স্কুল ব্যাগে খুশির ঝিলিক ১৫ হাজার শিক্ষার্থীর মুখে

বগুড়া প্রতিনিধি

এক্সক্লুসিভ ৩ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার

 বছরের শুরুতেই হাতে আসবে সরকারি বই। নতুন বইয়ের গন্ধে মেতে উঠবে স্কুল শিক্ষার্থীরা। সেই অপেক্ষায় দিন গুনছে তারা। পুরনো বই খাতার ইতি টানতে আর মাত্র কয়েক দিন বাকি। বার্ষিক পরীক্ষা হলেই লম্বা ছুটি। তারপরেই আবার নতুন করে শুরু নতুনত্বের সন্ধানে ছুটবে শিক্ষার্থীরা। এমন সময় আসার আগেই বগুড়ার মানবতাবাদী একজন মানুষ আব্দুল মান্নান আকন্দ এসব কোমলমতি শিক্ষার্থীদের দরবারে হাজির হয়েছেন নতুন ব্যাগ হাতে নিয়ে। নতুন বছর শুরু হওয়ার আগেই শুভেচ্ছা উপহার পেয়ে আনন্দে আত্মহারা বগুড়ার ১৫ হাজার শিশু শিক্ষার্থী।
আব্দুল মান্নান আকন্দ সমাজ সেবায় নিজেকে নিয়জিত করে ইতিমধ্যেই বগুড়ায় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়েছেন। গরিব মেধাবী শিক্ষার্থীদের সার্বিক সহযোগিতা করে তিনি বেশ সুনাম কুড়িয়েছেন। অসহায় মানুষদের খাবার এবং কাপড় বিতরণ করছেন নিয়মিত। এসবের পাশাপাশি তিনি বগুড়ার ১২২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীদের মাঝে ৩৬ হাজার খাতা বিতরণ করেছেন। নিয়মিত টিফিনও দিয়ে আসছেন তিনি এসব শিক্ষার্থীদের মাঝে। এসব কর্মকাণ্ডের সঙ্গে নতুন করে যোগ করেছেন স্কুল ব্যাগ উপহার। বগুড়ার বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১৫ হাজার শিশু শিক্ষার্থীর হাতে তিনি একটি করে ব্যাগ তুলে দিচ্ছেন। যাতে নতুন বছরের নতুন বই তার এই ব্যাগে বহন করে স্কুলে যেতে পারে সবাই। তার এই উদ্যোগকে বগুড়ার আপামত সাধারণ মানুষ সাধুবাদ জানিয়েছেন।
বগুড়ার গাবতলী উপজেলার লাঠিগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা সাবিহা সুলতানা, বগুড়া সদরের মালগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা ফাহমিদা খানম এবং সেউজগারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ইয়াসমিন পারভীন মানবজমিনকে জানান, আব্দুল মান্নান আকন্দ ব্যক্তি উদ্যোগে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনি একাধারে খাতা, কলম শ্রেণি কক্ষে ফ্যান, চেয়ার টেবিল অনেক স্কুলে দিয়েছেন। সম্প্রতি সময়ে তিনি স্কুলগুলোতে টিফিনের ব্যবস্থাও করেছেন। সেই সাথে তিনি এবার নতুন ব্যগ তুলে দিলেন শিক্ষার্থীদের হাতে। তার এই মানবিকতা বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থায় বিরাট ভূমিকা রাখবে। এসব শিক্ষকরা মনে করেন, শিক্ষার্থীরা এসব উপহার পেয়ে পড়াশুনায় আরো মনোযোগী হবে।
কথা হয় কয়েকজন শিক্ষার্থী সুরাইয়া, বীথি, রোকসানা, রশিদুল ইসলামের সাথে, তারা ব্যাগ হাতে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হয়েছে। তারা তাদের অনুভূতি প্রকাশ করে এভাবে, ‘আমরা কোন দিন ভাবতেই পারিনি কেউ আমাদের খাতা কলম ব্যাগ উপহার দেবে। দেবে দুপুরে খাবারের প্যাকেটও। তারা মান্নন আকন্দের এসব উপহার চিরদিন মনে রাখবে এবং তারাও বড় হয়ে গরিব শিক্ষার্থীদের পাশে এভাবেই দাঁড়ানোর আশা ব্যক্ত করেছে। শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়ে অনুপ্রেরণা দিতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করে সমাজসেবক আব্দুল মান্নান মানবজমিনকে জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বছরের শুরুতে নতুন বই উপহার দেবেন। সেই বই বহন করতে যাতে শিক্ষার্থীদের অসুবিধা না হয় সেজন্য তিনি ব্যগ দেয়ার উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন। তিনি মনে করেন, সামান্য এসব উপহার কোমলমতি শিক্ষার্থীদের হাতে দিতে পারলে তারা অনেক উৎসাহিত হবে। তিনি সব সময় শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার ঘোষণাও দিয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ অন্যান্য খবর

ঘরে দুই স্ত্রী রেখে পরকীয়া

আজমীরিকে ভালোবেসে জেলে ইন্সপেক্টর সালাউদ্দিন

১৬ ডিসেম্বর ২০১৯

চট্টগ্রাম-৮ উপনির্বাচন

কোটিপতি মোছলেমের সঙ্গে লড়বেন লাখপতি সুফিয়ান

১৪ ডিসেম্বর ২০১৯





আপনার মতামত দিন

এক্সক্লুসিভ সর্বাধিক পঠিত



লেবার পার্টি সরকার গঠন করবে

বৈষম্য দেখতে চাই না