করোনা আক্রান্তের ৮০ শতাংশই কলকাতার

কলকাতা প্রতিনিধি

ভারত ২৫ এপ্রিল ২০২০, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:১৯

পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতাই রাজ্যে করোনা সংক্রমণের প্রধান কেন্দ্র হয়ে উঠেছে। রাজ্যের চারটি হটস্পট জেলার অন্যতম হল কলকাতা। রাজ্যের হিসাব অনুযায়ী শুক্রবার পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫৪৫ জন। এদিনও ৫৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বলে শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৮। তবে এদিন সংক্রমণের খবর এসেছে কলকাতা, হুগলি, উত্তর ২৪ পরগণা, পূর্ব বর্ধমান এবং পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর। তবে প্রশাসন কলকাতা নিয়ে যে চিন্তিত তা স্বীকার করে নিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। প্রশাসনের পক্ষ থেকে মেনে নেয়া হয়েছে যে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা একটা বড় চ্যালেঞ্জ মহানগরে।
মুখ্যসচিব কার্যত এটাও মেনে নিয়েছেন, আগামী ৩ মে তারিখ যদি লকডাউন উঠে যায়, তাহলে বিপদে পড়ে যাবে পশ্চিমবঙ্গ। কলকাতার বুকে রয়েছে বেশ কয়েকটি ঘনবসতিপূর্ণ বস্তি। এই বস্তিগুলি থেকে প্রতিদিন সংক্রমণের খবর আসছে। এছাড়াও বড় আবাসন থেকে শুরু করে সাধারণ বাড়িতেও করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। ইতিমধ্যেই কলকাতা পুরসভার অন্তর্গত এলাকায় ৫০টির ওপর কনটেনমেন্ট জোন তৈরী করা হয়েছে। কলকাতার ১২৩টি রাস্তাকে অবরুদ্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে বাড়ি ও বস্তির জন্য ভিন্ন নীতি নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। কলকাতার উত্তর, মধ্য এবং দক্ষিণ সব জায়গাতেই কন্টেনমেন্ট জোন তৈরী করা হয়েছে। সেইসব জায়গায় কাউকেই বাড়ি থেকে বেরোতে দেয়া হচ্ছে না। তবে এই সব এলাকার অনেক জায়গাতেই কিছুদিন আগে পর্যন্ত লকডাউন মানা হচ্ছিল না বলে কেন্দ্রীয় সরকার চিঠি দিয়ে রাজ্যকে সতর্ক করেছিল। কিন্ত যত দিন যাচ্ছে কলকাতার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

আপনার মতামত দিন

ভারত অন্যান্য খবর

আনলক হওয়ার প্রথম দিনেই কলকাতায় মানুষ ঝুঁকি নিয়ে বেরিয়ে পড়েছেন, প্রবল যানজটে দুর্ভোগ মানুষের

১ জুন ২০২০

একদিকে কনটেনমেন্ট জোনের সংখ্যা বাড়ছে, অন্যদিকে জনজীবন স্বাভাবিক করার তাগিদে অফিস থেকে কলকারখানা, শপিং মল ...



ভারত সর্বাধিক পঠিত