নিউজিল্যান্ড-ইংল্যান্ড টি-টোয়েন্টি

মালানের বিধ্বংসী সেঞ্চুরিতে সিরিজে সমতা

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ৯ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার
নেপিয়ারে ব্যাট হাতে ঝড় তুললেন ডেভিড মালান। সেঞ্চুরি করলেন মাত্র ৪৮ বলে। শেষপর্যন্ত ৯ চার ও ৬ ছক্কায় ৫১ বলে ১০৩ রানে অপরাজিত থাকলেন। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২৪১/৩ তুললো ইংল্যান্ড। আর টি-টোয়েন্টিতে নিজেদের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহের ম্যাচ ইংলিশরা নিজেদের রাঙালো ৭৬ রানের বড় জয়ে। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৬.৫ ওভারে ১৬৫ রানে থেমে যায় নিউজিল্যান্ড। ইংল্যান্ডের জয়ে ৫ ম্যাচ সিরিজে এখন ২-২ সমতা। আগামীকাল অকল্যান্ডের ইডেন পার্ক ভেন্যুতে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে দু’দল।
টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের হয়ে মালানের আগে সেঞ্চুরি পেয়েছেন কেবল অ্যালেক্স হেলস।
২০১৪ সালে চট্টগ্রামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬০ বলে শতক পূর্ণ করেন ওপেনার হেলস। মালানের সেঞ্চুরিটি বলের হিসাবে এই সংস্করণে ইংল্যান্ডের পক্ষে দ্রুততম আর সবমিলিয়ে নবম দ্রুততম। অন্যদিকে ২১ বলে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করে অধিনায়ক এউইন মরগান ইংল্যান্ডের হয়ে দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েন। তৃতীয় উইকেটে মাত্র ৭৬ বলে ১৮২ রানের জুটি গড়েন মালান-মরগান। টি-টোয়েন্টিতে যেকোনো উইকেটে যা ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রানের জুটি আর সবমিলিয়ে এ সংস্করণে চতুর্থ সর্বোচ্চ।
ইংল্যান্ডের শুরুটা খুব ভালো ছিল না। দলীয় ৫৮ রানের মধ্যে দুই ওপেনারকে হারায় তারা। জনি বেয়ারস্টো ৯ বলে ৮ রান করে মিচেল স্যান্টনারের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন। আরেক ওপেনার টম ব্যান্টন ২০ বলে করেন ৩১ রান। তার উইকেটটিও নেন স্যান্টনার। এরপরই শুরু হয় মালান-মরগান তাণ্ডব। একের পর এক বল সীমানার বাইরে পাঠাতে থাকেন তারা। রেকর্ড জুটি উপহার দিয়ে ইনিংসের শেষ ওভারের চতুর্থ বলে আউট হন মরগান। ৪১ বলে সমান সাতটি করে চার-ছয়ে ৯১ রান করে ইংলিশ অধিনায়ক। ততক্ষণে টি-টোয়েন্টিতে নিজেদের সর্বোচ্চ সংগ্রহ ছাড়িয়ে গেছে ইংল্যান্ড। এর আগে ২৩০ রান পর্যন্ত তুলেছিল তারা। ২০১৬ বিশ্বকাপে মুম্বাইয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার ২২৯ রানের জবাবে ২ বল ও ২ উইকেট হাতে রেখে জেতে থ্রি লায়ন্সরা।
২৪১ রানের পাহাড় টপকাতে গিয়ে মার্টিন গাপটিল-কলিন মানরোর ব্যাটে ঝড়ো সূচনা করে নিউজিল্যান্ড। ওপেনিং জুটিতে ৪.৩ ওভারে আসে ৫৪ রান। মার্টিন গাপটিল (২৭) আউট হওয়ার পরই ছন্দপতন হয় কিউইদের। ৩৫ রানের ব্যবধানে আরো ৫ উইকেট খোয়ায় স্বাগিতকরা। শেষ দিকে টিম সাউদির ১৫ বলে ৩৯ রানের ঝড়ে হারের ব্যবধান কমায় নিউজিল্যান্ড। ৪ উইকেটে নিয়ে কিউইদের ধসিয়ে দেন লেগস্পিনার ম্যাট পারকিনসন। ২ উইকেট নেন ক্রিস জর্ডান। স্যাম কারেন, টম কারেন, প্যাট ব্রাউন প্রত্যেকের শিকার ১ উইকেট। ম্যাচসেরা হন ডেভিড মালান।
নেপিয়ারে রেকর্ড বুক-এ উঠলো যা
- ২৪১/৩, টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের দলীয় সর্বোচ্চ
- তৃতীয় উইকেটে মালান-মরগানের ১৮২ রানের জুটি টি-টোয়েন্টিতে যেকোনো উইকেটে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ
- মালানের ৪৮ বলে সেঞ্চুরি টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের পক্ষে দ্রুততম
- মরগানের ২১ বলে হাফসেঞ্চুরি টি-টোয়েন্টি ইংল্যান্ডের পক্ষে দ্রুততম
 


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

চবিতে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগ কর্মীর মারধর (ভিডিও)

মর্গে ছোট্ট ছোয়ার লাশ রেখে হাসপাতালে বাবা-মা

হবিগঞ্জের ৭ জন নিহত

সম্রাট ও আরমানের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

ছাত্রদল নেতার মৃত্যু

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১২ আসামীকে কুমিল্লা কারাগারে স্থানান্তর

তূর্ণা এক্সপ্রেসের চালক-গার্ডসহ ৩ জন সাময়িক বরখাস্ত

নওয়াজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে কেন্দ্রীয় সরকার

একবছরে ৫ বছরের কম বয়সী ১২০০০ শিশুর মৃত্যু

রাঙ্গা অনুতপ্ত, বক্তব্য প্রত্যাহার

সৌদি আরবে নারীত্ববাদ, সমকামিতা, নাস্তিক্যবাদ উগ্রপন্থিদের ধারনা

ঘুরতে যাবার সময় লাশ হলেন রুবেল, আহত মুন্না ঢামেকে

নিহতদের প্রত্যেক পরিবার পাবে ১ লাখ টাকা: রেলমন্ত্রী

বুলবুলের পর আসছে নাকরি

৩ তদন্ত কমিটি গঠন

হাসপাতালে ভর্তি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার