র‌্যাগিং মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়

ষোলো আনা

শাওন শেখ শুভ | ১৮ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:০২
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিং নিয়ে উদ্বিগ্ন নয় শিক্ষার্থীরা। নেই টর্চার সেল আতঙ্ক। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাগিংয়ের নামে শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতন। তবে ব্যতিক্রম ছাত্র রাজনীতিমুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়টি। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী তানজিদ রহমান উদয় বলেন, প্রথম ক্যাম্পাসে আসার পর ভয় নিয়ে এসেছিলাম। কিন্তু কোনো প্রকার র‌্যাগিংয়ের শিকার হয়নি। বড় ভাইদের সঙ্গে বসেছি। তাদের নির্দেশনা মতো চলেছি।

আরো অনেক নবীন শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের লেখাপড়ার পরিবেশ নিয়ে তারা সন্তুষ্ট।
তারা র‌্যাগিং নিয়ে মোটেই উদ্বিগ্ন নয়। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিনের প্রভাষক শরিফুল ইসলাম বলেন, মানবিক বোধসম্পন্ন সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর নৈতিক দায়িত্ব র‌্যাগিং সংস্কৃতিকে নিরুৎসাহিত করা। র‌্যাগিং প্রতিরোধে সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনের জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করা প্রয়োজন।

ছাত্র বিষয়ক পরিচালক প্রফেসর মো. শরীফ হাসান লিমন বলেন, র‌্যাগিং কোনো সুস্থ মস্তিষ্কের চর্চা নয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অনেক আগেই এ ব্যাপারে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছে। র‌্যাগিং না থাকলেও আমরা সতর্ক। আমরা চাই খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় পুরোপুরি র‌্যাগিং মুক্ত থাকুক।


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

efti hasan

২০১৯-১০-১৭ ২১:৩৬:০৬

ভালো লাগছে রিপোর্টটা

আপনার মতামত দিন

‘বাংলা সংগীত ও চলচ্চিত্রকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই’

সোমবার লোকসভায় পেশ হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল

ধর্মঘট-বিক্ষোভে অচল অবস্থা বিরাজ করছে ফ্রান্সে

এনকাউন্টারে নিহত চার নরপিশাচ

আজ সন্ধ্যায় সৃজিত-মিথিলার রেজিস্ট্রি বিয়ে

সরকারি সেবা বন্ধ করে টিকাদান কর্মসূচি চালু

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান আর নেই

নিহত তরুণীর পরিচয় মিলেছে

বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে ‘কর্মসূচি’ নিয়ে আলোচনা

নজিরবিহীন

সিলেট আওয়ামী লীগে নতুন নেতৃত্ব

মেডিকেল রিপোর্ট পরিবর্তনের জন্য সময়ের আবেদন

এজলাসে হট্টগোল আদালত অবমাননা

বিশৃঙ্খলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে

আপিল বিভাগের সিদ্ধান্তে জাতি হতাশ, বিক্ষুব্ধ

প্রতিবন্ধীদের বিষয়ে মানসিকতা বদলাতে হবে