ব্যাখা দিলেন রাশেদ খান মেনন

স্টাফ রিপোর্টার

অনলাইন ২০ অক্টোবর ২০১৯, রোববার, ৫:১৪

‘আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি- গত নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি’, ১৪ দলের শরিক বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের এই বক্তব্য টক অব দ্য কান্ট্রিতে পরিণত হয়েছে। চারদিকে চলছে নানা সামলোচনা। সেতুমন্ত্রীও এ বিষয়ে সামলোচনা করেছেন। অবশ্য বরিশালে গতকাল দেয়া ওই বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়েছেন রাশেদ খান মেনন। বিগত নির্বাচন প্রসঙ্গে বরিশালে দেয়া বক্তব্য প্রসঙ্গে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, বরিশাল জেলা পার্টির সম্মেলনে আমার একটি বক্তব্য সম্পর্কে জাতীয় রাজনীতি ও ১৪ দলের রাজনীতিতে একটা ভুল বার্তা গেছে। আমার বক্তব্য সম্পূর্ণ উপস্থাপন না করে অংশ বিশেষ উত্থাপন করায় এই বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে।

রোববার ওয়ার্কার্স পার্টির কামরুল আহসান স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে মেনন একথা বলেন।
রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘বরিশাল জেলা পার্টির সম্মেলনে আমার একটি বক্তব্য সম্পর্কে জাতীয় রাজনীতি ও ১৪ দলের রাজনীতিতে একটা ভুল বার্তা গেছে। আমার বক্তব্য সম্পূর্ণ পরিবেশন না করে অংশ বিশেষ পরিবেশন করায় এই বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, এ যাবতকালের নির্বাচন ১৪ দলের সংগ্রামেরই ফসল ও সরকারও গঠিত হয়েছে ১৪ দলের লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে।
আজকে মৌলবাদ-সাম্প্রদায়িকতার যে বিপদ বিদ্যমান তাকে মোকাবিলা করতে ১৪ দলের ওই সংগ্রামকেই এগিয়ে নিতে হবে।গণমাধ্যমে ভুল বার্তা দেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, আমি কেবল এখনই নয়, জাতীয় নির্বাচন সম্পর্কে পার্লামেন্টে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেছিলাম, একাদশ সংসদের সফল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু, অভিজ্ঞতাটি সুখকর নয়। বিএনপি-জামায়াত নির্বাচনে এলেও নির্বাচনকে ভণ্ডুল করা, নিদেন পক্ষে জাতীয় আন্তর্জাতিকভাবে প্রশ্নবিদ্ধ করার কৌশল প্রয়োগ করেছে নির্বাচনে। ... এটা যেমন সত্য তেমনি এ ধরনের পরিস্থিতিতে অতি উৎসাহী প্রশাসনিক কর্মকর্তারা বাড়াবাড়ি করতে পারে। কিন্তু, তাতে এই নির্বাচন অশুদ্ধ বা অবৈধ হয়ে যায় না।’

সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, বক্তৃতায় আমি বলেছি, স্বাধীনতা উত্তরকাল থেকে এ যাবত জিয়া-এরশাদ-বিএনপি-জামায়াত আমলের ধারাবাহিক অনিয়ম অব্যবস্থাপনা ও ক্ষমতার অপব্যবহার ঘটেছে। বিভিন্ন সময় আমি প্রার্থী হিসেবে এসব ঘটনার সাক্ষী। আমি বলেছি, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মিলে ভোটাধিকার ও ভোটের মর্যাদা প্রতিষ্ঠা করতে আমরা যে লড়াই করেছি, তা যেন বৃথা না যায়। সে জন্য নির্বাচনকে যথাযথ মর্যাদায় ফিরিয়ে আনতে হবে।

উল্লেখ্য, শনিবার বরিশালে এক অনুষ্ঠানে রাশেদ খান মেনন বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটাররা ভোট দেয়নি। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪-দলীয় জোটের অন্যতম নেতার মুখে এমন মন্তব্যের পর রাজনৈতিক অঙ্গনে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার তৈরি হয়েছে।




পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Quazi Nasrullah

২০১৯-১০-২১ ০২:৩২:৩৬

মেনন স্যারকে আমি একজন আদর্শ ব্যক্তি মনে করতাম। আজ মনে হয় সেখানে আঘাত লাগলো।

Kazi

২০১৯-১০-২১ ০১:১০:২৯

Casino partner.

সোহাগ

২০১৯-১০-২০ ১২:৫৪:৩৭

সোনার বাংলায় সোনার মুখে সকালে এক কথা বিকালে এক কথা এখন রাজনৈতিক শিষ্টাচার এ পরিনত হয়েছে। তাই এগুলো এখন অস্বাভাবিক কোন বিষয় নয়!! সবশেষে বলবো " হাস্যকর "!!!

Noshin chowdhury

২০১৯-১০-২০ ০৯:৫৬:৪৫

সংবাদ পত্রে ভুল ভাবে প্রকাশ হলে ভিডিওর বক্তব্য্য হুবহু আছে।ঐটা কি ভুল।সর্বশেষ আওয়ামীলীগের ঠেলা মাথা বে- সামাল।

jewel ahmed

২০১৯-১০-২০ ০৮:৩৯:৫৯

বাংলার জনগন মেননকে ক্ষমা করবে না, সুযোগ পেলেই বুঝাবে কত ধানে কত চাল?

Rizvi

২০১৯-১০-২০ ২১:৩৪:২৭

ক্যা-রে আমরা বাংগালী না !? বাংলা ভাষা বুঝতে কি খুব অসুবিধা আমাদের মত বাংগালীরা ,ভিডিওতে দেখলাম-শুনলাম এরপরেও কি করে উহা ভুল-বার্তা হয় /ভুল ব্যাখ্যা হয় "মেনন সাহেবই কি শুধু "বাংলা ভাষার পন্ডিত !!!?"

Rizvi

২০১৯-১০-২০ ২১:৩৩:৪৮

খুশি হওয়ার মত বিষয়টি নয় -অন্তত যাদের নূন্যতম রাজনৈতিক জ্ঞান আছে -তারা ঠিকই বুঝতে পেরেছেন "রাশেদ-খান মেনন কেন এ-কথা বলেছেন ! তিনি স্বাক্ষী কিন্তু এখনো এমপি ,সুবিধা-ভোগী -জনগণকে বলছেন রাজনৈতিক উদ্দেশ -কিন্তু নিজের বিবেক থেকে ঘৃণা জাগে নাই -জাগলে তিনি পদত্যাগ করতেন -!! মূলত ক্যাসিনো কাণ্ডে" রিমান্ডে থাকা সোনার ছেলেরা" যেসব তথ্য দিচ্ছেন -ঘুরে-ফিরে"জনাব মেননের নাম বার-বার বেড়িয়ে আসছে বিষয়টি এমন পর্যায়ে চলে গেছে যে সরকার তথা প্রশাসন হয়তো বাধ্য হবেন -এমনটি ১০০% হওয়ায় "তিনি এই বক্তব্য দিয়ে সরকারকে অনেকটা বুঝাতে চাচ্ছেন "তাহাকে কিছু করতে চাইলে তিনি এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে বাধ্য হবেন!!!

Rizvi

২০১৯-১০-২০ ২১:১৩:১৪

খুশি হওয়ার মত বিষয়টি নয় -অন্তত যাদের নূন্যতম রাজনৈতিক জ্ঞান আছে -তারা ঠিকই বুঝতে পেরেছেন "রাশেদ-খান মেনন কেন এ-কথা বলেছেন ! তিনি স্বাক্ষী কিন্তু এখনো এমপি ,সুবিধা-ভোগী -জনগণকে বলছেন রাজনৈতিক উদ্দেশ -কিন্তু নিজের বিবেক থেকে ঘৃণা জাগে নাই -জাগলে তিনি পদত্যাগ করতেন -!! মূলত ক্যাসিনো কাণ্ডে" রিমান্ডে থাকা সোনার ছেলেরা" যেসব তথ্য দিচ্ছেন -ঘুরে-ফিরে"জনাব মেননের নাম বার-বার বেড়িয়ে আসছে বিষয়টি এমন পর্যায়ে চলে গেছে যে সরকার তথা প্রশাসন হয়তো বাধ্য হবেন -এমনটি ১০০% হওয়ায় "তিনি এই বক্তব্য দিয়ে সরকারকে অনেকটা বুঝাতে চাচ্ছেন "তাহাকে কিছু করতে চাইলে তিনি এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে বাধ্য হবেন!!!

জাফর আহমেদ

২০১৯-১০-২০ ০৭:৫০:৫৮

জনাব মেনন আপনি যে কত বড় ধান্দা বাজ সেটা এদেশের মানুষকে নতুন করে জানতে চাই হবে না । আপনি এখন এরশাদের সময়ের কথা বলছেন এরশাদের সময়ের ও আপনি ক্ষমতায় শরিক ছিলেন। সেটা কি এদেশের মানুষ ভুলে গেছেন। আপনি এর আগে ও এই রকম প্রলাপ বকছেন। যখন মন্ত্রীত্ব পেয়েছেন তখনই চুপচাপ বসে ছিলেন। এখন যত কিছু বলেন মন্ত্রীত্ব আর পাবেন না। তার উপর ক্যাসিনো থেকে ঘুষ নিয়েছেন।

A.R.Khan

২০১৯-১০-২০ ০৬:৫৭:৫৯

এরশাদ কাকু হারিয়ে গিয়েছেন, কিন্তু তার অনুসারীরা এখনো হারিয়ে যাইনি এবং যাবেও না।

ওমর ফারুক

২০১৯-১০-২০ ০৬:৩১:৪৬

মেনন সাহেব গণ মাধ্যমের সংবাদ কর্মীরা প্রমাণ ছাড়া সংবাদ পরিবেশন করেনা। এটা কি ভুলে গেছেন? দেশের একটি পত্রিকার সাংবাদিক ও কি আপনার প্রকৃত বক্তব্য বুঝেনি? সব পত্রিকা তো একই সংবাদ পরিবেশন করলো। এখন কোন ভয়ে পল্টি দিলেন?

আব্দুল আলিম

২০১৯-১০-২০ ০৬:১৮:১১

এরা সত্য বলে। আবার ভয়ে পিছিয়ে যায়।

জামাল

২০১৯-১০-২০ ০৬:০৮:৩৭

এক জন জোকার নেতা।উনি ভয় পেয়েছেন।তাই ডিগ বাজি দিলেন

মোঃ শরীফুজ্জামান

২০১৯-১০-২০ ১৯:০৫:৪১

রাশেদ খান মেনন সত্যি কথা বলে তাকে আবার মিথ্যা দিয়ে ঢাকতে চাইছেন।

ropum

২০১৯-১০-২০ ০৫:৩২:৫৪

casino , dhandabaj r poli mara lokjon der theke etai ki tik na? day & nght e kotha r explanation die to eder rajniti. deser politics er mathai ppchon dhorece ti deser manosh efer theke mane rajniti theke dure ace. thelar nam babaji. ti nao marka nie nijer sob kicho vale manus ke esob bole luv e ni.

অনিচ্ছুক

২০১৯-১০-২০ ০৫:০১:৩০

৩৬০ ডিগ্রী পালটি খেলেন মেনন । ধান্দাবাজ।

joynal

২০১৯-১০-২০ ১৭:৪৬:২৬

LoJJa Hin Prani Menon. Shame For Double Standard Roll.

আপনার মতামত দিন

অনলাইন -এর সর্বাধিক পঠিত