হাসপাতাল থেকে ছাড় পেলেন অভিনেত্রী নুসরাত

কলকাতা প্রতিনিধি

এক্সক্লুসিভ ২০ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:০১

২৪ ঘণ্টা হাসপাতালের আইসিসিইউতে থেকে সোমবার সন্ধ্যার পর  অভিনেত্রী ও সাংসদ নুসরাত জাহান বাড়ি ফিরেছেন। তাকে বিশ্রামে থাকতে বলা হয়েছে। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় রোববার রাতে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি। ওই রাতে প্রবল শ্বাসকষ্ট শুরু হওয়ায় নুসরাতকে দ্রুত ইস্টার্ন বাইপাসের ধারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরেই শ্বাসকষ্টের সমস্যা রয়েছে নুসরাতের। রোববার নুসরাতের স্বামী নিখিলের জন্মদিন ছিল। ইনস্ট্রাগ্রামে নিখিলকে নিয়ে রোমান্টিক পোস্টও  দিয়েছিলেন তিনি। রাতে নুসরাতের শ্বাসকষ্টের সমস্যা গুরুতর হতেই তাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল হাসপাতালে।
রোববার নুসরাত জাহান একসঙ্গে অতিরিক্ত ওষুধ  খেয়ে ফেলার কারণেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। হাসপাতালের তরফে নিয়ম  মেনে ফুলবাগান থানায় তার ‘ড্রাগ ওভারডোজ’ নিয়ে রিপোর্টও করা হয়েছে। তবে সাংসদের ঘনিষ্ঠ বন্ধুবান্ধবরা সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করেছেন, এটা আসলে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা। হোয়াটসঅ্যাপে টিম নুসরাত জাহান নামে জানানো হয়, মাঝেমধ্যেই শ্বাসকষ্টে ভোগেন নুসরাত।  সেটাই আবার বেড়েছে। হঠাৎ করে নুসরাতের শারীরিক অসুস্থতা উদ্বেগ বাড়িয়েছে সকল অনুরাগীর। পরিবারের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত ওষুধ খাওয়াকে গুজব বলেই চিহ্নিত করা হয়েছে। গত লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের বসিরহাট কেন্দ্র থেকে নুসরাত তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে লোকসভায় নির্বাচিত হয়েছেন। এরপরেই কলকাতার এক বস্ত্র ব্যবসায়ীকে তিনি বিয়ে করেন। বর্তমানে ‘অসুর’ ছবির ডাবিংয়ের কাজে ব্যস্ত ছিলেন তিনি। তাছাড়া নির্বাচনী কেন্দ্রে যাতায়াতের ধকলও ছিল। সোমবারই তার সংসদে যোগ দেয়ার কথা ছিল। তবে জানা গেছে, আজ মঙ্গলবার তিনি দিল্লি যাবেন।

এক্সক্লুসিভ অন্যান্য খবর

চট্টগ্রাম-৮ উপনির্বাচন

কোটিপতি মোছলেমের সঙ্গে লড়বেন লাখপতি সুফিয়ান

১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

তীব্র প্রতিবাদ সত্ত্বেও নাগরিকত্ব বিলে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর

১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

সংসদের দুই কক্ষে পাস হওয়া বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে আইনে পরিণত হয়েছে। ...

দ্য টাইমসের প্রতিবেদন

জেনারেলদের দায় নিজের কাঁধে তুলে নিলেন সুচি

১৩ ডিসেম্বর ২০১৯





আপনার মতামত দিন

এক্সক্লুসিভ সর্বাধিক পঠিত



লেবার পার্টি সরকার গঠন করবে

বৈষম্য দেখতে চাই না