বিজয়ের শেষ ৩ দিন পাগলা কুকুরের মতো ছিল হানাদাররা

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে

দেশ বিদেশ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, রোববার

 চট্টগ্রামে মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ের শেষ ৩ দিন পাক হানাদার বাহিনীর আচরণ ছিলো পাগলা কুকুরের মতো। রসদ ও গোলাবারুদ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এ সময় তারা ঘরে ঘরে দোকানে দোকানে লুটপাট চালায়। ‘বিজয়ের শেষ ৩ দিন কেমন ছিল চট্টগ্রাম’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় একাত্তরের স্মৃতিচারণে বীর মুক্তিযোদ্ধারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন।  শনিবার (১৪ই ডিসেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে এই গোলটেবিল আলোচনা চলে। বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) চট্টগ্রাম অফিস এই গোলটেবিল আলোচনার আয়োজন করে।  আলোচনায় মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে অংশ নেন ডা. মাহফুজুর রহমান, এবিএম খালেকুজ্জামান দাদুল, মোহাম্মদ হারিছ, আবু সাঈদ সরকার, ফেরদৌস হাফিজ খান রুমু (সিইনসি), রেজাউল করিম চৌধুরী, মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন ও মোজাফফর আহমদ প্রমুখ।
আলোচনায় মোহাম্মদ হারিছ বলেন, ৩ থেকে ১৭ই ডিসেম্বর পর্যন্ত চট্টগ্রামে ভয়াবহ যুদ্ধ হয়। এ সময় নগরীর হালিশহর, ওয়্যারলেস ও বিহারি কলোনিতে পাকিস্তানিরা যাকে ধরে নিয়ে গেছে সে আর ফিরে আসেনি। রেল দাঁড় করিয়ে বাঙালি যাত্রীদের নামিয়ে জবাই করতো তারা। আবু সাঈদ সর্দার বলেন, ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবস হলেও চট্টগ্রাম শত্রুমুক্ত হয় ১৭ই ডিসেম্বর। ১৪-১৭ই ডিসেম্বর তিনি ছিলেন আগ্রাবাদ এলাকায় মৌলভী সৈয়দের বেস ক্যামেপ।
সেখানে হঠাৎ একটি মাইক্রোবাসে দুজন বিহারিকে পাই। তাদের দেয়া তথ্যমতে নগরীর একটি হোটেল থেকে চার মেয়েকে উদ্ধার করি। কিছু অস্ত্রও পাই। এবিএম খালেকুজ্জামান দাদুল বলেন, পুরো নয় মাস চট্টগ্রামজুড়ে পাকিস্তানি সৈন্যরা ভয়ংকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। সার্কিট হাউস, পুলিশ লাইনসসহ কয়েকটি টর্চার সেল ছিল। ১৬ তারিখ সকালে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজে গিয়ে একটা ডক্যুমেন্ট পাই। সেখানে চট্টগ্রামের কারা আওয়ামী লীগ করেন এবং কাদের মারতে হবে তার লিস্ট উদ্ধার করি। পাকিস্তানের পতাকাটা নামিয়ে চট্টগ্রাম কলেজের ছাত্র শামীমসহ সেখানে বাংলাদেশের পতাকা উড়িয়ে দেই।
ফেরদৌস হাফিজ খান রুমু বলেন, রাউজানের সিইনসি সেপশাল হিসেবে দায়িত্বে ছিলাম, যুদ্ধকালীন ৭ই অক্টোবর আমরা মদুনাঘাট আক্রমণ করি। সেই সম্মুখ যুদ্ধে ৮ জন পাকিস্তানি সেনা মারা যায়। একজন মুক্তিযোদ্ধাও মারা যায়। সেই স্মৃতি এখনো আমাকে কাঁদায়।
মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন বলেন, মুক্তিযুদ্ধের শেষ তিন দিন মিরসরাইয়ের দক্ষিণাঞ্চলে ক্যামেপ অবস্থান করি। এসময় শুনছিলাম প্রচুর মিলিটারি শহর অভিমুখে যাচ্ছে। মানুষের মধ্যে আতঙ্ক, উদ্বেগ ও ভয় দুটোই ছিল। রাতে কিছু বাড়ি লুট হয়। রাজাকার আতাউস সোবহানের জল্লাদখানায় দেখেছি চারদিকে মানুষের মাথার খুলি ও রক্তের দাগ।
রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রাম শহরে ১৪ই ডিসেম্বর থেকে আতঙ্ক ছিল। আবার ভেতরে ভেতরে উল্লাসও ছিল। বোমারু বিমানে করে যৌথবাহিনী বোমা বর্ষণ করছিল। এসব বিমান দেখে ছোট ছোট বাচ্চারাও ঘরের ছাদে উঠে হাততালি দিত। জনগণের সাহস বেড়েছিল। জনগণ ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল। তাদের বদ্ধমূল ধারণা হয়েছিল বিজয় সন্নিকটে। ১৫ই ডিসেম্বর শুনতে পাই কুমিরা যুদ্ধে পাক বাহিনী পিছু হটেছে। কুমিরা ফৌজদারহাটে প্রাণপণ যুদ্ধ হয়। তাদের আশঙ্কা ছিল পাক বাহিনী শহরে ঢুকে পড়লে পরাজিত করা কঠিন হবে।
তিনি বলেন, চান্দগাঁওয়ের ইউনুস রাজাকার রাইফেল নিয়ে ঘুরতো আর বলতো হট যাও হট যাও। একদিন একজন মুক্তিযোদ্ধা মিস ফায়ার দিলে ইউনুস রাজাকার রাইফেল ফেলে দৌড় দেয়।
ডা. মাহফুজুর রহমান বলেন, চট্টগ্রামে ফৌজদারহাট, পতেঙ্গা, আমিন জুট মিল এলাকায় একযোগে শতাধিক অপারেশন হয়েছিল। ৩রা ডিসেম্বর বন্দরের অয়েল ডিপোতে বিমান আক্রমণ হয়। তখন যোগাযোগ ব্যবস্থা বলতে গেলে ছিলই না। আফসোস করতাম, হাতে যদি একটি রাইফেল থাকতো গুলি করে বিমান ফেলে দিতাম। তখন আগ্রাবাদের একটি নালায় ঢুকে নাক উঁচু করে অবস্থান নেয়। নাকের পাশ দিয়ে তখন মলমূত্রসহ আবর্জনা যাচ্ছিল।

আপনার মতামত দিন

দেশ বিদেশ অন্যান্য খবর

ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে ধানের শীষ মার্কা নিয়ে সংসদে আসতে হয়েছে- সুলতান মনসুর

২৭ জানুয়ারি ২০২০

ভাগ্যের নির্মম পরিহাসের কারণে আমাকে ধানের শীষ মার্কা নিয়ে সংসদে আসতে হয়েছে বলে মন্তব্য করেন ...

ইসরাইলে মসজিদে আগুন ও ফিলিস্তিন বিরোধী গ্রাফিতি নিয়ে উত্তেজনা

২৭ জানুয়ারি ২০২০

একটি মসজিদে আগুন ধরিয়ে দেয়ার ঘটনা থেকে বড় ধরনের উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে ইসরাইলের জেরুজালেমে। একইসঙ্গে ...

তিন ভাগের এক ভাগে নেমে এসেছে লিবিয়ার তেল উৎপাদন

২৭ জানুয়ারি ২০২০

গত এক সপ্তাহে লিবিয়ার তেল উৎপাদন কমে স্বাভাবিক উৎপাদনের তিন ভাগের এক ভাগে নেমে এসেছে। ...

ভোটার তালিকা হালনাগাদ বিল নিয়ে বাহাস

২৭ জানুয়ারি ২০২০

ভোটার তালিকা হালনাগাদ বিল নিয়ে সংসদে বাহাস হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দলীয় এমপিদের মধ্যে ...

এনআরসি পরিস্থিতি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বাংলাদেশ- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

২৭ জানুয়ারি ২০২০

ভারতের জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধন (এনআরসি) পরিকল্পনার বর্তমান পরিস্থিতি বাংলাদেশ নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ...

সিলেট-লন্ডন রুটে খুব শিগগিরই সরাসরি ফ্লাইট চালু হবে: বিমানমন্ত্রী

২৭ জানুয়ারি ২০২০

বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেছেন-  সিলেট থেকে লন্ডন খুব শিগগিরই ...

ইরানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করবেন না ট্রাম্প

২৭ জানুয়ারি ২০২০

ইরানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করবে না যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প শনিবার এক ...

সুবর্ণচরে গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলা সাক্ষীকেও বৈরী ঘোষণা রাষ্ট্রপক্ষের

২৭ জানুয়ারি ২০২০

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষে ভোট দেয়ায় ৪ সন্তানের জননীকে আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল ...

গাজীপুরে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের পর ফেসবুকে উল্লাস, ৪ ধর্ষক গ্রেপ্তার

২৭ জানুয়ারি ২০২০

প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলতে ব্যর্থ হয়ে গাজীপুরের শ্রীপুরে জন্মদিনের কথা বলে ডেকে নিয়ে অষ্টম শ্রেণির ...

পঞ্চগড়ে পাথর ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ, গুলিতে নিহত ১

২৭ জানুয়ারি ২০২০

পঞ্চগড়ে মাটির নিচ থেকে পাথর উত্তোলন করার অনুমতি দেয়ার দাবিতে মহাসড়ক অবরোধের সময় শ্রমিক-ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ...

অশোকা ও ব্র্যাক একসঙ্গে দেশের তরুণদের জন্য রোল মডেল তৈরি করবে

২৭ জানুয়ারি ২০২০

ইয়াং চেঞ্জ মেকারস কর্মসূচির বৈশ্বিক সংস্করণের জন্য প্রয়াত স্যার ফজলে হাসান আবেদ অশোকা ইয়াং চেঞ্জমেকারস- ...





দেশ বিদেশ সর্বাধিক পঠিত



রোহিঙ্গা গণহত্যা

আইসিজে’র আদেশে যা বলা হয়েছে