সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী প্রতি ব্যয় কত?

পিয়াস সরকার

এক্সক্লুসিভ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:১৭

সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী প্রতি ব্যয় কত? ইজিসির বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী সর্বোচ্চ ব্যয় শেখ মুজিব মেরিটাইম ইউনিভার্সিটিতে। আর সর্বনিম্ন ব্যয় হচ্ছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অভিভাবক বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)-এর প্রকাশিত সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদনে ব্যয়ের হিসাব তুলে ধরা হয়।

ওই প্রতিবেদনে দেখা যায়, ২০১৮ সালে ৩৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় অপেক্ষা বিজ্ঞান, চিকিৎসা, প্রকৌশল ও কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গড় ব্যয় বেশি। শেখ মুজিব মেরিটাইম ইউনিভার্সিটি’র শিক্ষার্থী প্রতি মাথাপিছু বার্ষিক ব্যয় সর্বাধিক। এখানে শিক্ষার্থী প্রতি ব্যয় হয় ৩ লাখ ৯৯ হাজার ৭০২ টাকা ২৬ পয়সা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যয় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩ লাখ ৮০ হাজার ৯৫৪ টাকা। তৃতীয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩ লাখ ৭৮ হাজার ৩৮৫ টাকা।

এছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী প্রতি ব্যয় ১ লাখ ৮৭ হাজার ৯০২ টাকা।
বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ২ লাখ ৩২ হাজার ২৪২ টাকা ৫২ পয়সা। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী প্রতি খরচ ১ লাখ ৪৭ হাজার টাকা। ২০১৭ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে শিক্ষার্থী সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে ২৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ে। কমেছে ১৩টি ও নতুনভাবে যাত্রা শুরু করে ৩টি বিশ্ববিদ্যালয়।

শিক্ষার্থী প্রতি মাথাপিছু ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে ২৩টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের। ব্যয় কমেছে ১০টি, নতুন ৪টি ও অপরিবর্তিত আছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাথাপিছু ১ লাখ ৫৫ হাজার ১৬০ টাকা। অন্যদিকে ব্যয় উল্লেখ নেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের। ইউজিসি বলছে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থীপ্রতি যা ব্যয় করা হয় সে তুলনায় জাতীয় ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যয় অনেক কম।  

বাংলাদেশে সর্বাধিক সংখ্যক শিক্ষার্থী উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে। কিন্তু এই বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর পেছনে মাথাপিছু ব্যয় মাত্র ৭৪১ টাকা ৩০ পয়সা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম ইউর্নিভার্সিটির শিক্ষার্থী প্রতি ২০১৭ সালে মাথাপিছু ব্যয় ছিলো ৪ লাখ ৬৭ হাজার ৭৮৮ টাকা। ২০১৭ সালে এই বিশ্ববিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থী ছিলো ২৪২ জন আর ২০১৮ সালে তা দাঁড়ায় ৩শ’ জনে।

অপরদিকে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭ সালে ৫ লাখ ৪০ হাজার ৭৩৩ জন শিক্ষার্থীর মাথাপিছু ব্যয় ছিলো ২ হাজার ৮৩১ টাকা ৩৩ পয়সা। যা পরের বছর হয় মাত্র ৭৪১ টাকা ৩০ পয়সা। ২০১৮ সালে শিক্ষার্থী সংখ্যা ৫ লাখ ৩৩ হাজার ৬১৫। আর জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ও অঙ্গীভুক্ত ২ হাজার ২৬৮টি কলেজের ২৭ লাখ ৮৮ হাজার ৬৬৪ জন শিক্ষার্থীরও মাথাপিছু ব্যয় মাত্র ৭৪১ টাকা ৩০ পয়সা। ২০১৮ সালের ৩৭ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২ লাখ ৮৪ হাজার ৩২২ জন শিক্ষার্থীর বিপক্ষে শিক্ষক ছিলেন ১৪ হাজার ৩২২ জন (অধিভুক্ত ও অঙ্গীভুক্ত কলেজ/মাদ্রাসা ব্যাতীত)।

শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের সংখ্যা ১:২০। কিন্তু শিক্ষার্থী প্রতি মাথাপিছু খরচের দিক থেকে তৃতীয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর অনুপাত সর্বাধিক ১:৮৩। তাদের ১ হাজার ৬৫১ জন শিক্ষার্থী আর শিক্ষক মাত্র ১৯৮ জন।

এছাড়াও দ্বিতীয় অবস্থানে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর ১:৪৫। মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুপাত ১:৪৪ ও চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় ১:৪২। অনুপাতে দিক থেকে এগিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরিটাইম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর অনুপাত ১:৭। দ্বিতীয় অবস্থানে ১:৮ সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রাম ভেটেনারি অ্যান্ড সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়। আর ২০১৮ সালে শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীর অনুপাত ১:১১। যা ২০১৭ সালে ছিলো ১:১০।

২০১৮ সালে ৩৭টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বমোট শিক্ষার্থী ছিলো ২ লাখ ৮৪ হাজার ৩২২ জন। এরমধ্যে মাত্র ৩৬ শতাংশ অর্থ্যাৎ ১ লাখ ২ হাজার ২৫৩ জন শিক্ষার্থী আবাসিক সুবিধা পেয়েছে। আর ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ হাজার ৫৫৬ জন শিক্ষকের মধ্যে ২৩ শতাংশ শিক্ষক আবাসিক সুবিধা পেয়েছেন। ৪০টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের (অধিভুক্ত ও অঙ্গীভুক্ত কলেজ/মাদ্রাসা ব্যতীত) সর্বমোট ৩৩ হাজার ২৪৪ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরর মধ্যে ৪ হাজার ৩০৪ জন আবাসিক সুবিধা পেয়েছেন।

আপনার মতামত দিন



এক্সক্লুসিভ অন্যান্য খবর

চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য হোটেল-গেস্ট হাউজে থাকার ব্যবস্থা

২৭ মার্চ ২০২০

করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় যে চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা মানুষের সেবা করে চলেছেন, তাদের হাসপাতালের নিকটবর্তী ...

সরজমিন সিলেট

যেভাবে বদলে গেল নগরের দৃশ্যপট

২৭ মার্চ ২০২০

ব্যতিক্রমী মমতা

২৭ মার্চ ২০২০

ভারতে করোনা আক্রান্ত বেড়ে ৬৪৯ মৃত্যু ১৩

২৭ মার্চ ২০২০

ভারতজুড়ে চলছে ২১ দিনের লকডাউন। এরই মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত হারে বেড়ে চলেছে। বৃহস্পতিবার ...



এক্সক্লুসিভ সর্বাধিক পঠিত