বিজিবি’র বিরুদ্ধে বিএসএফ’র এফআইআর

কলকাতা প্রতিনিধি

শেষের পাতা ২০ অক্টোবর ২০১৯, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১:১২

ভারত-বাংলাদেশের মুর্শিদাবাদ-রাজশাহী সীমান্তে বিএসএফ ও বিজিবি’র মধ্যে গোলাগুলির বিষয়টি ভুল বোঝাবুঝির ফল বলে বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানানোর পরও দুই বাহিনীর মধ্যে উত্তেজনা প্রশমনের কোনো লক্ষণ নেই। সীমান্তে দুই পক্ষই সতর্কতামূলক অবস্থানে রয়েছে। বিএসএফ গত শুক্রবারই বিজিবি’র বিরুদ্ধে মুর্শিদাবাদের জলঙ্গী থানায় এফআইআর দাখিল 
করেছে। গত বুধবার পদ্মা নদীতে আন্তর্জাতিক সীমানায় তিন ভারতীয় মৎস্যজীবীর অনুপ্রবেশের ঘটনায় বিএসএফ ও বিজিবির মধ্যে বচসা শুরু হয়। পরে গুলিও চলে। সেই গুলিতে বিএসএফ’র এক সেনা মারা যায় এবং একজন গুরুতর আহত হয় বলে অভিযোগ। বিএসএফ’র পক্ষ থেকে বিষয়টি ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রক ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রককে জানানো হয়েছে। দুই দেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর ডিজি হট লাইনে নিজেদের মধ্যে কথাও বলেছেন।
এখনও সীমান্ত এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। দুই পক্ষই সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। তবে স্থানীয় সূত্রের খবর, দু’সপ্তাহ আগে তিনটি বাংলাদেশি নৌকা সহ কয়েকজন মৎস্যজীবী ভারতের জল সীমানার মধ্যে প্রবেশ করলে বিএসএফ তাদের আটক করেছিল। বিজিবি পক্ষ থেকে তাদের এবং নৌকাগুলো ছেড়ে দেয়ার অনুরোধ জানানো হয়েছিল। কিন্তু বিএসএফ সেই অনুরোধ মানেনি। এরপর থেকেই দুই পক্ষের মধ্যে জেদাজেদি তৈরি হয়েছিল। যার ফলে এই সীমান্তে বিজয়ার মিষ্টি বিনিময়ও বন্ধ ছিল।


 




পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মাসউদুল গনি

২০১৯-১০-২০ ০৯:১৭:১০

এতোজন মারলো, কয়টা এফআইআর করলো বিজিবি?? আর আমাদের মন্ত্রীর কাছে এটা ভুল বোঝাবুঝি, মুরুব্বীদের জন্য গাত্রদাহ!! একটা মরাতেই এ অবস্থা, আমাদের কতজনকে মারলো!!!!!!!!!!

গনিম

২০১৯-১০-১৯ ১৩:৫১:৩৯

ভারতীয় বিএসএফ সন্ত্রাসী খুনি জংগী

আপনার মতামত দিন

শেষের পাতা -এর সর্বাধিক পঠিত



কড়া নিরাপত্তা, এজলাসে সিসি ক্যামেরা

খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি কাল