জমকালো আয়োজনে পর্দা উঠলো বঙ্গবন্ধু বিপিএল’র

ইশতিয়াক পারভেজ

শেষের পাতা ৮ ডিসেম্বর ২০১৯, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ২:৪৪

সকাল থেকে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে প্রচণ্ড ভিড়। টিকিটের জন্য হন্যে হয়ে ঘুরছেন দর্শকরা। সেই সঙ্গে উৎসুক জনতার  চোখ খুঁজে ফিরছে সালমান-ক্যাটরিনাকে। দুপুর হতেই ভিড় বাড়তে থাকে। বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থায়ও কর্মীরা হিমশিম খাচ্ছিল তাদের সামলাতে। হ্যাঁ, ‘বঙ্গবন্ধু’ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ টি-টোয়েন্টির (বিপিএল) উদ্বোধন ঘিরেই প্রায় উত্তাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম। বিকাল পাঁচটায় অনুষ্ঠান শুরুর কথা থাকলেও এক ঘণ্টা বিলম্বে ৬টায় মঞ্চে ওঠেন ডি’রকস্টার মাইদুল ইসলাম খান শুভ, এরপর রেশমি মির্জা। কিন্তু তাদের গান যেন দর্শকদের মন ভরাতে পারছিল না।
তবে আরেক রকস্টার জেমস মঞ্চে এসে শুরু করলেন সুলতানা-বিবিয়ানা উত্তাল গান। দর্শকদের করতালি আর উল্লাসে বুঝতে বাকি রইলো না তার জন্য অপেক্ষা ছিল। তবে তিনি তার প্রথম গান শেষ না করতেই উপস্থাপক আবিদুর রেজা জুয়েলের ঘোষণা মাঠে এসে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নির্ধারিত সময়ের আগেই পৌঁছে গেছেন তিনি। এরপরই জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী পালনের বিশেষ আয়োজন ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’ এর উদ্বোধন ঘোষণা করেন তার কন্যা। সঙ্গে সঙ্গে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের আকাশ আতশবাজির রঙিন আলোয় বর্নীল হয়ে ওঠে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আজ এখানে আমরা সমবেত হয়েছি বঙ্গবন্ধু বিপিএলএর শুভ উদ্বোধনে। সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা। সবাই অনুষ্ঠান উপভোগ করুন। উদ্বোধন অনুষ্ঠানের সফলতা কামনা করে আমি বঙ্গবন্ধু বিপিএল-২০১৯ এর উদ্বোধন ঘোষণা করছি।’

প্রধানমন্ত্রী এরপর উপবেশন করেন মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের ভিআইপি বক্সে বসে।   জেমস তার দ্বিতীয় গান নিয়ে ফিরে আসেন মঞ্চে। মাকে নিয়ে তার বিখ্যাত গান- ‘সবাই বলে ওই আকাশে লুকিয়ে আছে।’ জেমসের শেষ পরিবেশনাটি ছিল তার হিন্দি সিনেমার গান ‘চল চলে আপনি ঘর।’ জেমসের গান শেষে মঞ্চে ওঠার কথা ছিল বাংলাদেশের বাউল সঙ্গীতের তারকা ও সংসদ সদস্য মমতাজের। কিন্তু তার পরিবর্তে মঞ্চে আসেন ভারতের সুরের জাদুকর সোনু নিগম। তিনি হিন্দি গান দিয়ে শুরু করলেও পরের দুটি গানে চমকে দেন সবাইকে। প্রথমে তার কণ্ঠে শোনা যায় ‘ধনে ধান্যে পুষ্পে ভরা’ বাংলাদেশের জনপ্রিয় এই গানটি। তার এই গানের সঙ্গে সঙ্গে দশর্করা উল্লাস করে ওঠেন। এটি শেষ হতেই তিনি বঙ্গন্ধুকে নিয়ে তৃতীয় গানটি পরিবেশন করেন। তার কন্ঠে শোনা যায়- শোনো, একটি মুজিবরের থেকে, লক্ষ মুজিবরের কন্ঠস্বরের ধ্বনি, প্রতিধ্বনি আকাশে বাতাসে ওঠে রণি। বাংলাদেশ আমার বাংলাদেশ।’ তার এই গানের সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও বেশ উচ্ছ্বসিত দেখায়। এরপর সোনু নিগম গেয়ে যান তার একের পর এক জনপ্রিয় হিন্দি গান। পুরোটা সময় প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনাকে বেশ হাস্যোজ্জ্বলভাবে অনুষ্ঠান উপভোগ করতে দেখা যায়।’

গতকাল বঙ্গবন্ধু বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিত হওয়ার কথা ছিল সন্ধ্যা ৭টায়। কিন্তু সবাইকে চমকে দিয়ে নির্ধারিত সময়ের ১০ মিনিট আগেই তিনি মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে উপস্থিত হন। তিনি মাঠে আসার পরপরই ভিআইপি বক্সের সামনের বারান্দা থেকে ফুলে সাজানো মঞ্চে দাঁড়িয়ে উদ্বোধন ঘোষণা করেন। আগামী ১১ই ডিসেম্বর বিপিএলের ৮ম আসরের মাঠের লড়াই শুরু হবে।  সোনু মঞ্চ মাতিয়ে যেতেই শুরু হয় আরেক ভারতীয় জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী কৈলাশ খেরের পরিবেশনা। তবে আসল প্রহর আসে যখন ভারতের সুপার স্টার ক্যাটরিনা কাইফ ও সালমান খান মঞ্চে ওঠেন। সারাদিন অপেক্ষায় থাকা, হাজার হাজার টাকায় টিকিট কেনা দর্শকরা উল্লাসে ফেটে পড়েন।
আগের দিন থেকে মিরপুর শেরেবাংলা মাঠের নিয়ন্ত্রণ চলে যায় বাংলাদেশের বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে। উদ্বোধনের দিন সকালে  গোটা মাঠ ও মঞ্চ ডগ স্কোয়াড নিয়ে চষে বেড়ায় সেনাবাহিনী, র‌্যাব ও পুলিশের বিশেষ বাহিনী। পুরো নিরাপত্তা তল্লাসি নিবীড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী এসএসএফ। কঠোর  তল্লাসির মধ্য দিয়ে দুপুর ২টা থেকে মাঠে প্রবেশ করতে শুরু করে দর্শকরা। এমনকি সংবাদকর্মীদেরও বাইরে ১ ঘণ্টার মতো আটকে রাখেন তারা।

আপনার মতামত দিন



শেষের পাতা অন্যান্য খবর

নাঈমে শেষ বিকালে স্বস্তি

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কলকাতার ডায়েরি

কলকাতায় চলবে লন্ডনের মতো ছাদ খোলা দোতলা বাস

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০



শেষের পাতা সর্বাধিক পঠিত



বৃটিশ বিজ্ঞানীর দাবি

আসছে করোনা ভাইরাসের টিকা

একুশে পদক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

ইতিহাস কেউ মুছে ফেলতে পারে না