আম্ফান কেড়ে নিল কৃষকের  স্বপ্ন       

মির্জাগঞ্জ(পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

বাংলারজমিন ২৩ মে ২০২০, শনিবার

মাঠে মাঠে ভরা   ছিল কৃষকের  শস্য ও ফসল। স্বপ্ন  ও ছিল অনেক। কেউ ক্ষেতে চাষ করেছিল মরিচ, বাদাম  ডাল ও আলু। কেউ  বপন করেছে আউশধানের বীজ । আবার কারও কারও ছিল সবজি ভরা ক্ষেত আর বরজে ঝুলছিল পান পাতা। আশা ছিল বুক ভরা। এসব ফসল ঘর তুলবে। ন্যায্য দামে বিক্রি করে লাভবান হবে।
কিন্তু কৃষকের সে আশা আর পূরণ হলো না।    পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে কৃষকের সে স্বপ্ন কেড়ে নিল ঘূর্ণিঝড়" আম্ফান"। ঘরে আর আনা হলো ফসল পানিতেই তলিয়ে রইল মাঠে।ডুবে গেলে কৃষকের আশা। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় "আম্ফান" এর প্রভাবে পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যায় আবহাওয়া অধিদপ্তর। গত ২০ মে বুধবার রাতে উপকূলে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড়টি। এর প্রভাবে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে পায়রা নদীর পানি ৫-৭ ফুট উচ্চতায় বৃদ্ধি পায়। ফলে তীব্র স্রোতে তোপে উপজেলার গোলখালী,মির্জাগঞ্জ মাজার এলাকা, পিঁপড়াখালী, সু্ন্দ্র ও রামপুরসহ বিভিন্ন বেরিবাঁধ বিধ্বস্ত হয়ে ওই সব এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয় এবং তলিয়ে যায় ফসলের মাঠ। এতে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হবে ফসলের এমন কথা বলে ভুক্তভোগী কৃষকরা। ২- ৪ দিন এভাবে পানিবন্দি থাকলে হয়তো মাঠেই পঁচে পানিতে ভেসে যেতে পারে ফসলে এমন আশঙ্কা করছে কৃষকরা। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানাযায়, এবছর উপজেলার ৬ টি ইউনিয়নে ১১ হাজার ১ শত ৫ ০হেক্টর জমিতে ফসল চাষ করেছেন কৃষক । ঘূর্ণিঝড়ের ফলে পানিতে প্লাবিত রয়েছে ১৫ শত হেক্টর জমির ফসল। তার মধ্যে ১০০ হেক্টর আউশধান ,  ১০০ হেক্টর চিনাবাদাম ,  ৩০০ হেক্টর মরিচ , ১০০ হেক্টর পান  ও  ৪৫০ হেক্টর  জমির  সবজি সহ মোট ১৫ শত হেক্টর জমির  ফসল পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে কৃষকের প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতি হতে পারে বলে উপজেলা কৃষি বিভাগ জানায়। উপজেলার ঘটকের আন্দুয়া গ্রামের কৃষক মোঃ সেলিম বলেন,আম্ফানের ফলে বেরিবাঁধ ভেঙে পানিতে আমাদের ফসলের ক্ষেত তলিয়ে গেছে । মুগ ডাল ঘরে তুললেও মরিচ ও বাদাম  ক্ষেতে রয়ে গেছে। সব বাদাম ও মরিচগুলো নষ্ট হয়ে যাবে। এত ক্ষতি কী দিয়ে পূরণ করবো।উপজেলার  পশ্চিম সুবিদখালী গ্রামের কৃষক মোঃ আঃ জব্বার বলেন, পানি ঢুকে সব আউশের বীজ তলিয়ে গেছে। পানি না কমলে আউশের বীজতলা গুলো শেষ হয়ে যাবে। ধার করে বীজ ক্রয় করে বপন করছি । যদি বীজ গুলো পঁচে যায় তাহলে কী রোপন করবো? আর বীজ রোপন না করতে পারলে ধান পামু কই? কী দিয়া ধারের টাকা শোধ করমু? বউ পোলা পান লইয়া তো না খাইয়া থাহা লাগবে। মির্জাগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ আরাফাত হোসেন জানান, ঘূর্ণিঝড়ের পূর্বেই কৃষক তার মাঠের  অধিকাংশ বাদাম, মুগডাল ও মরিচ ঘরে তুলেছে। কিন্তু আউশের বীজ তলা পানিতে পানিতে সম্পূর্ণভাবে তলিয়ে গেছে। এভাবে কিছু দিন পানি থাকলে আউশের বীজতলার ব্যাপক ক্ষতি হবে।তবে দ্রুত পানি সরিয়ে নেওয়া জন্য আমরা কৃষকদের বিভিন্নভাবে পরামর্শ ও সহায়তা করছি।

আপনার মতামত দিন

বাংলারজমিন অন্যান্য খবর

মৃত্যুতে আবারো শীর্ষে চট্টগ্রাম

৬ জুন ২০২০

একদিনের মৃত্যুতে শুক্রবার আবারও শীর্ষে উঠে এলো চট্টগ্রাম। সারাদেশে ৩০ জনের মধ্যে চট্টগ্রামে এদিন মৃতের ...

করোনায় সরাইলের ২ ব্যক্তির মৃত্যু

৬ জুন ২০২০

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সরাইলের মোহাম্মদ কুদ্দুছ মিনহাজ (৪০) ও মো. খালেদুর রহমান বাবলু (৪২) ...

ছাতকে করোনায় মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু

৬ জুন ২০২০

ছাতকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার রাতে সিলেটের একটি ক্লিনিকে মৃত্যুবরণ করেন ...

পাকুন্দিয়ায় স্বাস্থ্যকর্মীসহ আরো ২ জনের করোনা শনাক্ত

৬ জুন ২০২০

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় স্বাস্থ্যকর্মীসহ আরো দুজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের জীবাণু শনাক্ত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে ...

মাগুরায় ‘ব্যানানা ম্যাংগো’ চাষে সাফল্য

৬ জুন ২০২০

মাগুরায় হর্টি কালচার সেন্টারে ব্যানানা ম্যাংগো চাষে সাফল্য এসেছে। নতুন জাতের এই আম দেখতে অবিকল ...

সৌদিতে করোনা উপসর্গে কালীগঞ্জের যুবকের মৃত্যু

৬ জুন ২০২০

করোনা উপসর্গ নিয়ে  সৌদি আরবে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের এক যুবক মারা গেছেন। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ...

পাবনায় একই পরিবারের ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

৬ জুন ২০২০

পাবনা শহরের দিলালপুর মহল্লার একটি বাসা থেকে একই পরিবারের ৩ জনের মরদেহ পাওয়া গেছে। পুলিশের ...

করোনার উপসর্গ নিয়ে ৭ জনের মৃত্যু

৬ জুন ২০২০

ফেনীতে ২ ফেনী প্রতিনিধি: ফেনীতে জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে দুই বৃদ্ধের মৃত্যু ...

রাতভর বিদ্যুৎবিহীন সরাইল

৬ জুন ২০২০

গত বৃহস্পতিবার রাতভর বিদ্যুৎবিহীন ছিল গোটা সরাইল। এমনিতে জ্যৈষ্ঠ মাসের ভ্যাপ্‌সা গরমে অতিষ্ঠ ছিল জনজীবন। ...

মাধবপুর পৌরসভার ২শ’ গজ দূরে জলাবদ্ধতা, ভোগান্তি

৬ জুন ২০২০

হবিগঞ্জের মাধবপুর পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণির পৌরসভা হলেও সেবা থেকে বঞ্চিত নাগরিকরা। প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর মাধবপুর ...



বাংলারজমিন সর্বাধিক পঠিত