গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর স্বামীকে হত্যা

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ১৯ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:৫৬
এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর গাছে বেঁধে নির্যাতন চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুধু তাই নয়, ওই গৃহবধূর স্বামীকে হত্যা করে লাশ গাছে ঝুলিয়ে রেখে তা আত্মহত্যা বলে প্রচারও করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে সদর উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর গ্রামে।

শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটলেও সোমবার রাতে গণমাধ্যমকর্মীদের সহযোগিতায় ওই গৃহবধূকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় নির্যাতিতা গৃহবধূ ওই গ্রামের ছানোয়ার হোসেন, শাওন ও রফিজ উদ্দিন নামে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। এদের মধ্যে শাওনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। জামালপুর সদর থানার ওসি মো. সালেমুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কাঠমিস্ত্রির স্ত্রী নির্যাতিতা ওই নারী সাংবাদিকদের বলেন, শুক্রবার রাত ৮টায় তিনি ঘরের বাইরে নলকূপ থেকে পানি নেয়ার সময় ছানোয়ার, শাওন ও রফিজ তাকে মুখ চেপে ধরে পাশের জঙ্গলে নিয়ে যায়।
এরপর তিনজনই তাকে ধর্ষণ করে। তখন তার স্বামী বাজার থেকে ফিরলে তাকে আটকায় ওই দুর্বৃত্তরা। তাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে তার স্বামীকে হত্যার পর বাড়ির পাশে অন্য একটি গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা বলে প্রচার করে।

শনিবার সকালে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই গৃহবধূর স্বামীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায় এবং একটি অপমৃত্যুর মামলা করে। কিন্তু ওই গৃহবধূকে হাসপাতালে ভর্তি বা নির্যাতনের ঘটনায় কোনও মামলায় নেয়নি পুলিশ।

নির্যাতিতদের পরিবারের অভিযোগ, এলাকার প্রভাশালীরা ধর্ষণকারীদের পক্ষ  নেয়।

সোমবার রাতে ওই গৃহবধূকে নিয়ে জামালপুর প্রেস ক্লাবে হাজির হন তার শ্বশুর। তখন গণমাধ্যমকর্মীদের সহযোগিতায় তাকে রাতেই জামালপুর  জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগে দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক হাসানুল বারী শিশির সাংবাদিকদের বলেন, নির্যাতিত ওই গৃহবধূর দেহের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন রয়েছে। আজ তার ডাক্তারি পরীক্ষা হবে।

ওই গৃহবধূর মামা শ্বশুর আমির খান অভিযোগ করেন, থানায় মামলা করার পর শ্রীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল হক ফনি মোবাইলে ফোন করে তাদের  দেখে নেয়ার হুমকি দেন। এজন্য তারা নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে। এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জামালপুর সদর থানার ওসি সালেমুজ্জামান বলেন, নির্যাতিত গৃহবধূ বাদী হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে পুলিশ গভীর রাতে শাওন নামে এক আসামিকে মধুপুর থেকে গ্রেপ্তার করে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Reza

২০১৯-১১-১৯ ১৫:৫৩:০৯

অরাজকতার চরম পর্যায়ে পৌঁছিয়েছে দেশ ! ধর্ষণ এবং সম্ভাব্য প্রতিবাদকারীকে হত্যা,পুলিশে মামলা না নেয়া,অপরাধীর উল্টো হুমকি,চরম অপরাধ করেও জামিন পাওয়া এইগুলো সমাজে অরাজকতার প্রমান ! কতখানি স্পর্ধা হলে অপরাধ করার পর অপরাধীরা ফোনে হুমকি দেয় !অপরাধীদের সাথে জড়িত সংশ্লিষ্টদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

আপনার মতামত দিন

তৃণমূল কংগ্রেস আর একটা স্বাধীনতার আন্দোলন করবে

শ্রদ্ধা ও চোখের জলে মাহফুজুর রহমান খানকে শেষ বিদায়

সুরতহাল রিপোর্টে রুম্পার শরীরের বিভিন্নস্থানে জখম, সহপাঠীদের বিক্ষোভ, দোষীদের শাস্তি দাবি

জাগপা’র সভাপতি হলেন তাসমিয়া প্রধান

খেলতে বাধা দেয়ায় থানায় শিশুর অভিযোগ

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সারাদেশে যুবদলের বিক্ষোভ কাল

৩ ইইউ শক্তির চিঠি প্রত্যাখ্যান, ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি জারি রাখবে ইরান

ঘুষসহ সিভিল এভিয়েশনের কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

‘বিএনপির অস্থিরতা সৃষ্টি ক্ষমার অযোগ্য’

রুম্পার মৃত্যু ঘিরে রহস্য

‘বিএনপি স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের অংশ, আচরণেই প্রমাণ করে’

‘প্রকল্প নির্মাণের সময় পরিবেশের ক্ষতি নিয়ে আমরা কেউ ভাবিনা’

বিস্মিত ফখরুল

শ্বেত ভাল্লুকের দখলে রুশ গ্রাম

দিনে নূরের সংবাদ সম্মেলন, রাতে ‘কোপানোর’ হুমকি

ভুটানকে ১০ উইকেটে হারালো সৌম্যরা