চিকিৎসকের জবানিতে- যেভাবে হত্যা করা হয় আবরারকে

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ৭ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার, ৩:২৩ | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৪৯
ছবিঃ নাসির উদ্দিন
বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদের মৃত্যুর কারণ বলতে গিয়ে নৃশংস নির্যাতনের বর্ণনা ওঠে এসেছে চিকিৎসকের জবানিতে। আজ দুপুরে আবরারের ময়নাতদন্ত শেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের এ বর্ণনা দেন। বলেন, আবরার ফাহাদের রক্তক্ষরণ ও ব্যথায় মারা গিয়েছেন।

সোহেল মাহমুদ বলেন, ময়নাতদন্তের পর আমরা তার সমস্ত শরীরে মারধর ও আঘাতের চিহ্ন পেয়েছি। মারের আঘাতের জন্যে সে মারা গিয়েছে। আঘাতগুলো দেখে আমাদের কাছে মনে হয়েছে তাকে ভোঁতা কোনো কিছু দিয়ে তাকে আঘাত করা হয়েছে। এটি বাঁশও হতে পারে বা ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্পও হতে পারে। তার শরীরের হাতে, পায়ে এবং পিঠে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, যে পরিমাণ আঘাতের চিহ্ন তার শরীরে পেয়েছি এক্সটেনসিভ ব্রুইস ছিলো।
আমাদের ধারণা, সেই এক্সটেনসিভ ব্রুইসের জন্যে সে মারা গেছে। তার হাতে, পায়ে এবং পিঠে ব্লান্ট ফোর্স ইনজুরি ছিলো। এর জন্যে তার শরীরে রক্তক্ষরণ হয়েছে। রক্তক্ষরণ ও ব্যথায় সে মারা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) আবাসিক হলের ছাত্র আবরার ফাহাদের (২১) লাশ আজ ভোরে শেরে বাংলা হলের সিঁড়ি থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। তাকে পিটিয়ে হত্যার আলামত পেয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। এর আগে রোববার রাতে তাকে ছাত্রলীগ নেতারা একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে মারধর করে। একাধিক সূত্র থেকে জানা যায়, ওই কক্ষে তার ওপর শারীরিক নির্যাতন চলে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

জামান

২০১৯-১০-০৭ ১০:২৯:৪৫

হায় রে ! চেয়েছিল সম্রাট গ্রেফতারে, চানক্য রীতি তে ইস্যু আডালে পাঠাতে - দেশপ্রেমে আবরারের জিবন দান ! * * * * সে।পানে। তলে, কত প্রান হলে। বলিদান লেখা আছে অশ্রুজলে / / /

Md.Obaidur Rahman

২০১৯-১০-০৭ ০৭:৪১:০৫

মতামত প্রকাশ করে লাশ হতে চাই । শুধু বলতে চাই দেশের শাসন ভার পেলে সমস্ত তথাকথিত ছাত্র সংগঠন আগে বন্ধ করতাম।

Quazi Nasrullah

২০১৯-১০-০৭ ০৬:১১:৫৭

বুয়েটে কি ভাবে এমন হিংস্র পশু ঢোকার সুযোগ পেল, মেধাবীরা তো এমন হিংস্র হয় না। নাকি এখানে ও বাণিজ্য হয়েছে?

Md Harun al Rashid

২০১৯-১০-০৭ ১৬:০০:৩২

অবস্হাদৃষ্টে মনে হছ্ছে ঐ দু'টি সংগঠনের ইতস্তত বড়টি হলো নিষ্পেশন যন্ত্র 'গিলোটিন' এবং ছোটটি 'পিলোরি'। ঐতিহাসিক ভাবে সুখ্যাতির এমন মানবিক প্রতিষ্ঠানগুলো দানব হয়ে উঠলো -দেখার কেহ নেই নাকি?

Md Harun al Rashid

২০১৯-১০-০৭ ১৫:৫৯:৩৩

অবস্হাদৃষ্টে মনে হছ্ছে ঐ দু'টি সংগঠনের ইতস্তত বড়টি হলো নিষ্পেশন যন্ত্র 'গিলোটিন' এবং ছোটটি 'পিলোরি'। ঐতিহাসিক ভাবে সুখ্যাতির এমন মানবিক প্রতিষ্ঠানগুলো দানব হয়ে উঠলো -দেখার কেহ নেই নাকি?

আপনার মতামত দিন

নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎকে নিয়ে বিজেপির লাগামহীন কুৎসা

ব্রিজে উঠতে লাগে মই

যুক্তরাষ্ট্র-ভারত প্রতিরক্ষা বাণিজ্য দাঁড়াবে ১৮০০ কোটি ডলারে

শরণখোলায় ১৩ মামলার আসামি গ্রেপ্তার

‘নতুন সম্মেলন মানেই নতুন মুখ’

ভারতে হিন্দু নেতা হত্যা, গ্রেপ্তার দু’মাওলানাসহ ৫

ধামরাইয়ে শিক্ষকের হাতে বলৎকারের শিকার ছাত্র

চার জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নারীসহ ৬ জন নিহত

বিব্রত ঢাকা, বিজিবির বিরুদ্ধে ভারতে মামলা, তদন্ত শুরু

তিন ঘন্টার চেষ্টায় চট্টগ্রাম হকার্স মার্কেটের আগুন নিয়ন্ত্রণে

কঠিন পরীক্ষায় বরিস জনসন

সুদ লেনদেনকে কেন্দ্র করে মসজিদের ইমাম খুন

বাংলাদেশী জঙ্গিদের অনুপ্রবেশ ঘটেছে, উচ্চ সতর্ক অবস্থায় পুলিশ

রাজনৈতিক সমঝোতার মাধ্যমে কি খালেদা জিয়া মুক্ত হতে পারবেন?

জেলখানায় প্রেম, সমকামিতা

‘দর্শক পর্দায় শুধু নায়ক-নায়িকার রোমান্স দেখতে চান না’