সিরাজদিখানে জমি দখলে বাধা দেয়ায় মালিক নিহত

বাংলারজমিন

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি | ৯ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার
সিরাজদিখানে জোর করে ফসলি জমি ভরাট করার সময় বাধা দেয়ায় পিটিয়ে মো. মীর আলী মোল্লা (৬০) নামক জমির মালিকে নিহত করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার চান্দ্রেরচর গ্রামের এ ঘটনা ঘটে। হামলায় নিহত মীর আলীর ভাই মো. আজিজ এবং বোন শাহিদা বেগমও গুরুতর আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। জানা যায়, উপজেলার চান্দ্রেরচর গ্রামে দক্ষিণা গ্রীন সিটি নামক একটি প্রকল্প ফসলি  জমি ক্রয়ের দায়িত্ব দেয়া হয় একই গ্রামের সুরুজ মেম্বারের ছেলে দখলদার শহিদুল ইসলাম (৫০) গংদের । দীর্ঘদিন যাবত মীর আলী মোল্লা একটি ফসলি জমি ক্রয়ের জন্য চাপ দিয়ে আসছে শহিদুল ইসলাম। গতকাল শুক্রবার দুপুরে জোড় করে ফসলি ধান জমিতে বালু ভরাট শুরু করে। নিহতের আত্মীয় স্বজনা জানান মীর আলী মোল্লা বাধা দিলে শহিদুল ইসলামের নেত্রত্বে একই গ্রামের কালা চান মাদবরের ছেলে নয়ন (২৫), হাবিবের ছেলে জহির (৩২), জহিরের ভাই আখির (২৫) ও মোস্থফার ছেলে বাদশাসহ আরো ১০/১৫ জন মিলে তাকে লোহার রট, রাভারের টায়ার ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে নিহত করা হয়।
মীর আলী বোন শাহীন আহমেদ (৫০) ও ভাই আজিজ মোল্লা (৪৭) ভাইকে বাঁচাতে আসলে তাদেরকে পিটিয়ে আহত করে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ক্যান্সার হাসপাতাল নির্মাণে হুমায়ুন পরিবারের সম্মিলিত উদ্যোগ চান শাওন

ওআইসি’র পক্ষ থেকে মামলা করায় চাপে থাকবে মিয়ানমার

সরকারের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান নওয়াজের

চাঁদপুরে শোকের মাতম (ভিডিও)

মানব উন্নয়নে ভারত-পাকিস্তানকে অতিক্রম করেছি: তথ্যমন্ত্রী

বিএনপি থেকে নয়, আওয়ামীলীগ থেকে বিএনপিতে আশার অবস্থা তৈরি হচ্ছে: ফখরুল

পিকআপ চাপায় একই পরিবারের ৪ জন নিহত

রোহিঙ্গাদের ভাষাণচরে স্থানান্তর স্থগিতের ঘোষণাকে সাধুবাদ

অযোগ্য ১৭ বিধায়ক নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন কর্নাটকে

অন্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের সড়ক দুর্ঘটনার হার বেশি নয়: কাদের

গোপালগঞ্জে বুলবুলের আঘাতে ৫০ হাজার হেক্টর ফসলি জমির ক্ষতি

ব্যাঙ্গালোরে বাংলাদেশী কথিত অবৈধ অভিবাসীদের অনিশ্চিত ভবিষ্যত

বাবার সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে লাশ হলো ইয়াসিন

চরে আটকা পড়েছে এম ভি শাহরুখ-২

ট্রেন দুর্ঘটনায় ১৬ জন নিহতের ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা

৭টি বিদ্যুৎকেন্দ্র উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী