‘ফারর্মাস ব্যাংকে ডাকাতি হয়েছে, বাচ্চু একাই বেসিক ব্যাংক ধ্বংস করে দিল’

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রোববার, ১২:১২ | সর্বশেষ আপডেট: ১২:১৫

সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, আবদুল হাই বাচ্চুর মতো একটা লোকই বেসিক ব্যাংক ধ্বংস করে দিল। আর আমরাও এতে পক্ষ (পার্টি) হয়ে গেলাম। ব্যাংকটা আগে ক্ষুদ্র ও মাঝারি পর্যায়ের খাতে ঋণ দিত। আমরাই শিথিল করে দিলাম। এটা ছিল একটা বড় ভুল।

ঢাকার দৈনিক প্রথম আলো’কে দেয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি এসব কথা বলেন। আবদুল হাই বাচ্চুর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে পারলেন না কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে সাবেক এই অর্থমন্ত্রী বলেন, আমি এ ব্যাপারে কথা বলতে চাই না। তার কাছে যখন জিজ্ঞেস করা হয়, রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা ছিল বলে কি? জবাবে মুহিত বলেন, সে রকম নয়। সরাসরি রাজনীতি তিনি করতেনও না।
কিন্তু তিনি ছিলেন অন্য ধরনের রাজনীতিবিদ। বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সঙ্গে তাঁর সংযোগ ছিল এবং এগুলো তিনি ব্যবহার করেছেন। অর্থমন্ত্রী হিসেবে ব্যাংকমালিকদের সুবিধা দেয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের ইচ্ছা ছিল ব্যাংক খাতের প্রসার ঘটানো। সেই প্রসারতা অর্জন করতেই এত ব্যাংক দিয়েছি। তবে আমাদের এখানে ব্যাংকের চরিত্রটাই এমন যে একসময় এগুলো একীভূত হবে।

এ নিয়ে অবশ্য বিশেষ চিন্তার কিছু নেই। একীভূত হওয়ার আইন না থাকা নিয়ে তিনি বলেন, আসলে করপোরেট ব্যবস্থাপনায় আমরা দুর্বল। ব্যক্তি এখানে ব্যাংকের চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আর একীভূত হওয়ার ব্যবস্থা এখনো আছে। নেই দেউলিয়া আইন। একটা ভুল করেছি আমি। ফারমার্স ব্যাংককে স্বাভাবিকভাবে মরতে দেওয়া উচিত ছিল। কেন মরতে দিলেন না- এ প্রশ্নের উত্তরে আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ভয়ে। একটা মরে গেলে তার ক্রমিক প্রভাব পড়ে পুরো খাতে। এখন মনে হচ্ছে ফারমার্স ব্যাংককে মরতে দিলে অসুবিধা হতো না। ফারমার্স ব্যাংকে শুরু থেকেই ডাকাতি হয়েছে। এটা কোনো ব্যাংক ছিল না।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Moin Rahman

২০২০-০১-১৯ ১২:৫০:০০

it's totally valueless comments !!! you got long long time and you didn't follow the LAW and Responsibility!

আপনার মতামত দিন



অনলাইন অন্যান্য খবর

সংসদে প্রধানমন্ত্রী

চীনে সৃষ্ট সমস্যার কারণে বিকল্প পথ খুঁজছি

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ফের বাড়লো স্বর্ণের দাম

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বইমেলায় হুমায়রা হিমু

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

একজন সফল প্রশাসক

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত