপাতালে করোনা রোগীদের সেবা দেয়া হচ্ছে সেখানে রয়েছে আইসোলেশন শয্যা সংকট।  সেখানে
পুরাতন রোগীরা ছাড়পত্র না পেলে নতুন রোগী ভর্তি নেয়া সম্ভব হচ্ছে না।  করোনা রোগীদের আইসিইউ, ভেন্টিলেশনসহ যে ধরনের সাপোর্ট দেয়া দরকার সেটিও তারা ভালোভাবে দিতে পারছে না। গত ২৪শে মে সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে দেশের সকল সরকারি বেসরকারি হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে দেশের সকল সরকারি হাসপাতাল, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিকদের কাছে চিঠি পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ।
চিঠিতে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন দেশের করোনা রোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থা পর্যালোচনা করেছেন। তারা কোভিড-১৯ এবং নন কোভিড রোগীদের একই হাসপাতালের ভিন্ন ভিন্ন অংশে স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এ অবস্থায় বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রস্তাব অনুযায়ী কোভিড এবং নন-কোভিড রোগীদের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ৫০ শয্যা ও তার বেশি শয্যাবিশিষ্ট সকল সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে কোভিড ও নন কোভিড রোগীদের চিকিৎসার জন্য পৃথক ব্যবস্থা চালুর নির্দেশ দেয়া হলো।
গতকাল ঢাকার বড় ৯টি বেসরকারি হাসপাতালে যোগাযোগ করে তিনটি হাসপাতালে করোনা রোগীদের ভর্তি নেয়া হয় বলে জানা গেছে।
এরমধ্যে স্কয়ার হাসপাতাল, হলি ফ্যামেলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও গ্রীন লাইফ হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হয়।
গ্রীণ লাইফ হাসপাতালের কাস্টমার কেয়ারের হাসান বলেন, করোনা রোগী ভর্তি নেয়া হচ্ছে। তবে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক যদি ভর্তি দেন তবেই ভর্তি হতে পারবেন। কারণ আমরা রোগীদের অনেক সাপোর্ট দিতে পারছি না। ৩/৪ দিন ধরে আইসিইউ, এইচডিইউ শয্যায় সিট নাই। এছাড়া আমাদের অন্যান্য সিটেরও সংকট রয়েছে। কারণ একটি মাত্র ফ্লোরে করোনা রোগীদের সেবা দেয়া হচ্ছে। অন্যান্য ফ্লোরে নন কোভিড রোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থা রয়েছে।  
হলি ফ্যামেলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের নার্স নাম প্রকাশ না করে বলেন, করোনা রোগী ভর্তি নেয়া হচ্ছে তবে এখন কোনো সিট খালি নাই। কবে সিট খালি হবে সেটা জানি না। তিনি জানান, ১৭ই মে থেকে এই হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। পাশাপাশি সাধারণ রোগীদেরও চিকিৎসা দেয়া হয়।
মিরপুরের ডেলটা হাসপাতালের নিপু হাওলাদার বলেন, ডেলটায় করোনা পজিটিভ কোনো রোগী ভর্তি করা হয় না। এছাড়া এই হাসপাতালে করোনা টেস্টও হয় না। ইনসাফ বারাকাহ কিডনি ও জেনারেল হাসপাতালের অভ্যর্থনাকর্মী আব্দুল কাদের বলেন, করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য আমাদের কোনো ইউনিট তৈরি হয়নি। ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কাস্টমার কেয়ারের রাজু বলেন, জুন মাসের শুরুতেই করোনা রোগীদের চিকিৎসা শুরু হবে। সেজন্য হাসপাতালকে সেভাবেই প্রস্তুত করা হচ্ছে। করোনার পাশাপাশি  সাধারণ রোগীরাও চিকিৎসা পাবে।
ইবনে সিনা স্পেশালাইজড হাসপাতালের কাস্টমার কেয়ার কর্মকর্তা সাইফুল্লাহ বলেন, করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেয়া আমাদের জন্য কঠিন। কারণ একশর উপরে সাধারণ রোগী ভর্তি রয়েছে তারা সমস্যা করে। আর আলাদা করে চিকিৎসার কোনো সুযোগ নাই। এছাড়া হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অনেকেই অসুস্থ। তাদের কেই আইসোলেশনে আবার কেউ আইসিইউতে আছেন। তাই এখনি কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া যাচ্ছে না।

আপনার মতামত দিন

প্রথম পাতা অন্যান্য খবর

ক রো না কা ল

ঘরে ঘরে টানাটানি

৬ জুলাই ২০২০

বিশ্বে ১ দিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ

৬ জুলাই ২০২০

মহামারি শুরুর পর থেকে এযাবৎকালের মধ্যে একদিন বা ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে বিশ্বে রেকর্ড পরিমাণ মানুষ ...

ভ্যাট জটিলতা

ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট বন্ধের হুঁশিয়ারি

৫ জুলাই ২০২০

ভ্যাট জটিলতার সমাধান না হলে সীমিত আকারে সারা দেশে ইন্টারনেট বন্ধ করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ব্রডব্যান্ড ...

সুখবর দিলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

৫ জুলাই ২০২০

শিগগিরই কোভিড-১৯ চিকিৎসায় কার্যকরী ওষুধ আবিষ্কারের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থাটির প্রধান ...

আমেরিকায় বিয়ে, চট্টগ্রামে করোনাযোদ্ধাদের আপ্যায়ন

৫ জুলাই ২০২০

আমেরিকায় দিলেন মেয়ের বিয়ে। আর সেই বিয়ের ভোজন হলো চট্টগ্রামের করোনা হাসপাতালে। করোনাযোদ্ধা ও আক্রান্তদের ...



প্রথম পাতা সর্বাধিক পঠিত