তাবিথ আউয়ালের প্রার্থিতা বাতিল চেয়ে রিট

স্টাফ রিপোর্টার

অনলাইন ২৬ জানুয়ারি ২০২০, রোববার, ৫:৫৭ | সর্বশেষ আপডেট: ৬:৫৩

নির্বাচনী হলফনামায় সম্পদের তথ্য গোপন করার অভিযোগ এনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়ালের প্রার্থিতা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। রোববার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দীন চৌধুরী মানিক এ রিট আবেদন করেন। রিটে নির্বাচন কমিশনসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে।
তিনি বলেন, আগামীকাল সোমবার  বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এ রিট শুনানি হবে। সিঙ্গাপুরে এনএফএম এনার্জি (সিঙ্গাপুর) প্রাইভেট কোম্পানি লিমিটেড নামে একটি কোম্পানিতে তিনজনের শেয়ার রয়েছে। এই তিনজন শেয়ারহোল্ডারের একজন তাবিথ আউয়াল। অন্য দু'জন তার সহযোগী। বিচারপতি মানিক আরো বলেন, তাবিথসহ তিনজন মিলে এ কোম্পানির সব শেয়ারের মালিক হয়েছেন। এ কোম্পানির মূল্য দেখানো হয়েছে ২ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের ওপর।
এনএফএম এনার্জি (সিঙ্গাপুর) প্রাইভেট কোম্পানির কথা তাবিথ আউয়াল তার হলফনামায় উল্লেখ করেননি। আইন হচ্ছে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী ও তার পরিবারের সব সদস্যের সব সম্পদ হলফনামায় দেখাতে হবে। কিন্তু তাবিথ আউয়াল তা দেখাননি।
এর আগে গত ২৩শে জানুয়ারি বিকেলে নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলামের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাবিথের প্রার্থিতা বাতিলের দাবি জানান শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। এ সময় তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বরাবর এ সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ জমা দেন। কিন্তু নির্বাচন কমিশনে দেয়া ওই আবেদনে কোনো সাড়া না পেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করলেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দীন চৌধুরী মানিক।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

এটিএম তোহা

২০২০-০১-২৬ ০৯:৫৯:০৯

এটা এখন নিশ্চিতভাবে প্রতিয়মান হয়,মানিক বিচারের নামে অবিচারই করেছেন। রাজনৈতিক মতাদর্শ পোষণ আর সক্রিয় রাজনীতি একনয়। মানিকের বর্তমান কর্মকাণ্ড বলে দেয় তিনি কখনো রাজনীতির বাইরে ছিলেন না। লক্ষকোটি আওয়ামী নেতা কর্মী থাকতে এখন অবঃ বিচারপতির এত আগ্রহ কেন তাবিথের মনোনয়নপত্র বাতিল করার? তাবিথ তথ্য গোপন করলেও পাশ বা ফেল করার পরও দুদক বা নির্বাচন কমিশনের আইনের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই তাবিথের। মানিক তার ব্যাপারে এত অস্থির কেন তা সহজেই অনুমেয়।

ফারুক

২০২০-০১-২৬ ০৭:২৬:১৮

কোন মেয়র বা কমিশনার যে কেউ হোক নির্বাচন কালীন ওদের সম্পর্কে বিস্তারিত দেখার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের । চাটুকার সামসুদ্দিন মানিক এখানে কেন চাটুকারী করিতেছে ? সে কি তার বিচারক জীবনের অপকর্মের কথা ভুলে গেছে---?

Siddique

২০২০-০১-২৬ ০৬:০৬:২২

We want our voting rights. We wants to cast our vote.....

ম আ মালিক।

২০২০-০১-২৬ ০৫:৫৭:০৬

বিচারপতি মানিক লোকটা ভাল নয়।উনার চাকুরী জীবনের ইতিহাস সমালোচিত।

মিজানুর

২০২০-০১-২৬ ০৫:৪৬:৫৭

সাবেক বিচারপতি, কোন উদ্দেশ্য দালালি?

রাহমান

২০২০-০১-২৬ ০৫:১১:৪৪

#সালা আওয়ামী পা চাটা দালাল#

আপনার মতামত দিন



অনলাইন অন্যান্য খবর

সোনারতরীর জমজমাট বনভোজন

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত