আইসোলেশন থেকে আর ফেরা হলো না তার!

স্টাফ রিপোর্টার

শেষের পাতা ২৯ মে ২০২০, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৫২

করোনা সন্দেহে ছিল ইউনাইটেড হাসপাতালের আইসোলেশনে। আমরা অপেক্ষা করছিলাম করোনা টেস্টের ফলাফলের জন্য। ফলাফল ঠিকই নেগেটিভ এলো। আইসোলেশন থেকে ভাই আর ফিরে এলো না। তাকে আগুনে পুড়ে মরতে হলো। কথাগুলো বলছিলেন, নিহত লিটনের বড় ভাই রইসুল আজম ডাবলু।
গত ২৭শে মে রাতে ইউনাইটেড হাসপাতালে অগ্নিকান্ডে মারা যান রিয়াজুল আলম লিটন। গতকাল  ভোরে স্বজনরা তার লাশ  গ্রামের বাড়ি দিনাজপুরের বীরগঞ্জ নিয়ে যান।
দুপুর ১২টার দিকে লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছে। জানাজা শেষে দুপুরেই পারিবারিক কবরস্থানে লাশ দাফন করা হয়। এর আগে জ্বর নিয়েই গুলশানের একটি বায়িং হাউজে অফিস করছিলেন রিয়াজুল আলম লিটন। করোনা সন্দেহে সহকর্মীরা পরীক্ষার জন্য নিয়ে যান পাশের ইউনাইটেড হাসপাতালে। করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা নিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি রাখেন লিটনকে। অপেক্ষা করছিলেন পরীক্ষার ফলের জন্য। পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছিল ঠিকই, কিন্তু হাসপাতালের আইসোলেশন থেকে আর ফেরা হলো তার।  লিটনের বড় ভাই জানান, স্ত্রী ফৌজিয়া আক্তার জেমি ও সাত বছরের একমাত্র সন্তান আসমাইন ফিয়াজকে নিয়ে শ্যামলী এলাকায় থাকতেন। বিদেশি একটি বায়িং হাউজের কান্ট্রি ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করতেন লিটন। গত বুধবার অফিসে যাওয়ার পর শরীরে তাপমাত্রা একটু বেশি হওয়ায় করোনা পরীক্ষা করতে তিনি হাসপাতালে যান। বিকাল ৩টার দিকে তার শরীর  থেকে নমুনা নিয়ে তাকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।
এদিকে সংশ্লিষ্টদের সূত্রে জানাগেছে, বুধবার রাতে ইউনাইটেড হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটে। ওই ইউনিটে এয়ারকুলার মেশিনে শর্টসার্কিট হয়ে অগ্নিকান্ডের সূচনা হয়। আইসোলেশন ইউনিটে অনেক দাহ্য পদার্থ ছিল। এই কারণে দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এতে  সেখানে থাকা পাঁচ জন রোগীর মৃত্যু হয়। তাদের মধ্যে তিন জন করোনা পজিটিভ ছিলেন। পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী বলেন, নিহতদের মধ্যে যারা করোনা পজিটিভ ছিলেন, আইইডিসিআর-এর প্রটোকল অনুযায়ী তাদের লাশ দাফনের জন্য ব্যবস্থা  নেয়া হয়েছে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

আবুল খায়ের মোহাম্মদ

২০২০-০৫-২৮ ১৮:২৭:৩৭

আল্লাহতালার কাছে দোয়া যাতে তিনি আগুনে নিহত সবাইকে শাহাদাতের মর্যাদা দান করেন এবং তাদের কবরকে জান্নাতের বাগান বানিয়ে দেন। একই সাথে আল্লাহতালার কাছে আরও প্রার্থনা যেন উনি নিহতদের পরিবার ও আত্মীয়স্বজনদের দুনিয়া ও আখেরাতে হেফাজত করুন।

আপনার মতামত দিন

শেষের পাতা অন্যান্য খবর

ধর্ষক আজাদ গ্রেপ্তার

যে কারণে ধর্ষিতার ভয়

৬ জুলাই ২০২০

লকডাউনের সুফল

উত্তর কাট্টলী এখন ইয়েলো জোনে

৬ জুলাই ২০২০



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত