‘সমাজের কোথাও আমাদের সন্তানরা নিরাপদ নয়’

তামান্না মোমিন খান

অনলাইন ১৮ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার, ২:২৪

মনোরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডাঃ মোহিত কামাল বলেছেন, সমাজের কোথাও আমরা নিরাপদ নই। বুয়েটের মত জায়গাতেও আমাদের সন্তানরা অনিরাপদ। সমাজের কোথাও আমাদের সন্তানরা নিরাপদ নয়। পত্রিকায় খবর এসেছে বাবা সন্তানকে হত্যা করেছে। কোন বাবা কি তার সন্তানকে হত্যা করতে পারে? এ ধরনের খবর সমাজকে আতঙ্কিত করে। শিশুরা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে যায়। তারা মনে করে, বাবা-মা তাদের খুন করতে পারে। পরিবারেও তারা নিরাপদ নয়।
এত নির্মম, এত হিং¯্রভাবে কোন বাবা সন্তানকে খুন করতে পারেনা। সন্তানকে খুন করা মানে নিজেকে খুন করা। বাবা-মা নিজে খুন হয়ে যাবে তবু সন্তানকে খুন করবে না। আমাদের বিজ্ঞান-ধর্ম তাই বলে। এর আগে একজন নারী তার সন্তানকে মেরে ফেলেছিল। যে নারী সন্তানকে হত্যা করেছিল সে মা ছিল না সে মানসিক বিকারগ্রস্ত নারী ছিল। আমি গণমাধ্যমকে অনুরোধ করব, তারা যেন মা খুন করেছে; বাবা খুন করেছে এই শব্দগুলো ব্যবহারে সর্তক হয়। এ ধরনের খবর সমাজকে আতঙ্কিত করে। সমাজে অপরাধ প্রবণতা কমাতে হলে শিশুদের ছোটবেলা থেকে ব্যক্তিত্ব গঠন, মূল্যবোধ গঠন এবং বিবেকবোধ জাগ্রত করতে গুরুত্ব দিতে হবে। সমাজে শিশু যৌন নির্যাতন রোধ করতে হলে শিশুদের গুড ট্যাচ, ব্যাড ট্যাচ সর্ম্পকে শেখাতে হতে হবে। যেন তারা কাছের কিংবা পরিচিত কারো দ্বারা নির্যাতনের শিকার না হয়। আমাদের সমাজে এসব অপরাধের ব্যাপকতার জন্য প্রযুক্তিগত স্পর্শতার যে খারাপ দিক সেটা দায়ী। আমরা ভালো দিকটা গ্রহণ করিনা, খারাপ দিকটা গ্রহণ করি।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Nazrul Islam

২০১৯-১০-১৮ ২৩:২৯:০০

আপনার সাথে একমত।।

কাশেম

২০১৯-১০-১৮ ০৯:১৭:৪৪

আপনার লেখা পড়ে ভাল লাগছে। অনেক আছেন কথা বলতে ঘুরিয়ে প্যাচিয়ে কথা বলেন বা লেখেন কিন্তু সত্যি কথা প্রকাশ করতে সাহস করেন না, আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

Nurul alam

২০১৯-১০-১৮ ০৮:৫২:৫৯

সমাজের এত অধ:পতন কেন ? কেন ? কেন ??? এসকল খবর যখন কানে আসে তখন ভেতর বাহির দুরু দুরু কাঁপতে আরম্ভ করে। ঐ খবর শুনতে চাইনা, পড়তে চাইনা।

ahammad

২০১৯-১০-১৮ ০৫:৪১:২৭

১০০% সহমত পোষন করলাম। এই কথা গুলো উপস্হাপন করার লোক বর্তমান সমাজে বিরল। আমরা সবাই শুধু লেখ লেখি নয় সব কিছুতেই নিজের সার্থ আগে দেখি, তাই নয় কি ? আপনাকে অসঙ্খ ধন্যবাদ।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

সৌদি আরবে ধরপাকড় চলছেই

১৬ দিনে ফিরেছেন ১৬১০ বাংলাদেশি

১৭ জানুয়ারি ২০২০





অনলাইন সর্বাধিক পঠিত