মার্কিন শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তার সাক্ষ্য

ট্রাম্পের ফোনালাপ অনুচিত

মানবজমিন ডেস্ক

বিশ্বজমিন ২০ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:২৬

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে অভিশংসন প্রক্রিয়ার শুনানিতে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন তারই কয়েকজন কর্মকর্তা। মঙ্গলবার এ বিষয়ে কংগ্রেসে সাক্ষ্য দিয়েছেন মার্কিন সরকারের একজন শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা। তিনি হলেন লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলেক্সান্দার ভিন্দম্যান। প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কির মধ্যে ফোনে তিনি ‘অনুচিত’ কথাবার্তা শুনতে পেয়েছিলেন বলে সাক্ষ্য দিয়েছেন। বলেছেন, ওইসব কথা শুনে তিনি হতাশ হয়েছিলেন। তবে তার এমন বক্তব্যের সমালোচনা করা হয়েছে হোয়াইট হাউজ থেকে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলেক্সান্দার ভিন্দম্যান বলেছেন, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে রাজনৈতিক সুবিধা চেয়ে অনুচিত কথাবার্তা বলছিলেন ট্রাম্প।
তার ভাষায়, আমি যা শুনেছিলাম, নিজেই যেন তা বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। উল্লেখ্য, এই শুনানির মধ্য দিয়ে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে যে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার প্রেসিডেন্সিয়াল ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন কিনা।

মঙ্গলবার কংগ্রেসের সামনে সেনাবাহিনীর নির্ধারিত পোশাক পরে উপস্থিত হন লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলেক্সান্দার ভিন্দম্যান। ইরাক যুদ্ধে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়া তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদে সিনিয়র পদে দায়িত্ব পালন করছেন। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি ও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মধ্যে কথোপকথন নিয়ে তিনি যখন কংগ্রেসে সাক্ষ্য দিচ্ছিলেন তখন হোয়াইট হাউসের অফিসিয়াল টুইটার একাউন্টে একজন কর্মকর্তা তাকে আক্রমণ করে পোস্ট দিচ্ছিলেন। রিপাবলিকান দলের কংগ্রেস সদস্যরা লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলেক্সান্দার ভিন্দম্যানের বক্তব্য ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি তার আনুগত্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী করার জন্য প্রস্তাব নিয়ে তার দ্বারস্থ হয়েছিল ইউক্রেনের কর্মকর্তারা- এ বিষয়েও প্রশ্ন তোলা হয়েছে। জবাবে আলেক্সান্দার ভিন্দম্যান বলেছেন, প্রতিবারই আমি এমন প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছি। আমি একজন আমেরিকান।

আগামী ২০২০ সালের নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এতে ডেমোক্রেট দল থেকে যেসব প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নেমেছেন তার মধ্যে একজন পাবেন দলের মনোনয়ন। এখন পর্যন্ত সেই দৌড়ে এগিয়ে আছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। অন্যদিকে রিপাবলিকান দল থেকে দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য নির্বাচন করবেন ট্রাম্প। ফলে তিনি জো বাইডেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্ত করতে ইউক্রেনের ওপর চাপ সৃষ্টি করেন। এক্ষেত্রে ইউক্রেনকে দেয়া মার্কিন সামরিক সহায়তাকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেন ট্রাম্প। এ অভিযোগ যাচাই করছে ডেমোক্রেটরা। এ জন্য শুনানি হচ্ছে। যদি তাতে যথাযথ তথ্যপ্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে তারা ট্রাম্পকে অভিশংসিত করার পদক্ষেপ নেবে।

এরই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের ইন্টেলিজেন্স কমিটির সামনে সাক্ষ্য দেন আলেক্সান্দার ভিন্দম্যান। ইউক্রেনের কাছে ট্রাম্পের দাবিকে অনুচিত অনুরোধ বলে আখ্যায়িত করেছেন তিনি। বলেছেন, ট্রাম্প তার বিরোধী রাজনৈতিক এক নেতার বিরুদ্ধে তদন্তের দাবি করছিলেন। বিশেষ করে এক্ষেত্রে তিনি বিদেশী শক্তি ব্যবহার করছিলেন। ফলে ওই তদন্ত যে পক্ষপাতিত্বহীন হবে না তা নিয়ে সংশয় ছিল। আর এমন তদন্ত যদি জনসম্মুখে প্রকাশ করা হতো তাহলে এর বড় রকম প্রভাব পড়তো।

এদিন কংগ্রেসের সকালের অধিবেশনে একই সাক্ষ্য দিয়েছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের ফরেন সার্ভিস বিষয়ক উপদেষ্টা জেনিফার উইলিয়ামস। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির সঙ্গে ২৫ শে জুলাই ট্রাম্পের কথোপকথনকে তিনি অস্বাভাবিক বলে আখ্যায়িত করেছেন। কারণ, যুক্তরাষ্ট্রের আভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে এ ইস্যুটি একটি কোন্দলের সৃষ্টি করেছে। জো বাইডেনের বিষয়ে যে রেফারেন্স দেয়া হয়েছে আমার কাছে তা রাজনৈতিক বলে মনে হয়েছে। এদিন বিকালের অধিবেশনে শুনানিতে অংশ নেন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সাবেক কর্মকর্তা টিম মরিসন ও ইউক্রেনে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক বিশেষ প্রতিনিধি কুর্ট ভলকার।

বিশ্বজমিন অন্যান্য খবর





আপনার মতামত দিন

বিশ্বজমিন সর্বাধিক পঠিত